ঢাকা, এপ্রিল ২৬, ২০১৮, ১৩ বৈশাখ ১৪২৫
---
---
bbc24news.com
প্রথম পাতা » প্রধান সংবাদ » ব্যাপক বিক্ষোভের মুখে ওলানা সাদ” কাকরাইল মসজিদে
বুধবার ● ১০ জানুয়ারী ২০১৮, ১৩ বৈশাখ ১৪২৫
Email this News Print Friendly Version

ব্যাপক বিক্ষোভের মুখে ওলানা সাদ” কাকরাইল মসজিদে

---বিবিসি২৪নিউজ,দিল্লির নিজামউদ্দিন মারকাজের এই উত্তরসূরি,তাবলিগের অন্যতম মুরব্বি মাওলানা মোহাম্মদ সাদ কান্ধলভি তার কিছু বক্তব্য ও একক নেতৃত্বের প্রশ্নে সৃষ্ট জটিলতার মধ্যেই বিশ্ব ইজতেমায় অংশ নিতে বাংলাদেশে চলে এসেছেন। বৃহস্পতিবার (১১ জানুয়ারি) থেকে গাজীপুরের টঙ্গীতে অনুষ্ঠেয় ইজতেমার প্রথম পর্বে অংশ নিতে দিল্লির নিজামউদ্দিন মারকাজের এই উত্তরসূরি এখন অবস্থান করছেন ঢাকার কাকরাইল মসজিদে। বুধবার (১০ জানুয়ারি) বিকেল ৪টায় তিনি মসজিদটিতে অবস্থান নিলে এর বাইরে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হয়।

শুরাভিত্তিক নেতৃত্ব প্রত্যাখ্যান করে একক নেতৃত্ব প্রতিষ্ঠা ও মাওলানা সাদের বক্তব্য নিয়ে সৃষ্ট জটিলতা নিরসন না হওয়া পর্যন্ত তাকে ইজতেমায় অংশগ্রহণ থেকে বিরত থাকার আহবান জানিয়ে আসছেন তাবলিগ জামাতের একটি অংশ ও কওমিপন্থি আলেমরা।
ফ্লাইটযোগে মাওলানা সাদের আগমনের খবরে সকাল থেকেই ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে ইজতেমা মাঠে যাওয়ার সব রাস্তা বন্ধ করে দেন তাবলিগের একাংশের কর্মীরা। ব্যাপক বিক্ষোভের মুখে বুধবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে মাওলানা সাদ বিমানবন্দরে পৌঁছালেও তাকে ইজতেমার মাঠে যেতে দেওয়া হয়নি। বিশেষ নিরাপত্তা দিয়ে পুলিশি পাহারায় তাকে নিয়ে যাওয়া হয় কাকরাইলে।

মাওলানা সাদ ইজতেমায় অংশ নেবেন কি-না, তা এখনও স্পষ্ট হয়নি। তবে কাকরাইলের শুরা সদস্য সৈয়দ ওয়াসিফুল ইসলাম বলেন, ‘এ বিষয়ে নেতৃস্থানীয় আলেমদের সঙ্গে বৈঠক করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। এর বেশি কিছু বলতে পারছি না।’

অবশ্য নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক সাদ-বিরোধী এক শুরা সদস্য জানান, মাওলানা সাদকে ইজতেমায় অংশগ্রহণ না করার শর্তে কাকরাইল মসজিদে নেওয়া হয়েছে। তিনি এখানেই থাকবেন।

কেন মাওলানা সাদকে ইজতেমায় অংশ নিতে দেওয়া হবে না, কেন তার বিরোধিতায় রাস্তায় নেমেছেন আলেম-উলামারা, এমন প্রশ্ন ঘুরছে বিভিন্ন মহলে।

বিরোধীরা মাওলানা সাদের বক্তব্যের জন্য ভুল স্বীকার ও প্রকাশ্যে তওবা করার আহ্বান জানালেও ঠিক কোন বক্তব্য ঘিরে উত্তেজনা, তা নিয়ে চলছে আলাপ-আলোচনা।

আলেমদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, তাবলিগ জামাতের প্রতিষ্ঠাতা হযরত ইলিয়াস (রহ.)-এর নাতি মাওলানা সাদ।


খালেদা ‘পাগল’হয়ে গেছে-প্রধানমন্ত্রী

২০২১ সালে মধ্যম আয়ের দেশে উন্নীত হবে বাংলাদেশ : প্রধানমন্ত্রী


এ বিভাগের আরো খবর...

