ঢাকা, এপ্রিল ২৬, ২০১৮, ১৩ বৈশাখ ১৪২৫
---
---
bbc24news.com
প্রথম পাতা » আর্ন্তজাতিক » সৌদি রাজপ্রাসাদ থেকে আবারো ১১ প্রিন্স গ্রেপ্তার
রবিবার ● ৭ জানুয়ারী ২০১৮, ১৩ বৈশাখ ১৪২৫
Email this News Print Friendly Version

সৌদি রাজপ্রাসাদ থেকে আবারো ১১ প্রিন্স গ্রেপ্তার

---বিবিসি২৪নিউজ,সৌদি আরবের রাজপ্রাসাদে বিক্ষোভ করায় সময় ১১জন প্রিন্সকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।এখন থেকে পানি ও বিদ্যুৎ বিল এই প্রিন্সদের নিজেদেরই দিতে হবে- অর্থনৈতিক সংস্কারের অংশ হিসাবে সৌদি সরকারের এমন এক সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে বিক্ষোভ করছিলেন ওই প্রিন্সরা।

বাদশাহের আদেশে তাদের গ্রেপ্তারের পর সর্ব্বোচ্চ নিরাপত্তা রয়েছে, এমন একটি কারাগারে প্রিন্সদের পাঠানো হয়েছে। সৌদি অ্যাটর্নি জেনারেল বলছেন, কেউই আইনের ঊর্ধ্বে নয়। অবশ্য গ্রেপ্তারকৃতদের নাম জানা যায়নি। ঘটনাটি প্রথম প্রকাশ করে একটি অন-লাইন ভিত্তিক সৌদি গণমাধ্যম ‘সাবক’। সেখানে আরো বলা হয় যে, বিক্ষোভরত প্রিন্সরা গত বছর আরেক প্রিন্সের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর হওয়ার ঘটনার ক্ষতিপূরণও দাবি করছিলেন। এসব কাজে জনসাধারণ শান্তি বিঘ্নিত হওয়া ও শৃঙ্খলা ভঙ্গের দায় এনে প্রিন্সদের সেখান থেকে গ্রেপ্তার করা হয়।

বর্তমানে সৌদি সরকার তেলের ওপর নির্ভরতা কমাতে একটি নতুন অর্থনৈতিক সময়ে প্রবেশের পরিকল্পনা করেছে।
তারই অংশ হিসেবে দেশটিতে দ্বিগুণ করা হয়েছে তেলের দাম এবং বেশিরভাগ ভোগ্যপণ্যের ওপর ৫ শতাংশ হারে ট্যাক্স বসানো হয়েছে। বেশকিছু সরকারি ভর্তুকিও তুলে নেয়া হয়েছে।সৌদি আরবে কয়েক হাজার রাজপরিবারের সদস্য রয়েছে বলে ধারণা করা হয়, যাদের সম্পদ এবং মর্যাদার ক্ষেত্রে পার্থক্য রয়েছে।

গত নভেম্বরে দেশটির রাজপরিবারের অনেক সদস্য, বর্তমান ও সাবেক মন্ত্রী এবং শীর্ষ ধনকুবেরদের গ্রেপ্তার করে বন্দী করে রাখা হয়েছে বিলাসবহুল একটি হোটেলে।সৌদি যুবরাজের নেতৃত্বে দুর্নীতি বিরোধী অভিযানের অংশ হিসেবে এসব পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে বলে জানানো হয়।


ফেলানী হত্যার ন্যায়বিচার আদৌ কি পাবে তাদের পরিবার?

বার্মিজ সেনাদের বিরুদ্ধে লড়াই চলবে-আরসা


এ বিভাগের আরো খবর...

