ঢাকা, জুন ২০, ২০১৮, ৬ আষাঢ় ১৪২৫
---
---
bbc24news.com
প্রথম পাতা » অর্থ–শেয়ারবাজার » নিম্নমুখী বাজারেও কেনাবেচা বেড়েছে
মঙ্গলবার ● ১৩ মার্চ ২০১৮, ৬ আষাঢ় ১৪২৫
Email this News Print Friendly Version

নিম্নমুখী বাজারেও কেনাবেচা বেড়েছে

নিজস্ববিবিসি২৪নিউজ,নিজস্ব প্রতিনিধি:দেশের পুঁজিবাজার দরপতনের বৃত্তে আটকে গেছে। বিক্রয়চাপ ত্বরান্বিত হওয়ায় গতকাল ১ দশমিক ১৭ শতাংশ কমে ৫ হাজার ৭০৫ পয়েন্টে নেমে এসেছে ঢাকার শেয়ারবাজারের প্রধান সূচক ডিএসইএক্স, যা ২০১৭ সালের ৪ জুলাইয়ের পর সর্বনিম্ন। এদিকে নিম্নমুখী বাজারেও গতকাল কেনাবেচা বেড়েছে। অর্থবাজারের টানাপড়েনই শেয়ারবাজারে বিক্রয়াদেশ বাড়াচ্ছে বলে মনে করছেন বাজারসংশ্লিষ্টরা।বিভিন্ন ক্যাটাগরির বিনিয়োগকারী ও বাজারসংশ্লিষ্ট অন্যান্য পক্ষের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, অর্থবাজারের অপ্রত্যাশিত বাস্তবতায় অনেক প্রাতিষ্ঠানিক তহবিলে টান পড়েছে। তাদের পোর্টফোলিও থেকেও শেয়ারের বিক্রয়াদেশ বেড়েছে। এছাড়া নিম্নমুখী বাজারে পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণের জন্যও অনেক বিনিয়োগকারী নতুন করে ক্রয়াদেশ বাড়াতে দ্বিধা করছেন। এসবের সার্বিক প্রভাব দেখা যাচ্ছে সূচক ও লেনদেনে। তবে এ দরপতনে অনেক ভালো মৌলভিত্তির শেয়ারের দামও কমছে। লভ্যাংশ গ্রহণের প্রস্তুতি নেয়া বিনিয়োগকারীরা এসব শেয়ারে ক্রয়াদেশ বাড়াচ্ছেন বলে জানা গেছে। তবে সূচক পতন ঠেকাতে তা যথেষ্ট হচ্ছে না।

আগের দিনের ধারাবাহিকতায় গতকাল সপ্তাহের দ্বিতীয় কার্যদিবসেও দিনের শুরু থেকেই সূচক ও শেয়ারদরে নিম্নমুখিতা স্পষ্ট ছিল। বাজার পর্যবেক্ষণে দেখা যায়, দিন শেষে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) ব্রড ইনডেক্স ডিএসইএক্স ৬৭ দশমিক ৭৯ পয়েন্ট বা ১ দশমিক ১৭ শতাংশ কমে দাঁড়ায় ৫ হাজার ৭০৫ দশমিক ৫৭ পয়েন্টে। ১৮ দশমিক ৭৩ পয়েন্ট বা দশমিক ৮৮ শতাংশ কমে ২ হাজার ১০৭ দশমিক ৪৫ পয়েন্টে নেমেছে স্টক এক্সচেঞ্জটির ব্লু-চিপ সূচক ডিএস ৩০। ১৩ দশমিক শূন্য ৩ পয়েন্ট বা দশমিক ৯৬ শতাংশ কমে ১ হাজার ৩৫০ পয়েন্টে অবস্থান করছে শরিয়াহ সূচক ডিএসইএস।

সারা দিনে ডিএসইতে ৮ কোটি ১৬ লাখ ৬৬ হাজার ১৮১টি শেয়ার, করপোরেট বন্ড ও মিউচুয়াল ফান্ড ইউনিট হাতবদল হয়, যার বাজারদর ছিল ২৯৮ কোটি ২৪ লাখ ৮১ হাজার টাকা। আগের কার্যদিবসে ডিএসইতে লেনদেন ২৩৬ কোটি ৭৩ লাখ ৮১ হাজার টাকায় নেমে এসেছিল, যা ছিল প্রায় ২০ মাসের মধ্যে সর্বনিম্ন। গতকাল লেনদেনকৃত সিকিউরিটিজের মধ্যে দিন শেষে দাম বেড়েছে ৩০টির, কমেছে ২৭৩টির ও অপরিবর্তিত ছিল ৩০টির বাজারদর।

দেশের আরেক শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) ব্রড ইনডেক্স সিএসসিএক্স ১৩৬ দশমিক ৬৩ পয়েন্ট কমে ১০ হাজার ৬৫৪ দশমিক ৩৭ পয়েন্টে নেমে যায়। ১৫৯ দশমিক ৩৩ পয়েন্ট কমে ১৬ হাজার ৩১ দশমিক ১৪ পয়েন্টে অবস্থান করছে স্টক এক্সচেঞ্জটির নির্বাচিত কোম্পানিগুলোর সূচক সিএসই ৩০।


ঝুঁকিপূর্ণ ভবনগুলোর ব্যাপারে কেন এ উদাসীনতা?

