ঢাকা, ডিসেম্বর ১৯, ২০১৭, ৪ পৌষ ১৪২৪
---
---
bbc24news.com
প্রথম পাতা » অর্থ–শেয়ারবাজার » দেশি-বিদেশি চাপ সত্ত্বেও ক্ষতিপূরণ পাননি-তাজরীন ক্ষতিগ্রস্থরা
রবিবার ● ২৬ নভেম্বর ২০১৭, ৪ পৌষ ১৪২৪
Email this News Print Friendly Version

দেশি-বিদেশি চাপ সত্ত্বেও ক্ষতিপূরণ পাননি-তাজরীন ক্ষতিগ্রস্থরা

---বিবিসি২৪নিউজ,নিজস্ব প্রতিবেদক:  ২০১২ সালের ২৪ নভেম্বর তাজরীন ফ্যাশনসে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে সেখানে ১১১ জন শ্রমিক মারা যান, দগ্ধ ও আহত হন ১০৪ জন৷দেশি-বিদেশি চাপ সত্ত্বেও ক্ষতিপূরণ পাননি তাজরীন ফ্যাশনসে অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্থরা৷

সেই ঘটনায় শ্রমিক সংগঠনগুলোর অব্যাহত আন্দোলন,তাজরীনের মালিক দেলোয়ার হোসেন ও তার স্ত্রী মাহমুদা আক্তারসহ কয়েকজনকে আসামি করে মামলা দায়ের করা হয়৷ মামলার বিচার এখনো ঝুলে আছে৷ গত দুই বছর আগে এই মামলার বিচার শুরু হয়েছে৷ এ পর্যন্ত আদালতে মাত্র ৭ জন আসামীকে হাজির করা গেছে৷ ফলে মামলাটির বিচারকাজ কোনভাবেই এগুচ্ছে না, শুধু সময় পার হচ্ছে৷

গার্মেন্ট শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্রের সাধারণ সম্পাদক জলি তালুকদার বলেন, ‘‘আমরাতো সেই ঘটনার পর থেকেই আন্দোলন করে আসছি৷ কিন্তু এখন পর্যন্ত কোনো ক্ষতিগ্রস্থ শ্রমিককে ক্ষতিপূরণ দেয়া হয়নি৷ অর্থের অভাবে তাদের চিকিৎসাও হচ্ছে না৷ অনেকেই জটিল রোগে আক্রান্ত হয়ে বিছানায় পড়ে গেছেন৷ বহু শ্রমিক ওই ঘটনার পর থেকে কোনো কাজই করতে পারছেন না৷”

তিনি বলেন, ‘‘এগুলো বলতে বলতে আমরা ক্লান্ত৷ আর মামলার কথা কি বলব? রাষ্ট্র তো তাজরীনের মালিককে ছাড় দিতেই যেন বসে আছে৷ সাক্ষীদের আনা যাচ্ছে না৷ কেনো আনা যায় না, এ তো আপনারাও বোঝেন৷ কিভাবে তাকে সুবিধা দেয়া যায়, সেই চেষ্টাই হচ্ছে৷”

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ওই ঘটনায় দায়ের করা মামলার তদন্ত শেষে সিআইডির পরিদর্শক এ কে এম মহসীনুজ্জামান খান ২০১৩ সালে ১৯ ডিসেম্বর ১৩ জনের বিরুদ্ধে যে অভিযোগপত্র দাখিল করেন, সেখানে বলা হয় - ভবনটির নকশায় ত্রুটি ও জরুরি নির্গমনের পথ ছিল না এবং আগুন লাগার পর শ্রমিকরা বাইরে বের হতে চাইলে নিরাপত্তাকর্মীরা কলাপসিবল গেট লাগিয়ে দিয়েছিলেন৷ এরপর ২০১৫ সালের ৩ সেপ্টেম্বর ১৩ আসামির বিরুদ্ধে ঢাকার আদালতে অভিযোগ গঠনের মধ্য দিয়ে বিচার শুরু হয়৷

মামলাটিতে আগামী ধার্য তারিখ ২০১৮ সালের ১১ জানুয়ারি৷ সেদিন অভিযোগপত্রে উল্লেখিত ১৬ থেকে ২১ নম্বর ক্রমিকের সাক্ষীদের হাজির করাতে ঢাকা জেলার পুলিশ সুপারের মাধ্যমে পরোয়ানা পাঠানো হয়েছে৷

মামলাটির রাষ্ট্রপক্ষের কৌঁসুলি মহানগর দায়েরা জজ আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর আব্দুল্লাহ আবু বলেন, ‘‘আদালতে সাক্ষী আনার দায়িত্ব পুলিশের৷ পুলিশ যদি সাক্ষীদের আনতে না পারে তাহলে প্রসিকিউটর কি করবে?


বলিউডের অভিনেত্রীদের টেকো মাথার

রাষ্ট্রীয় বাহিনী দ্বারা ৪০০ গুমের ঘটনা ঘটেছে: মোশাররফ


এ বিভাগের আরো খবর...