এই মাসে প্রজ্ঞাপন জারি না হলে ফের আন্দোলন! এই মাসে প্রজ্ঞাপন জারি না হলে ফের আন্দোলন!
ইসির সঙ্গে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর বৈঠক আজ ইসির সঙ্গে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর বৈঠক আজ
শব্দদূষণে বধির হওয়ার মাত্রা বেড়েই চলছে শব্দদূষণে বধির হওয়ার মাত্রা বেড়েই চলছে
পরমাণু সমঝোতা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ- গুতেরেস পরমাণু সমঝোতা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ- গুতেরেস
চীনে ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় গ্রেনেড নিক্ষেপ প্রতিযোগিতা! চীনে ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় গ্রেনেড নিক্ষেপ প্রতিযোগিতা!
তারেকের পাসপোর্ট পাওয়ার কোনো সুযোগ নেই তারেকের পাসপোর্ট পাওয়ার কোনো সুযোগ নেই
শীঘ্রই রাখাইন পরিদর্শনে যাচ্ছে জাতিসংঘের প্রতিনিধি দল শীঘ্রই রাখাইন পরিদর্শনে যাচ্ছে জাতিসংঘের প্রতিনিধি দল
রোহিঙ্গাদের জন্য ৪৪ লাখ টন ত্রাণ, ৪৫৯ কোটি টাকা অর্থ সহায়তা! রোহিঙ্গাদের জন্য ৪৪ লাখ টন ত্রাণ, ৪৫৯ কোটি টাকা অর্থ সহায়তা!
এশিয়ায় সবচেয়ে পিছিয়ে বাংলাদেশ এশিয়ায় সবচেয়ে পিছিয়ে বাংলাদেশ
হুমকি দিয়ে লাভ নেই, আ’ লীগ ভয় পায় না হুমকি দিয়ে লাভ নেই, আ’ লীগ ভয় পায় না

সর্বাধিক পঠিত

এই মাসে প্রজ্ঞাপন জারি না হলে ফের আন্দোলন! এই মাসে প্রজ্ঞাপন জারি না হলে ফের আন্দোলন!
চতুর্থ কার্যদিবসে ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতায় ফিরেছে সূচক চতুর্থ কার্যদিবসে ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতায় ফিরেছে সূচক
ঘন ও লম্বা চুল করতে রসুনের জুড়ি মেলা ভার ঘন ও লম্বা চুল করতে রসুনের জুড়ি মেলা ভার
বাংলাদেশ কম্বোডিয়াকে হারিয়ে ২০-০ গোলে বড় জয়! বাংলাদেশ কম্বোডিয়াকে হারিয়ে ২০-০ গোলে বড় জয়!
ইসির সঙ্গে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর বৈঠক আজ ইসির সঙ্গে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর বৈঠক আজ
ধোনির জয়,কোহলির বেঙ্গালুরুর হার! ধোনির জয়,কোহলির বেঙ্গালুরুর হার!
শব্দদূষণে বধির হওয়ার মাত্রা বেড়েই চলছে শব্দদূষণে বধির হওয়ার মাত্রা বেড়েই চলছে
সঞ্জয়ের বায়োপিকের নাম ‘দত্ত’ থেকে ‘সঞ্জু’ কেন? সঞ্জয়ের বায়োপিকের নাম ‘দত্ত’ থেকে ‘সঞ্জু’ কেন?
জলবায়ু ও দখলের কারণেই নদীগুলো মৃত জলবায়ু ও দখলের কারণেই নদীগুলো মৃত
পরমাণু সমঝোতা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ- গুতেরেস পরমাণু সমঝোতা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ- গুতেরেস
অবর্ণনীয় দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে রাজধানীবাসীকে
বিড়ি শিল্পে তামাকের ভয়াবহতা আর শিশুশ্রম বাড়ছে
প্লাস্টিক বিপর্যয়ের মুখে বাংলাদেশ, খাবারে ঢুকে পড়ছে প্লাস্টিক !
শিক্ষাকে কখনো পণ্য হিসেবে বিবেচনা করা উচিত নয়
রেল যোগাযোগ ঝুঁকিমুক্ত করার পদক্ষেপ নিন
এডিবির পর্যবেক্ষণ বলছে-বাংলাদেশের অর্থনীতির ভিত্তি সুদৃঢ় করতে হবে
কাশ্মীরের ধর্ষণ ও হত্যা দিল্লিতে পৌঁছায়িন কেন?
রোহিঙ্গা পাঁচ সদস্যের একটি পরিবারকে ফিরিয়ে নিয়েছে: মিয়ানমার
জলবায়ু পরিবর্তনে বন্যা এবং সাইক্লোনের প্রবণতা বেড়ে যাবে
কোটা আন্দোলনকারীদের জয় হলেও মেধাবীরা কতটুকু সুযোগ পাবে?