ঢাকা, জুন ২০, ২০১৮, ৬ আষাঢ় ১৪২৫
---
---
bbc24news.com
প্রথম পাতা » অর্থ–শেয়ারবাজার » ডিএসইকে ৯০দিন সময় দিয়েছে - বিএসইসি
শুক্রবার ● ৯ মার্চ ২০১৮, ৬ আষাঢ় ১৪২৫
Email this News Print Friendly Version

ডিএসইকে ৯০দিন সময় দিয়েছে - বিএসইসি

roniবিবিসি২৪নিউজ,নিজস্ব প্রতিনিধি:বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)কৌশলগত বিনিয়োগকারী নির্ধারণে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জকে (ডিএসই) আরো তিন মাস সময় দিয়েছে । ডিএসইর আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে সময় বৃদ্ধি করে কমিশনের চেয়ারম্যান অধ্যাপক খায়রুল হোসেন স্বাক্ষরিত চিঠি গতকাল হাতে পেয়েছে স্টক এক্সচেঞ্জটি। এর আগে বুধবার সময় বৃদ্ধির আবেদন নিয়ন্ত্রক সংস্থায় জমা দেয় ডিএসই। যদিও কৌশলগত বিনিয়োগকারী নির্ধারণে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জকে (সিএসই) আরো এক বছর সময় দিয়ে বুধবার প্রেস বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে বিএসইসি।ডিএসইর কর্মকর্তারা বলছেন, চলতি বছরের ৮ মার্চের মধ্যে কৌশলগত বিনিয়োগকারী নির্ধারণ করে চুক্তি স্বাক্ষরসহ সব কাজ শেষ করার শর্ত ছিল স্টক এক্সচেঞ্জের জন্য। এ লক্ষ্যে নিলামসহ সব প্রস্তুতি শেষে একটি কনসোর্টিয়ামকে চূড়ান্ত করে অনুমোদনের জন্য বিএসইতে পাঠিয়েছে ডিএসই। তবে কমিশনের অনুমোদনসহ অন্যান্য প্রক্রিয়ায় সময়ক্ষেপণ হওয়ায় সময়সীমা বাড়ানোর আবেদনের সিদ্ধান্ত নেয় ডিএসইর পরিচালনা পর্ষদ। সর্বশেষ ৭ মার্চ কমিশনের কাছে পাঠানো হয় এ আবেদনপত্র। এ পরিপ্রেক্ষিতে ৮ মার্চ সময়সীমা বাড়িয়ে নতুন নির্দেশনা দিয়েছে নিয়ন্ত্রক সংস্থা। এ নিয়ে চতুর্থ দফা সময় দেয়া হয়েছে।নির্দেশনায় নিয়ন্ত্রক সংস্থা জানিয়েছে, ডিএসইর আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে এক্সচেঞ্জ ডিমিউচুয়ালাইজেশন আইন, ২০১৩-এর ১৪(১) ধারার ক্ষমতাবলে কৌশলগত বিনিয়োগকারীর সঙ্গে চুক্তি স্বাক্ষর ও অন্যান্য কার্যসম্পাদনে তিন মাস সময় দেয়া হয়েছে। ২০১৮ সালের ৮ জুনের মধ্যে প্রতিষ্ঠানটিকে কৌশলগত অংশীদার বিষয়ে সব কাজ সম্পন্ন করতে হবে।

ডিএসইর একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা বণিক বার্তাকে বলেন, ডিএসইর আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে কৌশলগত বিনিয়োগকারী ইস্যুতে নতুন নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। ফ্যাক্স বার্তার মাধ্যমে পাঠানো নির্দেশনায় চলতি বছরের ৮ জুন পর্যন্ত সময় দেয়া হয়েছে। ডিএসইর সুপারিশকৃত চীনা কনসোর্টিয়ামের প্রস্তাবটি অনুমোদন পেলে এ সময়ের মধ্যেই সব প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা যাবে।

