ঢাকা, এপ্রিল ২৬, ২০১৮, ১৩ বৈশাখ ১৪২৫
---
---
bbc24news.com
প্রথম পাতা » প্রিয়দেশ » মাদকের সঙ্গে যুক্তদের ধরে ধরে গুলি করুন-গণশিক্ষামন্ত্রী
মঙ্গলবার ● ২ জানুয়ারী ২০১৮, ১৩ বৈশাখ ১৪২৫
Email this News Print Friendly Version

মাদকের সঙ্গে যুক্তদের ধরে ধরে গুলি করুন-গণশিক্ষামন্ত্রী

---বিবিসি২৪নিউজ,প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান বলেন,মাদক দেশের এক নম্বর সমস্যা। এ সমস্যা থেকে মুক্তিতে মাদকের সঙ্গে যুক্তদের ধরে ধরে গুলি করাই একমাত্র সমাধান হতে পারে। মঙ্গলবার রাজধানীর তেজগাঁওয়ে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের প্রধান কার্যালয়ের প্রাঙ্গণে সংস্থাটির ২৮ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন।

মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে মাদক নির্মূলে কয়েক যুগের ব্যর্থতা আর অসহায়ত্বের কথা ফুটে উঠল বক্তাদের কথায়। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগের সচিব ফরিদ উদ্দিন আহম্মদ চৌধুরী বললেন, মাদক ব্যবসায়ীরা সমাজে প্রতিষ্ঠিত ও অনেক শক্তিশালী। তাঁদের ধারেকাছেও যাওয়া যাচ্ছে না।

কারা মহাপরিদর্শক (আইজি-প্রিজন) ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ইখতেখার উদ্দিন বললেন, যেভাবেই হোক, মাদক ব্যবসায়ীরা ক্ষমতাধর হয়েছেন। এখন তাঁদের সম্মানের চোখে দেখতে হয়। সবার বক্তব্য শুনে বর্ষীয়ান রাজনীতিক গণশিক্ষামন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান মাদককে দেশের এক নম্বর সমস্যা উল্লেখ করে বলেন, এভাবে এত দিন হয়নি, হবেও না। মাদকের সঙ্গে যুক্তদের ধরে ধরে গুলি করাই একমাত্র সমাধান হতে পারে।

সংস্থাটির মহাপরিচালক জামাল উদ্দীন আহমেদ অবশ্য আশাবাদী বক্তব্য দিয়েছেন। ২০১৮ সালে ৫০ জন মাদকের গডফাদারকে গ্রেপ্তারের প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

সংস্থাটির মহাপরিচালকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় আরও বক্তব্য দেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়-সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি সাংসদ টিপু মুনশী, নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক এমদাদুল হক, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ বোর্ডের সদস্য নঈম নিজাম, অধ্যাপক অরূপ রতন চৌধুরী প্রমুখ।

গণশিক্ষামন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, ‘জঙ্গিদের দুই-চার-দশ দিন পর ফিনিশ করা যাবে। কিন্তু মাদকের অবস্থা ভয়াবহ।’ তিনি বলেন, ‘মাদক নির্মূলের জন্য আলাদা বাহিনী, আলাদা এক লাখ পুলিশ দেওয়া হলেও এটা বন্ধ হবে না। আমি আজকে লিখে দিতে পারি, আমার মৃত্যুর এক শ বছর পরও এভাবে চললে মাদক বন্ধ হবে না। যাদের দিয়ে নিয়ন্ত্রণ করাবেন, রোগ তো তাদেরও আছে। আগে ইমান ঠিক করতে হবে। মাদকের সঙ্গে যুক্তদের “শুট অ্যাট সাইট” করতে হবে।’


শিক্ষা কেরামত -মোস্তাফা জব্বার পাচ্ছেন’টেলিকম-আইসিটি

বামন চরিত্রে শাহরুখ


এ বিভাগের আরো খবর...

