ঢাকা, এপ্রিল ২৬, ২০১৮, ১৩ বৈশাখ ১৪২৫
---
---
bbc24news.com
প্রথম পাতা » আমেরিকা » তিন পণবন্দি হত, আত্মঘাতী হামলাকারীও
রবিবার ● ১১ মার্চ ২০১৮, ১৩ বৈশাখ ১৪২৫
Email this News Print Friendly Version

তিন পণবন্দি হত, আত্মঘাতী হামলাকারীও

তিন পণবন্দি হতবিবিসি২৪নিউজ,নিজস্ব প্রতিনিধি:ক্যালিফোর্নিয়া হাইওয়েতে টহলরত পুলিশের কাছে খবর গেল, নাপা ভ্যালির প্রাক্তন সেনা আবাসে এক বন্দুকবাজ হানা দিয়েছে। আবাসেরই একটি ঘরে চার মহিলাকে আটকে রেখেছে সে। খবর পেয়ে এলাকা ঘিরে ফেলে পুলিশ। এর পর দু’তরফের সংঘর্ষ, গুলির লড়াই। পুলিশের দিনভর চেষ্টায় এক মহিলাকে বন্দুকবাজ মুক্তি দিলেও ছাড় পাননি বাকি তিন জন। সারা দিন উৎকণ্ঠা আর অপেক্ষার পরে সন্ধে ছ’টা নাগাদ দরজা ভেঙে ঘরে ঢোকে পুলিশ। তবে বাঁচানো যায়নি কাউকেই। হামলাকারী এবং তিন মহিলার গুলিবিদ্ধ দেহ উদ্ধার করা হয়। অনুমান, তিন জনকে গুলি করে আত্মঘাতী হয়েছে হামলাকারী।প্রাথমিক আতঙ্ক কাটিয়ে তত ক্ষণে জানা গিয়েছে তিন পণবন্দি এবং হামলাকারীর পরিচয়। ক্রিস্টিন লোবার (৪৮), জেনিফার গোলিক (৪২) এব‌ং জেনিফার গঞ্জালেস (২৯) নামে ওই তিন মহিলা একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের কর্মী। তাঁরা মনোবিদ্‌ও। প্রাক্তন সেনাকর্মীদের ক্ষত-বিক্ষত মন সারিয়ে সমাজের মূল স্রোতে ফিরিয়ে আনতে সাহায্য করতেন তাঁরা। বছর ছত্রিশের হামলাকারী, অ্যালবার্ট উং তাঁদেরই প্রাক্তন রোগী। প্রাক্তন সেনাকর্মী। আবাস থেকে কয়েক দিন আগেই ছাড়া পেয়েছিল সে।নাপা ভ্যালির এই ঠিকানা আমেরিকার সবচেয়ে বড় প্রাক্তন সেনা আবাস। সবুজঘেরা ওই বাড়িতে মূলত আফগানিস্তান আর ইরাক ফেরত সেনাকর্মীদের মানসিক চিকিৎসা করা হয়। আবাসে কর্মরত স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের অন্য কর্মীদের মুখে জানা গেল পুরো ঘটনাটা। সে দিন সহকর্মী এক দম্পতির জন্য বিদায়ী অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছিলেন অন্য কর্মী-বন্ধুরা। আনা হয়েছিল কেক, মিষ্টি। হাসি, ঠাট্টায় শুক্রবারের সকালটা ফুরফুরে মেজাজেই শুরু হয়েছিল। আচমকা বন্দুক হাতে এক ব্যক্তির প্রবেশ। যদিও মুখ চেনা। ‘‘মাত্র কয়েক দিন আগেই ছুটি পাওয়া অ্যালবার্টকে দেখেও তেমন কিছু মনে হয়নি বাকিদের’’, বলছিলেন ল্যারি কামের। ল্যারির স্ত্রী ডেভেরক্স স্মিথ ওই স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনেরই কর্মী। তাঁর চোখে মুখে তখনও আতঙ্কের ছাপ স্পষ্ট। জানালেন, পর পর গুলির আওয়াজে মুহূর্তে বদলে গেল প্রাক্তন সেনা আবাসের পরিবেশ। কোনও রকমে পালিয়ে বাঁচেন স্মিথ।তবে অ্যালবার্ট কেন হামলা চালাল, কেনই বা ওই মহিলাদের পণবন্দি করল, কিছুই জানা যায়নি। পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে। যুদ্ধ-ফেরত ওই সেনার মানসিক সুস্থতা নিয়েও প্রশ্ন উঠছে। ক্যালিফোর্নিয়ার গভর্নর জেরি ব্রাউন শনিবার জানিয়েছেন, ‘‘যাঁরা দেশ ও দেশবাসীর সেবার নিজেদের নিযুক্ত করেছিলেন, তেমন তিন সাহসিনীকে হারালাম আমরা।


পর্নতারকা লিওনের বায়োপিক

সব বাধা অতিক্রম করার প্রত্যাশা


এ বিভাগের আরো খবর...