২০১৩ সালে স্টক এক্সচেঞ্জে ডিমিউচুয়ালাইজেশন কার্যকর করার পর ২০১৬ সালের মধ্যে কৌশলগত অংশীদারদের কাছে মালিকানার ২৫ শতাংশ শেয়ার বিক্রির বিষয়ে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরের বাধ্যবাধকতা ছিল ডিএসই ও সিএসইর। এ সময়ের মধ্যে উভয় স্টক এক্সচেঞ্জ কৌশলগত বিনিয়োগকারীদের সঙ্গে চুক্তি করতে ব্যর্থ হয়। পরে তাদের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ছয় মাস সময় বাড়িয়ে ২০১৭ সালের ৩০ জুন পর্যন্ত সময় বেঁধে দেয় বিএসইসি। এ সময়ের মধ্যেও কার্যাদি সম্পন্ন করতে ব্যর্থ হওয়ায় পরবর্তীতে আবারো ছয় মাস সময় বাড়ানো হয়। এ সময়ের মধ্যেও না পারায় তৃতীয় দফা সময় বাড়িয়ে চলতি বছরের ৮ মার্চের মধ্যে তা সম্পন্ন করতে নির্দেশ দেয় কমিশন। এরই মধ্যে নিলামসহ যাবতীয় কাজ সম্পন্ন করে সাংহাই ও সেনঝেন কনসোর্টিয়ামকে কৌশলগত অংশীদার হিসেবে বাছাই করে অনুমোদনের জন্য বিএসইতে জমা দেয় ডিএসই। আর পর্যাপ্ত সাড়া না পেয়ে এক বছরের জন্য সময় আবেদন করে সিএসই। বুধবার কমিশনের ৬৩৩তম সভায় সিএসইকে এক বছরের জন্য সময়ও দিয়েছে বিএসইসি।

এর আগে সর্বশেষ গত ৮ ডিসেম্বর বিএসইসির চেয়ারম্যান ড. এম খায়রুল হোসেন স্বাক্ষরিত একটি নির্দেশনা উভয় স্টক এক্সচেঞ্জের ব্যবস্থাপনা পরিচালকদের কাছে পাঠানো হয়। নির্দেশনায় উল্লেখ করা হয়, ডিমিউচুয়ালাইজেশন আইন, ২০১৩-এর ১৪(১) ধারার প্রদত্ত ক্ষমতাবলে কমিশন ঢাকা ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জকে কৌশলগত বিনিয়োগকারীদের সঙ্গে চুক্তি সম্পাদন করে আগামী ৮ মার্চের মধ্যে এ-সংক্রান্ত সব কাজ সম্পন্ন করতে হবে। এছাড়া কৌশলগত বিনিয়োগকারী নির্ধারণের অগ্রগতিসংক্রান্ত প্রতিবেদন কমিশনে দাখিল করার নির্দেশনা দেয়া হয়।

ডিমিউচুয়ালাইজেশন স্কিমের শর্ত অনুযায়ী, ব্লকড হিসেবে থাকা স্টক এক্সচেঞ্জের ৬০ শতাংশ শেয়ার কৌশলগত, প্রাতিষ্ঠানিক ও সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে বিক্রির বাধ্যবাধকতা রয়েছে। এর মধ্যে স্টক এক্সচেঞ্জের মোট শেয়ারের ২৫ শতাংশ (সংরক্ষিত শেয়ার থেকে) কৌশলগত বিনিয়োগকারীর কাছে ও বাকি ৩৫ শতাংশ শেয়ার আইপিও প্রক্রিয়ার মাধ্যমে সাধারণ ও প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীর কাছে বিক্রি করতে হবে। অন্যদিকে ৪০ শতাংশ শেয়ারের মালিক স্টক এক্সচেঞ্জের সদস্য বা ব্রোকারেজ প্রতিষ্ঠান।

এদিকে কৌশলগত অংশীদার বাছাইয়ে ডিএসইর প্রস্তাব পর্যালোচনায় কাজ করছে বিএসইসির আহ্বায়ক কমিটি। চীনা কনসোর্টিয়ামের প্রস্তাবে ডিএসইর প্রস্তাব পর্যালোচনায় বুধবার নতুন করে পাঁচ কার্যদিবস সময় নিয়েছে কমিশনের আহ্বায়ক কমিটি। এর আগে ১০ কার্যদিবস সময় নিয়ে চীনা কনসোর্টিয়ামের প্রস্তাবের দুই ডজনের বেশি শর্তের বিষয়ে ব্যাখ্যা চেয়েছে আহ্বায়ক কমিটি। কমিশনের ব্যাখ্যার জবাবে অর্ধেকের বেশি শর্ত প্রত্যাহারসহ অনেক বিষয় শিথিল করে নতুন প্রস্তাব দিয়েছে চীনা কনসোর্টিয়ামটি।


রাজধানীতে মশার উপদ্রব বহুগুণ বেড়েছে

প্রস্রাবে জ্বালাপোড়া কমাতে করনীয়?


এ বিভাগের আরো খবর...