চতুর্থ কার্যদিবসে ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতায় ফিরেছে সূচক চতুর্থ কার্যদিবসে ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতায় ফিরেছে সূচক
ঘন ও লম্বা চুল করতে রসুনের জুড়ি মেলা ভার ঘন ও লম্বা চুল করতে রসুনের জুড়ি মেলা ভার
শাকিব-অপুর নতুন চমক! শাকিব-অপুর নতুন চমক!
মুন্সীগঞ্জে বন্দুকযুদ্ধে আসামি নিহত মুন্সীগঞ্জে বন্দুকযুদ্ধে আসামি নিহত
ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতায় ফিরেছে সূচক! ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতায় ফিরেছে সূচক!
আগামীকাল সরকারি সফরে অষ্ট্রেলিয়া যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী! আগামীকাল সরকারি সফরে অষ্ট্রেলিয়া যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী!
৩০টি বিএমডব্লিউ গাড়ি আমদানি করেছে সরকার! ৩০টি বিএমডব্লিউ গাড়ি আমদানি করেছে সরকার!
খুলনা সিটির ৩১ দফা নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা! খুলনা সিটির ৩১ দফা নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা!
ডিআইজি মিজানুর রহমানকে দুদকের তলব! ডিআইজি মিজানুর রহমানকে দুদকের তলব!
১৭ মে খালেদা জিয়ার জামিনের শুনানি! ১৭ মে খালেদা জিয়ার জামিনের শুনানি!

সর্বাধিক পঠিত

তারেক ব্রিটেনের আইন মোতাবেক বসবাস করছেন- রিজভী তারেক ব্রিটেনের আইন মোতাবেক বসবাস করছেন- রিজভী
এই মাসে প্রজ্ঞাপন জারি না হলে ফের আন্দোলন! এই মাসে প্রজ্ঞাপন জারি না হলে ফের আন্দোলন!
চতুর্থ কার্যদিবসে ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতায় ফিরেছে সূচক চতুর্থ কার্যদিবসে ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতায় ফিরেছে সূচক
ঘন ও লম্বা চুল করতে রসুনের জুড়ি মেলা ভার ঘন ও লম্বা চুল করতে রসুনের জুড়ি মেলা ভার
বাংলাদেশ কম্বোডিয়াকে হারিয়ে ২০-০ গোলে বড় জয়! বাংলাদেশ কম্বোডিয়াকে হারিয়ে ২০-০ গোলে বড় জয়!
ইসির সঙ্গে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর বৈঠক আজ ইসির সঙ্গে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর বৈঠক আজ
ধোনির জয়,কোহলির বেঙ্গালুরুর হার! ধোনির জয়,কোহলির বেঙ্গালুরুর হার!
শব্দদূষণে বধির হওয়ার মাত্রা বেড়েই চলছে শব্দদূষণে বধির হওয়ার মাত্রা বেড়েই চলছে
সঞ্জয়ের বায়োপিকের নাম ‘দত্ত’ থেকে ‘সঞ্জু’ কেন? সঞ্জয়ের বায়োপিকের নাম ‘দত্ত’ থেকে ‘সঞ্জু’ কেন?
জলবায়ু ও দখলের কারণেই নদীগুলো মৃত জলবায়ু ও দখলের কারণেই নদীগুলো মৃত
অবর্ণনীয় দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে রাজধানীবাসীকে
বিড়ি শিল্পে তামাকের ভয়াবহতা আর শিশুশ্রম বাড়ছে
প্লাস্টিক বিপর্যয়ের মুখে বাংলাদেশ, খাবারে ঢুকে পড়ছে প্লাস্টিক !
শিক্ষাকে কখনো পণ্য হিসেবে বিবেচনা করা উচিত নয়
রেল যোগাযোগ ঝুঁকিমুক্ত করার পদক্ষেপ নিন
এডিবির পর্যবেক্ষণ বলছে-বাংলাদেশের অর্থনীতির ভিত্তি সুদৃঢ় করতে হবে
কাশ্মীরের ধর্ষণ ও হত্যা দিল্লিতে পৌঁছায়িন কেন?
রোহিঙ্গা পাঁচ সদস্যের একটি পরিবারকে ফিরিয়ে নিয়েছে: মিয়ানমার
জলবায়ু পরিবর্তনে বন্যা এবং সাইক্লোনের প্রবণতা বেড়ে যাবে
কোটা আন্দোলনকারীদের জয় হলেও মেধাবীরা কতটুকু সুযোগ পাবে?