ঢাকা, অক্টোবর ২০, ২০১৮, ৫ কার্তিক ১৪২৫
---
bbc24news.com
প্রথম পাতা » সম্পাদকীয় » অবর্ণনীয় দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে রাজধানীবাসীকে
মঙ্গলবার ● ২৪ এপ্রিল ২০১৮, ৫ কার্তিক ১৪২৫
Email this News Print Friendly Version

অবর্ণনীয় দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে রাজধানীবাসীকে

---আবদুল মালেক শিপন:রাজধানীবাসীকে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে প্রকল্পের কাজ থাকায়। দুর্ভোগ অনেকটাই লাঘব করা সম্ভব হতো, যদি সময়মতো প্রকল্পের কাজ শেষ করা যেত। কিন্তু ধীরগতিতে প্রকল্প চলবে এবং বারবার সময় বাড়ানো হবে।মেট্রোরেলসহ রাজধানীজুড়ে বিভিন্ন অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্পের কাজ চলছে। এসব কাজের অংশ হিসেবে রাস্তাঘাট খোঁড়াখুঁড়ি, কাটা-ছেঁড়ায় অবর্ণনীয় দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে রাজধানীবাসীকে। এ এটা যেন অলিখিত নিয়ম হয়ে দাঁড়িয়েছে। অন্যদিকে আর এক মাস পরই বর্ষা মৌসুম শুরু হতে যাচ্ছে। এর মধ্যে পরিস্থিতির উন্নতি ঘটাতে না পারলে রাজধানীবাসীকে যে এ সময় চরম দুর্ভোগের মধ্যে পড়তে হবে, তা সহজেই অনুমেয়।

বছরজুড়েই রাজধানীতে বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজ চলে, যার বেশির ভাগের জন্য রাস্তা খোঁড়াখুঁড়ির প্রয়োজন হয়। পানি সরবরাহ বা নিষ্কাশন থেকে শুরু করে গ্যাস সরবরাহ, টেলিফোন সেবা, তথ্যপ্রযুক্তি সেবা— সবকিছুর জন্যই রাস্তা খুঁড়তে হয়। উড়াল সেতুর জন্য যেমন রাস্তা খোঁড়াখুঁড়ি করতে হয়েছে, মেট্রোরেলের ক্ষেত্রেও তা-ই। এসব কাজের ফলে পাড়া-মহল্লার রাস্তাঘাটে ভয়াবহ পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়। আবার দেখা যায়, এক সংস্থার কাজ শেষে কিছুদিন যেতেই আরেক সংস্থা কাজে নেমে পড়ে।

আর এসব কাজ সময়মতো শেষ করতে না পারায় নগরবাসীর দুর্ভোগের ইতি ঘটে না। উপরন্তু, বছরজুড়ে কাজ চললেও বর্ষার সময় রাজধানীর বিভিন্ন এলাকার রাস্তা খোঁড়াখুঁড়ি যেন বেড়ে যায়। অন্যদিকে বেশির ভাগ সময় দেখা যায়, যেসব সংস্থা নিজেদের কাজে রাস্তা খোঁড়াখুঁড়ি করে, তারা সেসব স্থান তেমনই রেখে যায় বা দায়সারাভাবে মাটি চাপা দেয়। এগুলো ঠিক হতে লাগে দীর্ঘ সময়। এমন কাজের ফলে নগরবাসীকে যে দুর্ভোগের মধ্য দিয়ে যেতে হয়, সংশ্লিষ্টরা কি তা অনুধাবন করেন না? প্রতি বছর এমন কাজের পুনরাবৃত্তি দেখে মনে হয়, তারা জনগণের এ দুর্ভোগ বিবেচনায় নেন না।