পাইলট আবিদ সুলতান চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন


এ বিভাগের আরো খবর...

ডিএসইর ব্লু-চিপ সূচক কমেছে ডিএসইর ব্লু-চিপ সূচক কমেছে
প্রাইম ব্যাংক নগদ লভ্যাংশ পাঠিয়েছে? প্রাইম ব্যাংক নগদ লভ্যাংশ পাঠিয়েছে?
গ্যাসের দাম ১৪৩ শতাংশ বাড়ানোর সুপারিশ গ্যাসের দাম ১৪৩ শতাংশ বাড়ানোর সুপারিশ
আসন্ন ঈদে এটিএম বুথে পর্যাপ্ত টাকা রাখার নির্দেশ আসন্ন ঈদে এটিএম বুথে পর্যাপ্ত টাকা রাখার নির্দেশ
জাপার এমপিদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার হুমকি- অর্থমন্ত্রীর জাপার এমপিদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার হুমকি- অর্থমন্ত্রীর
বাজেটে শেয়ারবাজার সংশ্লিষ্টদের প্রত্যাশার প্রতিফলন নেই বাজেটে শেয়ারবাজার সংশ্লিষ্টদের প্রত্যাশার প্রতিফলন নেই
ইন্টারনেটে সম্পূর্ণ ভ্যাট প্রত্যাহারের দাবি ইন্টারনেটে সম্পূর্ণ ভ্যাট প্রত্যাহারের দাবি
ব্যাংকিং খাতে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টিকারীদের শাস্তির দাবি ব্যাংকিং খাতে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টিকারীদের শাস্তির দাবি
সরকারি চাকুরেদের যে সুবিধা তা আগে চোখেও দেখিনি- অর্থমন্ত্রী সরকারি চাকুরেদের যে সুবিধা তা আগে চোখেও দেখিনি- অর্থমন্ত্রী
দাম কমবে যেসব পণ্যের দাম কমবে যেসব পণ্যের

সর্বাধিক পঠিত

অভিবাসী শিশুদের সমালোচনার মুখোমুখি- ট্রাম্প অভিবাসী শিশুদের সমালোচনার মুখোমুখি- ট্রাম্প
শিগগিরই উ. কোরিয়া সফর করবেন- পম্পেও শিগগিরই উ. কোরিয়া সফর করবেন- পম্পেও
গাজীপুরে প্রধান নির্বাচন কমিশনার গাজীপুরে প্রধান নির্বাচন কমিশনার
মৌলভীবাজারে বিশুদ্ধ পানির জন্য হাহাকার! মৌলভীবাজারে বিশুদ্ধ পানির জন্য হাহাকার!
ময়মনসিংহে মাইক্রোবাস-সিএনজি সংঘর্ষে নিহত ৩ ময়মনসিংহে মাইক্রোবাস-সিএনজি সংঘর্ষে নিহত ৩
দর্শকের কান্না দেখে আমিও কেঁদেছি? দর্শকের কান্না দেখে আমিও কেঁদেছি?
মালয়েশিয়ার রেমিটেন্স প্রেরণে শীর্ষ অবস্থানে বাংলাদেশ মালয়েশিয়ার রেমিটেন্স প্রেরণে শীর্ষ অবস্থানে বাংলাদেশ
প্রচারণায় মুখরিত গাজীপুর নগরী প্রচারণায় মুখরিত গাজীপুর নগরী
আবারও কমলাপুরে রাজধানীমুখী মানুষের ভিড় আবারও কমলাপুরে রাজধানীমুখী মানুষের ভিড়
বছরে ৭ কোটি মানুষ শরণার্থী হচ্ছে-ইইএনএইচসিআর বছরে ৭ কোটি মানুষ শরণার্থী হচ্ছে-ইইএনএইচসিআর
প্রধানমন্ত্রীর বিমানে ত্রুটির মামলার প্রকৌশলীদের জামিন মঞ্জুর
কাঙ্খিত ফল পেতে হলে,ভেজালবিরোধী অভিযান চালু রাখতে হবে?
মাদকযুদ্ধে কেন হারবে বাংলাদেশ?
টাঙ্গাইল-বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়কের দুই ট্রাকের সংঘর্ষে নিহত ৩
ঈদযাত্রা নির্বিঘ্নে মহাসড়কে পদক্ষেপ নিন
হাইকোর্টে ১৮ অতিরিক্ত বিচারক নিয়োগ
বাংলাদেশে দু’কোটি মানুষ আর্সেনিকের ঝুঁকিতে?
প্রধানমন্ত্রীকে ২০৪১সাল পর্যন্ত ভারতের পূর্ণ সমর্থনের কারন কি?
‘মাদক ব্যবসার চেয়েও ক্রসফায়ার বড় অপরাধ?
অসহনীয় যানজট নিরসনে দ্রুত কার্যকর পদক্ষেপ নিন?