ডিএসইর ব্লু-চিপ সূচক কমেছে ডিএসইর ব্লু-চিপ সূচক কমেছে
প্রাইম ব্যাংক নগদ লভ্যাংশ পাঠিয়েছে? প্রাইম ব্যাংক নগদ লভ্যাংশ পাঠিয়েছে?
গ্যাসের দাম ১৪৩ শতাংশ বাড়ানোর সুপারিশ গ্যাসের দাম ১৪৩ শতাংশ বাড়ানোর সুপারিশ
আসন্ন ঈদে এটিএম বুথে পর্যাপ্ত টাকা রাখার নির্দেশ আসন্ন ঈদে এটিএম বুথে পর্যাপ্ত টাকা রাখার নির্দেশ
জাপার এমপিদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার হুমকি- অর্থমন্ত্রীর জাপার এমপিদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার হুমকি- অর্থমন্ত্রীর
বাজেটে শেয়ারবাজার সংশ্লিষ্টদের প্রত্যাশার প্রতিফলন নেই বাজেটে শেয়ারবাজার সংশ্লিষ্টদের প্রত্যাশার প্রতিফলন নেই
ইন্টারনেটে সম্পূর্ণ ভ্যাট প্রত্যাহারের দাবি ইন্টারনেটে সম্পূর্ণ ভ্যাট প্রত্যাহারের দাবি
ব্যাংকিং খাতে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টিকারীদের শাস্তির দাবি ব্যাংকিং খাতে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টিকারীদের শাস্তির দাবি
সরকারি চাকুরেদের যে সুবিধা তা আগে চোখেও দেখিনি- অর্থমন্ত্রী সরকারি চাকুরেদের যে সুবিধা তা আগে চোখেও দেখিনি- অর্থমন্ত্রী
দাম কমবে যেসব পণ্যের দাম কমবে যেসব পণ্যের

সর্বাধিক পঠিত

অভিবাসী শিশুদের সমালোচনার মুখোমুখি- ট্রাম্প অভিবাসী শিশুদের সমালোচনার মুখোমুখি- ট্রাম্প
শিগগিরই উ. কোরিয়া সফর করবেন- পম্পেও শিগগিরই উ. কোরিয়া সফর করবেন- পম্পেও
গাজীপুরে প্রধান নির্বাচন কমিশনার গাজীপুরে প্রধান নির্বাচন কমিশনার
মৌলভীবাজারে বিশুদ্ধ পানির জন্য হাহাকার! মৌলভীবাজারে বিশুদ্ধ পানির জন্য হাহাকার!
ময়মনসিংহে মাইক্রোবাস-সিএনজি সংঘর্ষে নিহত ৩ ময়মনসিংহে মাইক্রোবাস-সিএনজি সংঘর্ষে নিহত ৩
দর্শকের কান্না দেখে আমিও কেঁদেছি? দর্শকের কান্না দেখে আমিও কেঁদেছি?
মালয়েশিয়ার রেমিটেন্স প্রেরণে শীর্ষ অবস্থানে বাংলাদেশ মালয়েশিয়ার রেমিটেন্স প্রেরণে শীর্ষ অবস্থানে বাংলাদেশ
প্রচারণায় মুখরিত গাজীপুর নগরী প্রচারণায় মুখরিত গাজীপুর নগরী
আবারও কমলাপুরে রাজধানীমুখী মানুষের ভিড় আবারও কমলাপুরে রাজধানীমুখী মানুষের ভিড়
বছরে ৭ কোটি মানুষ শরণার্থী হচ্ছে-ইইএনএইচসিআর বছরে ৭ কোটি মানুষ শরণার্থী হচ্ছে-ইইএনএইচসিআর
প্রধানমন্ত্রীর বিমানে ত্রুটির মামলার প্রকৌশলীদের জামিন মঞ্জুর
কাঙ্খিত ফল পেতে হলে,ভেজালবিরোধী অভিযান চালু রাখতে হবে?
মাদকযুদ্ধে কেন হারবে বাংলাদেশ?
টাঙ্গাইল-বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়কের দুই ট্রাকের সংঘর্ষে নিহত ৩
ঈদযাত্রা নির্বিঘ্নে মহাসড়কে পদক্ষেপ নিন
হাইকোর্টে ১৮ অতিরিক্ত বিচারক নিয়োগ
বাংলাদেশে দু’কোটি মানুষ আর্সেনিকের ঝুঁকিতে?
প্রধানমন্ত্রীকে ২০৪১সাল পর্যন্ত ভারতের পূর্ণ সমর্থনের কারন কি?
‘মাদক ব্যবসার চেয়েও ক্রসফায়ার বড় অপরাধ?
অসহনীয় যানজট নিরসনে দ্রুত কার্যকর পদক্ষেপ নিন?