তারেক ব্রিটেনের আইন মোতাবেক বসবাস করছেন- রিজভী তারেক ব্রিটেনের আইন মোতাবেক বসবাস করছেন- রিজভী
এই মাসে প্রজ্ঞাপন জারি না হলে ফের আন্দোলন! এই মাসে প্রজ্ঞাপন জারি না হলে ফের আন্দোলন!
চতুর্থ কার্যদিবসে ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতায় ফিরেছে সূচক চতুর্থ কার্যদিবসে ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতায় ফিরেছে সূচক
ঘন ও লম্বা চুল করতে রসুনের জুড়ি মেলা ভার ঘন ও লম্বা চুল করতে রসুনের জুড়ি মেলা ভার
ইসির সঙ্গে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর বৈঠক আজ ইসির সঙ্গে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর বৈঠক আজ
শব্দদূষণে বধির হওয়ার মাত্রা বেড়েই চলছে শব্দদূষণে বধির হওয়ার মাত্রা বেড়েই চলছে
পরমাণু সমঝোতা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ- গুতেরেস পরমাণু সমঝোতা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ- গুতেরেস
শাকিব-অপুর নতুন চমক! শাকিব-অপুর নতুন চমক!
চীনে ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় গ্রেনেড নিক্ষেপ প্রতিযোগিতা! চীনে ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় গ্রেনেড নিক্ষেপ প্রতিযোগিতা!
মুন্সীগঞ্জে বন্দুকযুদ্ধে আসামি নিহত মুন্সীগঞ্জে বন্দুকযুদ্ধে আসামি নিহত

সর্বাধিক পঠিত

তারেক ব্রিটেনের আইন মোতাবেক বসবাস করছেন- রিজভী তারেক ব্রিটেনের আইন মোতাবেক বসবাস করছেন- রিজভী
এই মাসে প্রজ্ঞাপন জারি না হলে ফের আন্দোলন! এই মাসে প্রজ্ঞাপন জারি না হলে ফের আন্দোলন!
চতুর্থ কার্যদিবসে ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতায় ফিরেছে সূচক চতুর্থ কার্যদিবসে ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতায় ফিরেছে সূচক
ঘন ও লম্বা চুল করতে রসুনের জুড়ি মেলা ভার ঘন ও লম্বা চুল করতে রসুনের জুড়ি মেলা ভার
বাংলাদেশ কম্বোডিয়াকে হারিয়ে ২০-০ গোলে বড় জয়! বাংলাদেশ কম্বোডিয়াকে হারিয়ে ২০-০ গোলে বড় জয়!
ইসির সঙ্গে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর বৈঠক আজ ইসির সঙ্গে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর বৈঠক আজ
ধোনির জয়,কোহলির বেঙ্গালুরুর হার! ধোনির জয়,কোহলির বেঙ্গালুরুর হার!
শব্দদূষণে বধির হওয়ার মাত্রা বেড়েই চলছে শব্দদূষণে বধির হওয়ার মাত্রা বেড়েই চলছে
সঞ্জয়ের বায়োপিকের নাম ‘দত্ত’ থেকে ‘সঞ্জু’ কেন? সঞ্জয়ের বায়োপিকের নাম ‘দত্ত’ থেকে ‘সঞ্জু’ কেন?
জলবায়ু ও দখলের কারণেই নদীগুলো মৃত জলবায়ু ও দখলের কারণেই নদীগুলো মৃত
অবর্ণনীয় দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে রাজধানীবাসীকে
বিড়ি শিল্পে তামাকের ভয়াবহতা আর শিশুশ্রম বাড়ছে
প্লাস্টিক বিপর্যয়ের মুখে বাংলাদেশ, খাবারে ঢুকে পড়ছে প্লাস্টিক !
শিক্ষাকে কখনো পণ্য হিসেবে বিবেচনা করা উচিত নয়
রেল যোগাযোগ ঝুঁকিমুক্ত করার পদক্ষেপ নিন
এডিবির পর্যবেক্ষণ বলছে-বাংলাদেশের অর্থনীতির ভিত্তি সুদৃঢ় করতে হবে
কাশ্মীরের ধর্ষণ ও হত্যা দিল্লিতে পৌঁছায়িন কেন?
রোহিঙ্গা পাঁচ সদস্যের একটি পরিবারকে ফিরিয়ে নিয়েছে: মিয়ানমার
জলবায়ু পরিবর্তনে বন্যা এবং সাইক্লোনের প্রবণতা বেড়ে যাবে
কোটা আন্দোলনকারীদের জয় হলেও মেধাবীরা কতটুকু সুযোগ পাবে?