উন্নত জীবনের সন্ধানে, মানুষ আশ্রয় খুঁজছে, ইউরোপে উন্নত জীবনের সন্ধানে, মানুষ আশ্রয় খুঁজছে, ইউরোপে
জার্মানে যৌন খেলনার ইতিহাস সেক্সশপ সাম্রাজ্য জার্মানে যৌন খেলনার ইতিহাস সেক্সশপ সাম্রাজ্য
প্রতিবার ট্রেন দুর্ঘটনা শিশুদের ভূমিকা থাকে? প্রতিবার ট্রেন দুর্ঘটনা শিশুদের ভূমিকা থাকে?
হাতিরঝিলে নির্মিত হচ্ছে দৃস্টিনন্দন ঢাকা অপেরা হাউস হাতিরঝিলে নির্মিত হচ্ছে দৃস্টিনন্দন ঢাকা অপেরা হাউস
যুক্তরাষ্ট্রের হার্টসফিল্ড-জ্যাকসন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর বিদ্যুৎবিচ্ছিন্ন,হাজারেরও বেশি ফ্লাইট বাতিল যুক্তরাষ্ট্রের হার্টসফিল্ড-জ্যাকসন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর বিদ্যুৎবিচ্ছিন্ন,হাজারেরও বেশি ফ্লাইট বাতিল
তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী বিনালি ইয়ালদিরিম এখন ঢাকায় তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী বিনালি ইয়ালদিরিম এখন ঢাকায়
মহিউদ্দিনের কুলখানিতে যেভাবে পদদলিতে নিহত হলো ১০ জন মহিউদ্দিনের কুলখানিতে যেভাবে পদদলিতে নিহত হলো ১০ জন
সৌদি যুবরাজের দেশে দুর্নীতিবিরোধী অভিযান, বিদেশে বিলাসী জীবন সৌদি যুবরাজের দেশে দুর্নীতিবিরোধী অভিযান, বিদেশে বিলাসী জীবন
গৃহকর্মী নামে ‘বৈধপথে’ মধ্যপ্রাচ্যেসহ অনেক দেশে নারী পাচার হচ্ছে? গৃহকর্মী নামে ‘বৈধপথে’ মধ্যপ্রাচ্যেসহ অনেক দেশে নারী পাচার হচ্ছে?
রাশিয়ায় বোমা হামলা ব্যার্থ:সিআইএ রাশিয়ায় বোমা হামলা ব্যার্থ:সিআইএ

সর্বাধিক পঠিত

হাঁপানি ও অ্যালার্জি এড়াতে জীবনযাত্রায় পরিবর্তন চাই হাঁপানি ও অ্যালার্জি এড়াতে জীবনযাত্রায় পরিবর্তন চাই
উন্নত জীবনের সন্ধানে, মানুষ আশ্রয় খুঁজছে, ইউরোপে উন্নত জীবনের সন্ধানে, মানুষ আশ্রয় খুঁজছে, ইউরোপে
জার্মানে যৌন খেলনার ইতিহাস সেক্সশপ সাম্রাজ্য জার্মানে যৌন খেলনার ইতিহাস সেক্সশপ সাম্রাজ্য
প্রতিবার ট্রেন দুর্ঘটনা শিশুদের ভূমিকা থাকে? প্রতিবার ট্রেন দুর্ঘটনা শিশুদের ভূমিকা থাকে?
হাতিরঝিলে নির্মিত হচ্ছে দৃস্টিনন্দন ঢাকা অপেরা হাউস হাতিরঝিলে নির্মিত হচ্ছে দৃস্টিনন্দন ঢাকা অপেরা হাউস
যুক্তরাষ্ট্রের হার্টসফিল্ড-জ্যাকসন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর বিদ্যুৎবিচ্ছিন্ন,হাজারেরও বেশি ফ্লাইট বাতিল যুক্তরাষ্ট্রের হার্টসফিল্ড-জ্যাকসন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর বিদ্যুৎবিচ্ছিন্ন,হাজারেরও বেশি ফ্লাইট বাতিল
তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী বিনালি ইয়ালদিরিম এখন ঢাকায় তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী বিনালি ইয়ালদিরিম এখন ঢাকায়
মহিউদ্দিনের কুলখানিতে যেভাবে পদদলিতে নিহত হলো ১০ জন মহিউদ্দিনের কুলখানিতে যেভাবে পদদলিতে নিহত হলো ১০ জন
সৌদি যুবরাজের দেশে দুর্নীতিবিরোধী অভিযান, বিদেশে বিলাসী জীবন সৌদি যুবরাজের দেশে দুর্নীতিবিরোধী অভিযান, বিদেশে বিলাসী জীবন
সমস্যায় ভুগছেন রানী সমস্যায় ভুগছেন রানী
হাঁপানি ও অ্যালার্জি এড়াতে জীবনযাত্রায় পরিবর্তন চাই
হাতিরঝিলে নির্মিত হচ্ছে দৃস্টিনন্দন ঢাকা অপেরা হাউস
শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোতে ভর্তি ফি সহনীয় পরিমাণে নির্ধারণ করুন?
চুক্তি অনুযায়ী ২২ জানুয়ারি থেকে রোহিঙ্গা ফেরত: বাংলাদেশ
শ্রীলঙ্কাকে ২ উইকেট হারিয়েই সিরিজ জিতল: ভারত
হোটেল থেকে অভিনেত্রী গ্রেপ্তার!
ঢাকা ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ১
রাশিয়া ও চীনের ক্ষেপণাস্ত্র মহড়া চলছে
মানুষের ন্যায্য অধিকার প্রতিষ্ঠার সংগ্রাম করে গেছেন ভাসানী: খালেদা জিয়া
‘ওয়ান প্ল্যানেট সামিটে’ যোগ দিতে প্যারিস পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী