ঢাকা, মে ২৩, ২০১৮, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫
---
---
bbc24news.com
প্রথম পাতা » অর্থ–শেয়ারবাজার » বাজেটে শিক্ষা ও যোগাযোগে বেশি গুরুত্ব দেয়া উচিত!
মঙ্গলবার ● ১৫ মে ২০১৮, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫
Email this News Print Friendly Version

বাজেটে শিক্ষা ও যোগাযোগে বেশি গুরুত্ব দেয়া উচিত!

---বিবিসি২৪নিউজ,স্পোর্টস ডেস্ক:কয়েক বছর ধরে ঘোষিত উচ্চ প্রবৃদ্ধির বাজেটের আকার দেশের জনসংখ্যা ও মোট অভ্যন্তরীণ উৎপাদন (জিডিপি) অনুপাতেই হচ্ছে। তবে উন্নয়ন কর্মসূচি ও অন্যান্য খাতে বাজেট ব্যয়ের গুণগত মানে পরিবর্তন আনতে হবে। পাশাপাশি উন্নয়ন প্রকল্পে সময়ক্ষেপণ বন্ধ ও রাজস্ব আইনকে বিনিয়োগবান্ধব করা দরকার।

গতকাল রাজধানীর সিএ ভবনে ‘কেমন জাতীয় বাজেট চাই’ শীর্ষক এক গোলটেবিল বৈঠকে এসব কথা বলেন দেশের প্রথিতযশা অর্থনীতিবিদ, ব্যবসায়ী ও পেশাদার হিসাববিদরা। দি ইনস্টিটিউট অব চার্টার্ড অ্যাকাউন্ট্যান্টস অব বাংলাদেশ (আইসিএবি) ও দৈনিক প্রথম আলো যৌথভাবে এ বৈঠকের আয়োজন করে। আইসিএবির প্রেসিডেন্ট দেওয়ান নুরুল ইসলামের সভাপতিত্বে বৈঠকে প্রধান অতিথি ছিলেন পরিকল্পনা কমিশনের সাধারণ অর্থনীতি বিভাগের জ্যেষ্ঠ সচিব ড. শামসুল আলম। সঞ্চালনা করেন আইসিএবির কাউন্সিল সদস্য হুমায়ুন কবির।

ড. শামসুল আলম বলেন, সবাই বাজেটকে নির্বাচনমুখী ও উচ্চাভিলাষী বলে আখ্যা দিচ্ছে। আমি এর বিপক্ষে। আমাদের দেশের জিডিপি ও জনসংখ্যার অনুপাতে বাজেট আরো বড় হওয়া উচিত। তবে বাজেট ব্যয়ের গুণগত মান নিয়ে প্রশ্ন রয়েছে। উন্নয়ন প্রকল্পে সময়ক্ষেপণের ফলে ব্যয় অনেক বেড়ে যাচ্ছে। কাজের মান বাড়াতে হবে। জনগণকে স্বস্তি দিতে মুদ্রাস্ফীতি নিয়ন্ত্রণের মধ্যে রাখতে হবে। আমাদের লক্ষ্য হলো, সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচিতে বরাদ্দ বাড়িয়ে এবার জনকল্যাণমুখী বাজেট প্রণয়ন করা। সব উন্নয়ন ব্যয়ে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা, ব্যয় কমিয়ে রাজস্ব আহরণ বৃদ্ধি, সময়মতো এডিপি সম্পাদন ও পল্লী অর্থনীতিকে উজ্জীবিত করার লক্ষ্য নিয়েই এবার বাজেট প্রণয়ন হবে।

আগামী বাজেটে শিক্ষা ও যোগাযোগে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দেয়া উচিত বলে মন্তব্য করেন সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা ও গণসাক্ষরতা অভিযানের নির্বাহী পরিচালক রাশেদা কে চৌধুরী। তিনি বলেন, ২০৩০ সাল নাগাদ টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের জন্য মানবসম্পদ উন্নয়নে বিশেষ গুরুত্ব দিতে হবে। এজন্য শিক্ষার গুণগত মান বৃদ্ধিতে বরাদ্দ রাখতে হবে। দুর্নীতির কারণে জিডিপির ২ শতাংশ ও নারীর প্রতি সহিংসতার কারণে আরো ২ শতাংশ মাশুল দিতে হচ্ছে জানিয়ে এগুলো বন্ধ করার প্রস্তাব করেন তিনি।

সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগের (সিপিডি) সম্মানীয় ফেলো ড. মুস্তাফিজুর রহমান বলেন, সম্পদের সুষম বণ্টন নিশ্চিত করতে হবে। মাথাপিছু আয় বাড়াতে ও ধনী-দরিদ্রের ব্যবধান কমাতে হবে। তবেই দেশে প্রকৃত উন্নয়ন সম্ভব হবে। আগামী বাজেটে এ বিষয়ে দিকনির্দেশনা চান তিনি। অনলাইনে ভ্যাট আহরণের ওপর গুরুত্ব আরোপ করে তিনি বলেন, আদায়কৃত ভ্যাট সরকারের কোষাগারে সঠিকভাবে জমা হচ্ছে কিনা, তা আমরা জানি না। নতুন ভ্যাট আইনের জটিলতা নিরসন করে সবকিছু অনলাইন পদ্ধতিতে নিয়ে আসতে হবে।

কাগজের ওপর শুল্ক প্রত্যাহারের প্রস্তাব করে প্রথম আলোর সহযোগী সম্পাদক আব্দুল কাইয়ুম বলেন, মুদ্রণ শিল্প বিকাশের জন্য কাগজের ওপর থেকে শুল্ক কমাতে হবে। অনলাইনে বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে দেশের অর্থ বাইরে চলে যাচ্ছে। ফলে সরকার প্রচুর পরিমাণ রাজস্ব হারাচ্ছে। এটি রোধে বাজেটে নির্দেশনা থাকা উচিত বলে মনে করেন তিনি। বিজিএমইএ সভাপতি মো. সিদ্দিকুর রহমান বলেন, আমাদের করপোরেট করসহ বিভিন্ন বিষয়ে ছাড় দেয়া হয়েছে। তবে সংশ্লিষ্ট অন্য শিল্পে ভ্যাট আরোপের ফলে তৈরি পোশাক শিল্পেও তার প্রভাব পড়ে।

অর্থবছর পরিবর্তনের প্রস্তাব দিয়ে এনবিআরের সাবেক চেয়ারম্যান ড. আব্দুল মজিদ বলেন, আমাদের দেশে অর্থবছরের শুরু ও শেষ হওয়ার সময়ের কারণে উন্নয়ন প্রকল্প সঠিকভাবে বাস্তবায়ন হয় না। অর্থবছরের শেষ তিন মাসে বৃষ্টির কারণে কাজ সঠিকভাবে এগোয় না। অথচ এ সময়ই বাজেট ব্যয় বেশি হয়। উন্নয়নকাজে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা এবং জনগণের কথা চিন্তা করে সব সংসদীয় কমিটিতে বাজেট নিয়ে আলোচনা করা উচিত বলে মনে করেন তিনি।

করপোরেট করহার কমানো ও স্টক এক্সচেঞ্জের জন্য পাঁচ বছর শতভাগ কর অবকাশ সুবিধা দেয়ার প্রস্তাব করেন বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের সাবেক চেয়ারম্যান ফারুক আহমেদ সিদ্দিকী। তিনি বলেন, অর্থনীতির অন্য সূচকের সঙ্গে পুঁজিবাজার এগোতে পারেনি। আগামী বাজেটে পুঁজিবাজারের জন্য বিশেষ স্কিল ঘোষণা করা দরকার। বাংলাদেশ মার্চেন্ট ব্যাংকার্স অ্যাসোসিয়েশনের সহসভাপতি আহসান উল্লাহ বলেন, পুঁজিবাজারে দীর্ঘমেয়াদি বিনিয়োগের জন্য একটি প্রণোদনা দরকার হয়। এক্ষেত্রে পুনর্বিনিয়োগের আয়করে বিশেষ ছাড় দিলে শেয়ারবাজার ঘুরে দাঁড়াবে। বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ডেভেলপমেন্ট স্টাডিজের সিনিয়র রিসার্চ ফেলো ড. নাজনিন আহমেদ বাজেটে নারী উদ্যোক্তাদের জন্য বিশেষ বরাদ্দ বাড়ানোর দাবি করেন।

বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেসের (বেসিস) সভাপতি সৈয়দ আলমাস কবির বলেন, তথ্যপ্রযুক্তি খাতের কোম্পানিগুলোকে ২০২৪ সাল পর্যন্ত কর অবকাশ সুবিধা দেয়া হয়েছে। তবে প্রতি বছর রিটার্ন জমা দেয়া ও আবেদন প্রক্রিয়ার জটিলতার কারণে অনেকেই এ সুবিধা পায় না। তিনি এ ধরনের হয়রানি দূর করার প্রস্তাব করেন।

সভাপতির বক্তব্যে আইসিএবির প্রেসিডেন্ট দেওয়ান নূরুল ইসলাম বলেন, আমাদের জিডিপির প্রবৃদ্ধির হার আরো বাড়াতে হবে। এর জন্য আরো বেশি দেশী-বিদেশী বিনিয়োগ টানতে হবে। আমাদের দেশে বিদেশী বিনিয়োগ যথেষ্ট পরিমাণে বাড়ছে না। সরকারি বিনিয়োগ আশাব্যঞ্জক হলেও বেসরকারি বিনিয়োগের পরিমাণ মাত্র ২১০ কোটি ডলার, যা যথেষ্ট নয়।

আলোচনা সভায় আরো বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ পরিবেশ আইনবিদ সমিতির (বেলা) পরিচালক সৈয়দা রিজওয়ানা হাসান, আইসিএবির কাউন্সিল সদস্য মো. হুমায়ুন কবির, কামরুল আবেদিন, পারভীন মাহমুদ, এএফ নেছারউদ্দিন প্রমুখ।


১২ কোটি টাকার চা বিক্রি শ্রীমঙ্গলে প্রথম নিলামে!

ইভিএম এ আ’লীগ ৭৭৭, বিএনপি ৭১০ ভোট


এ বিভাগের আরো খবর...

অভিনেত্রী তাজিন আহমেদ আর নেই অভিনেত্রী তাজিন আহমেদ আর নেই
পদ্মা সেতু রেলসংযোগ প্রকল্পের ব্যয় বেড়েছে! পদ্মা সেতু রেলসংযোগ প্রকল্পের ব্যয় বেড়েছে!
সরকারি ব্যাংকের টাকাও ঋণ খেলাপি! সরকারি ব্যাংকের টাকাও ঋণ খেলাপি!
খাবার তালিকা থেকে তেল-ঘি-মশলা বাদ রাখুন খাবার তালিকা থেকে তেল-ঘি-মশলা বাদ রাখুন
মায়ের উপর অভিমান করে স্কুল ছাত্রীর আত্মহত্যা মায়ের উপর অভিমান করে স্কুল ছাত্রীর আত্মহত্যা
খালি হাতেই ফিরছেন ফিজ? খালি হাতেই ফিরছেন ফিজ?
নিজের অবস্থানের দিকে যাচ্ছে বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইট নিজের অবস্থানের দিকে যাচ্ছে বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইট
দরপতন অব্যাহত দেশের পুঁজিবাজারে দরপতন অব্যাহত দেশের পুঁজিবাজারে
যুবশক্তিকে কাজে লাগাতে খাদ্য ও কৃষি খাত বড় ভূমিকা রাখতে পারে! যুবশক্তিকে কাজে লাগাতে খাদ্য ও কৃষি খাত বড় ভূমিকা রাখতে পারে!
সয়াবিন উৎপাদনে শীর্ষ অবস্থানে উঠতে যাচ্ছে ব্রাজিল! সয়াবিন উৎপাদনে শীর্ষ অবস্থানে উঠতে যাচ্ছে ব্রাজিল!

সর্বাধিক পঠিত

চীন-উত্তর কোরীয় সীমান্তে কড়া নজরদারির আহবান ট্রাম্পের চীন-উত্তর কোরীয় সীমান্তে কড়া নজরদারির আহবান ট্রাম্পের
প্রাথমিকে ট্রাফিক আইন শিক্ষার তাগিদ প্রধানমন্ত্রীর প্রাথমিকে ট্রাফিক আইন শিক্ষার তাগিদ প্রধানমন্ত্রীর
ডিজিটালআইন নিয়ে উদ্বেগ দূর করার প্রতিশ্রুতি ডিজিটালআইন নিয়ে উদ্বেগ দূর করার প্রতিশ্রুতি
বিশেষ বিসিএসের লিখিত পরীক্ষা আগামী জুলাইয়ে বিশেষ বিসিএসের লিখিত পরীক্ষা আগামী জুলাইয়ে
অভিনেত্রী তাজিন আহমেদ আর নেই অভিনেত্রী তাজিন আহমেদ আর নেই
অর্থপাচারের অভিযোগে নাজিবকে জিজ্ঞাসাবাদ অর্থপাচারের অভিযোগে নাজিবকে জিজ্ঞাসাবাদ
দুই মামলায় খালেদার জামিন শুনানি আগামীকাল পর্যন্ত মুলতবি দুই মামলায় খালেদার জামিন শুনানি আগামীকাল পর্যন্ত মুলতবি
পদ্মা সেতু রেলসংযোগ প্রকল্পের ব্যয় বেড়েছে! পদ্মা সেতু রেলসংযোগ প্রকল্পের ব্যয় বেড়েছে!
সুহানার ১৮ তম জন্মদিনে শাহরুখ-গৌরির বিশেষ পরিকল্পনা! সুহানার ১৮ তম জন্মদিনে শাহরুখ-গৌরির বিশেষ পরিকল্পনা!
তদন্তেই প্রকৃত সত্য বের হবে- এ কে আজাদ তদন্তেই প্রকৃত সত্য বের হবে- এ কে আজাদ
অসহনীয় যানজট নিরসনে দ্রুত কার্যকর পদক্ষেপ নিন?
বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট মহাকাশযাত্রা বাংলাদেশের জন্য মাইলফলক
বন জলবায়ু আলোচনায় যে সিদ্ধান্ত হয়েছে
জলবায়ু পরিবর্তনে প্যারিস চুক্তির সাথে চারশো বড় কোম্পানি প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হয়েছে
আবারও অশান্ত হয়ে উঠছে পাহাড়ি এলাকা?
কিম-মুনের ঐতিহাসিক বৈঠক-গোটা বিশ্বে এটি শান্তির পরিবেশ তৈরি করবে!
অবর্ণনীয় দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে রাজধানীবাসীকে
বিড়ি শিল্পে তামাকের ভয়াবহতা আর শিশুশ্রম বাড়ছে
প্লাস্টিক বিপর্যয়ের মুখে বাংলাদেশ, খাবারে ঢুকে পড়ছে প্লাস্টিক !
শিক্ষাকে কখনো পণ্য হিসেবে বিবেচনা করা উচিত নয়