তারেক ব্রিটেনের আইন মোতাবেক বসবাস করছেন- রিজভী তারেক ব্রিটেনের আইন মোতাবেক বসবাস করছেন- রিজভী
এই মাসে প্রজ্ঞাপন জারি না হলে ফের আন্দোলন! এই মাসে প্রজ্ঞাপন জারি না হলে ফের আন্দোলন!
ইসির সঙ্গে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর বৈঠক আজ ইসির সঙ্গে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর বৈঠক আজ
শব্দদূষণে বধির হওয়ার মাত্রা বেড়েই চলছে শব্দদূষণে বধির হওয়ার মাত্রা বেড়েই চলছে
পরমাণু সমঝোতা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ- গুতেরেস পরমাণু সমঝোতা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ- গুতেরেস
চীনে ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় গ্রেনেড নিক্ষেপ প্রতিযোগিতা! চীনে ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় গ্রেনেড নিক্ষেপ প্রতিযোগিতা!
তারেকের পাসপোর্ট পাওয়ার কোনো সুযোগ নেই তারেকের পাসপোর্ট পাওয়ার কোনো সুযোগ নেই
শীঘ্রই রাখাইন পরিদর্শনে যাচ্ছে জাতিসংঘের প্রতিনিধি দল শীঘ্রই রাখাইন পরিদর্শনে যাচ্ছে জাতিসংঘের প্রতিনিধি দল
রোহিঙ্গাদের জন্য ৪৪ লাখ টন ত্রাণ, ৪৫৯ কোটি টাকা অর্থ সহায়তা! রোহিঙ্গাদের জন্য ৪৪ লাখ টন ত্রাণ, ৪৫৯ কোটি টাকা অর্থ সহায়তা!
এশিয়ায় সবচেয়ে পিছিয়ে বাংলাদেশ এশিয়ায় সবচেয়ে পিছিয়ে বাংলাদেশ

সর্বাধিক পঠিত

‘পটাকা’ অর্থ শিশু শিক্ষায় দান করবেন নুসরাত ফারিয়া! ‘পটাকা’ অর্থ শিশু শিক্ষায় দান করবেন নুসরাত ফারিয়া!
তারেক ব্রিটেনের আইন মোতাবেক বসবাস করছেন- রিজভী তারেক ব্রিটেনের আইন মোতাবেক বসবাস করছেন- রিজভী
এই মাসে প্রজ্ঞাপন জারি না হলে ফের আন্দোলন! এই মাসে প্রজ্ঞাপন জারি না হলে ফের আন্দোলন!
চতুর্থ কার্যদিবসে ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতায় ফিরেছে সূচক চতুর্থ কার্যদিবসে ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতায় ফিরেছে সূচক
ঘন ও লম্বা চুল করতে রসুনের জুড়ি মেলা ভার ঘন ও লম্বা চুল করতে রসুনের জুড়ি মেলা ভার
বাংলাদেশ কম্বোডিয়াকে হারিয়ে ২০-০ গোলে বড় জয়! বাংলাদেশ কম্বোডিয়াকে হারিয়ে ২০-০ গোলে বড় জয়!
ইসির সঙ্গে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর বৈঠক আজ ইসির সঙ্গে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর বৈঠক আজ
ধোনির জয়,কোহলির বেঙ্গালুরুর হার! ধোনির জয়,কোহলির বেঙ্গালুরুর হার!
শব্দদূষণে বধির হওয়ার মাত্রা বেড়েই চলছে শব্দদূষণে বধির হওয়ার মাত্রা বেড়েই চলছে
সঞ্জয়ের বায়োপিকের নাম ‘দত্ত’ থেকে ‘সঞ্জু’ কেন? সঞ্জয়ের বায়োপিকের নাম ‘দত্ত’ থেকে ‘সঞ্জু’ কেন?
অবর্ণনীয় দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে রাজধানীবাসীকে
বিড়ি শিল্পে তামাকের ভয়াবহতা আর শিশুশ্রম বাড়ছে
প্লাস্টিক বিপর্যয়ের মুখে বাংলাদেশ, খাবারে ঢুকে পড়ছে প্লাস্টিক !
শিক্ষাকে কখনো পণ্য হিসেবে বিবেচনা করা উচিত নয়
রেল যোগাযোগ ঝুঁকিমুক্ত করার পদক্ষেপ নিন
এডিবির পর্যবেক্ষণ বলছে-বাংলাদেশের অর্থনীতির ভিত্তি সুদৃঢ় করতে হবে
কাশ্মীরের ধর্ষণ ও হত্যা দিল্লিতে পৌঁছায়িন কেন?
রোহিঙ্গা পাঁচ সদস্যের একটি পরিবারকে ফিরিয়ে নিয়েছে: মিয়ানমার
জলবায়ু পরিবর্তনে বন্যা এবং সাইক্লোনের প্রবণতা বেড়ে যাবে
কোটা আন্দোলনকারীদের জয় হলেও মেধাবীরা কতটুকু সুযোগ পাবে?