রাস্তাঘাটের দুরবস্থার কারণে নগরবাসীকে শুধু চলাচলে দুর্ভোগ পোহাতে হয় না, শারীরিক ও আর্থিক ক্ষতির মধ্য দিয়েও যেতে হয়। জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়ে বিভিন্ন রোগবালাইয়ের উপদ্রব ঘটে। ভাঙাচোরা ও খানাখন্দময় রাস্তাঘাটে চলাচল করতে গিয়ে নানা দুর্ঘটনায় পড়তে হয় মানুষকে। অন্যদিকে যানজট মারাত্মক আকার ধারণ করে নষ্ট হয় মানুষের মূল্যবান কর্মঘণ্টা। প্রতি বছর উন্নয়নের নামে বিপুল পরিমাণ অর্থ ব্যয় করা হয়, কিন্তু নগরবাসীর দুর্ভোগ কমে না। এ থেকে কি নগরবাসীর মুক্তি নেই?

নগরবাসীর দুর্ভোগ ও ক্ষতি লাঘবে জরুরি ভিত্তিতে উদ্যোগ নেয়া উচিত। আসন্ন বর্ষা মৌসুমে দুর্ভোগ কমাতে চলমান প্রকল্পগুলোর কাজ দ্রুত শেষ করতে হবে। আপাতত রাস্তা খোঁড়াখুঁড়ির কাজ বন্ধ রাখা যেতে পারে, গর্ত ও খানাখন্দময় রাস্তাগুলো জরুরি ভিত্তিতে মেরামত করতে হবে। অন্যদিকে পানি নিষ্কাশনের জন্য নালা-নর্দমা পরিষ্কার রাখার ওপর জোর দিতে হবে।

তবে সমস্যা সমাধানে আমাদের দীর্ঘমেয়াদি ও টেকসই পরিকল্পনা গ্রহণ করতে হবে। এজন্য সবার আগে বিভিন্ন সংস্থা ও কর্তৃপক্ষের কাজের মধ্যে যে সমন্বয়হীনতা রয়েছে, তা দূর করতে হবে। পরিকল্পনা নিতে হবে সম্মিলিতভাবে।


হাওড়ের ফলন ১০ শতাংশ নষ্ট হওয়ার শঙ্কা

কানাডায় গাড়ির নিচে চাপা পড়ে নিহত ১০ আহত ১৫ জন!


এ বিভাগের আরো খবর...

নদীশাসনের দুর্বলতা বিঘ্নিত হচ্ছে নৌপথে চলাচল নদীশাসনের দুর্বলতা বিঘ্নিত হচ্ছে নৌপথে চলাচল
দৃষ্টিহীনদের জন্য পুজো কতটা আনন্দদায়ক? দৃষ্টিহীনদের জন্য পুজো কতটা আনন্দদায়ক?
অবৈধ হাসপাতালগুলো আদালতের নির্দেশ মানছে না কেন? অবৈধ হাসপাতালগুলো আদালতের নির্দেশ মানছে না কেন?
শিল্পে গ্যাস সংযোগ না দেওয়া, আর্থিক ক্ষতির মুখে-সরকার শিল্পে গ্যাস সংযোগ না দেওয়া, আর্থিক ক্ষতির মুখে-সরকার
গুদামের খাদ্যদ্রব্য পাচারে-সক্রিয় চোর সিন্ডিকেট গুদামের খাদ্যদ্রব্য পাচারে-সক্রিয় চোর সিন্ডিকেট
প্যারিস জলবায়ু চুক্তি ৩০০ পৃষ্ঠার খসড়া অনুমোদন করেছে-ব্যাংকক প্যারিস জলবায়ু চুক্তি ৩০০ পৃষ্ঠার খসড়া অনুমোদন করেছে-ব্যাংকক
সড়ক শৃঙ্খলা-মূল সমস্যাটা রাজনীতিতেই: কাদের সড়ক শৃঙ্খলা-মূল সমস্যাটা রাজনীতিতেই: কাদের
নিম্নমানের ওষুধ মনিটরিংয়ে শক্তিশালী পদক্ষেপ নিন? নিম্নমানের ওষুধ মনিটরিংয়ে শক্তিশালী পদক্ষেপ নিন?
বিশ্বের ভয়াবহ আবহাওয়া নিয়ে প্রযুক্তিগত আলোচনা চলছে বিশ্বের ভয়াবহ আবহাওয়া নিয়ে প্রযুক্তিগত আলোচনা চলছে
রোহিঙ্গা প্রশ্নে চীন-রাশিয়াকে-জাতিসংঘের কড়া হুুশিয়ারি! রোহিঙ্গা প্রশ্নে চীন-রাশিয়াকে-জাতিসংঘের কড়া হুুশিয়ারি!

সর্বাধিক পঠিত

যৌথ মহড়া বাতিল করল দ. কোরিয়া ও আমেরিকা যৌথ মহড়া বাতিল করল দ. কোরিয়া ও আমেরিকা
ইসরাইলি সেনাদের গুলিতে ১৩০ ফিলিস্তিনি আহত ইসরাইলি সেনাদের গুলিতে ১৩০ ফিলিস্তিনি আহত
ক্ষমতায় আসলে ৭ দিনের মধ্যে ডিজিটাল আইন বাতিল- মওদুদ ক্ষমতায় আসলে ৭ দিনের মধ্যে ডিজিটাল আইন বাতিল- মওদুদ
ইউরোপে শতকরা ৫০ ভাগ লেখক আক্রমণের শিকার ইউরোপে শতকরা ৫০ ভাগ লেখক আক্রমণের শিকার
আমাদের কী দিয়ে গেলেন কিংবদন্তী আইয়ুব বাচ্চু? আমাদের কী দিয়ে গেলেন কিংবদন্তী আইয়ুব বাচ্চু?
নির্বাচন বানচালের চক্রান্ত বাদ দিয়ে নির্বাচনের আসুন- ইনু নির্বাচন বানচালের চক্রান্ত বাদ দিয়ে নির্বাচনের আসুন- ইনু
অমিতাভ বচ্চন ও আমির খানের ভাসমাল্লে ঝড় তুলেছে ইউটিউবে অমিতাভ বচ্চন ও আমির খানের ভাসমাল্লে ঝড় তুলেছে ইউটিউবে
আইয়ুব বাচ্চুকে শেষবারের মতো দেখতে মাদারবাড়িতে হাজার হাজার ভক্ত-অনুরাগী আইয়ুব বাচ্চুকে শেষবারের মতো দেখতে মাদারবাড়িতে হাজার হাজার ভক্ত-অনুরাগী
দেশবাসীর কাছে দোয়া চাইলেন আইয়ুব বাচ্চুর ছেলে দেশবাসীর কাছে দোয়া চাইলেন আইয়ুব বাচ্চুর ছেলে
ফ্র্যাঞ্চাইজিটি ছেড়ে দিতে পারে মোস্তাফিজকে ফ্র্যাঞ্চাইজিটি ছেড়ে দিতে পারে মোস্তাফিজকে
নদীশাসনের দুর্বলতা বিঘ্নিত হচ্ছে নৌপথে চলাচল
শিল্পে গ্যাস সংযোগ না দেওয়া, আর্থিক ক্ষতির মুখে-সরকার
গুদামের খাদ্যদ্রব্য পাচারে-সক্রিয় চোর সিন্ডিকেট
প্যারিস জলবায়ু চুক্তি ৩০০ পৃষ্ঠার খসড়া অনুমোদন করেছে-ব্যাংকক
সড়ক শৃঙ্খলা-মূল সমস্যাটা রাজনীতিতেই: কাদের
বিশ্বের ভয়াবহ আবহাওয়া নিয়ে প্রযুক্তিগত আলোচনা চলছে
রোহিঙ্গা প্রশ্নে চীন-রাশিয়াকে-জাতিসংঘের কড়া হুুশিয়ারি!
খালেদা জিয়ার জামিন বহাল
বিমসটেক শীর্ষ সম্মেলনে নেপালে প্রধানমন্ত্রী
আওয়ামী লীগের জন্য যা পেয়েছি তা ভয়ংকর!