ঢাকা, জানুয়ারী ২২, ২০১৯, ৯ মাঘ ১৪২৫
---
bbc24news.com
প্রথম পাতা » প্রিয়দেশ » সিপিডির ঝুঁকিতে শিল্পখাত, চিন্তিত নয়- বিজিএমইএ
মঙ্গলবার ● ১৫ মে ২০১৮, ৯ মাঘ ১৪২৫
Email this News Print Friendly Version

সিপিডির ঝুঁকিতে শিল্পখাত, চিন্তিত নয়- বিজিএমইএ

---বিবিসি২৪নিউজ,আরিয়ান রনি:বাংলাদেশের তৈরি পোশাক শিল্প ইউরোপের মার্কেটে ডিউটি ও কোটামুক্ত বাণিজ্য সুবিধা বন্ধ হওয়ার পর বড় ধরনের ধাক্কা খাবে। এ ঝুঁকি থেকে রক্ষা পেতে এখন থেকেই পরিকল্পনা নিতে সতর্ক করেছে বেসরকারি গবেষণা সংস্থা সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগ (সিপিডি)।তবে বাংলাদেশ তৈরি পোশাক প্রস্তুতকারক ও রপ্তানিকারক সমিতির (বিজিএমইএ) সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান বলেছেন, আমরা চিন্তিত নই, আরো ১০ বছর সময় রয়েছে; এর মধ্যে বাংলাদেশ অনেক দূর পৌঁছে যাবে।টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) অর্জনে শ্রমের মানোন্নয়ন শীর্ষক সংলাপে এমন মতামত উঠে এসেছে। আজ খাজানার গার্ডেনিয়া ব্যানকুয়েট হলে সিপিডির আয়োজনে এ সংলাপ অনুষ্ঠিত হয়।

সিপিডির গবেষণা পরিচালক খন্দকার গোলাম মোয়াজ্জেম মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন। তিনি বলেন, ২০১৭ সালের পর ডিউটি ও কোটামুক্ত বাণিজ্যের সুযোগ বন্ধ হয়ে যাবে। এখনই উদ্যোগ না নিলে বাংলাদেশ বড় ধরনের ধাক্কা খাবে। তবে সুযোগ রয়েছে এসডিজি বাস্তবায়ন করে শ্রীলংকা ও পাকিস্তানের মতো এসডিজি প্লাসের সুবিধা নিতে।এসডিজি প্লাসের সুযোগ পেতে হলে শ্রমের মান, শ্রমিকের অধিকার, নিরাপত্তা, কর্মের পরিবেশসহ বেশ কিছু বিষয় নিশ্চিত করতে হবে। সরকার অনেকগুলো কনভেনশনে স্বাক্ষর করেছে। শুধু মানলে হবে না বাস্তবায়ন করতে হবে বলে মন্তব্য করেন মোয়াজ্জেম হোসেন।

তিনি বলেন, মধ্যম আয়ের দেশ থেকে উন্নত রাষ্ট্রে পরিণত হতে হলে নন ফরমাল শ্রমিক আউটসোর্সিংসহ অনেক বিষয় নীতিমালায় আনতে হবে।আলোচনায় অংশ নিয়ে বিজিএমইএ সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান বলেন, আমরা মোটেই চিন্তিত নই।

পাশে বসা এলএফএমইএবি’র সহ-সভাপতি নাছির খানকে ইঙ্গিত করে বিজিএমইএ সভাপতি বলেন, আমাদের এক ভাই বলেছেন আমেরিকা জিএসপি বাতিল করেছে। তাতে কি আমাদের রপ্তানি কমেছে? কমেনি।সিদ্দিকুর রহমান বলেন, আমরা অ্যাকর্ড’র ৯০ শতাংশ শর্ত পূরণ করেছি। অন্যান্য শর্ত পূরণের লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছি। আমার মনে হয় আগামী ১০ বছরে বাংলাদেশ অনেক দূর পৌঁছে যাবে।

তিনি বলেন, আমরা ব্যবসায়ীরা ব্যবসা পরিবর্তন করতে পারবো। কিন্তু পোশাক খাতে ৪৪ লাখ শ্রমিক রয়েছে, তাদের কথা ভাবতে হবে। তারা তো দ্রুত অন্য কাজ শিখতে পারবে না।
অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেব উপস্থিত ছিলেন শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী মজিবুল হক চুন্নু। সংলাপে অংশ নেন সিপিডির সম্মানীয় ফেলো ড. দেবপ্রিয় ভট্টাচার্য, সাম্মানীয় ফেলো মোস্তাফিজুর রহমান, ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্রের সেক্রেটারি জেনারেল ওয়াজেদুল ইসলাম খান ও বিভিন্ন শ্রমিক সংগঠনের নেতারা।


ইভিএম এ আ’লীগ ৭৭৭, বিএনপি ৭১০ ভোট

নৌকা ৯৩২৫, ধানের শীষ ৩৪৫৬


এ বিভাগের আরো খবর...

না ফেরার দেশে চলে গেলেন গীতিকার আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল না ফেরার দেশে চলে গেলেন গীতিকার আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল
হাসপাতাল পরিদর্শনে গিয়ে স্বাস্থ্য পরিদর্শক নিহত হাসপাতাল পরিদর্শনে গিয়ে স্বাস্থ্য পরিদর্শক নিহত
টিভি পর্দায় আজকের খেলা টিভি পর্দায় আজকের খেলা
অপু বিশ্বাস এমপি হতে মনোনয়নপত্র জমা দিলেন অপু বিশ্বাস এমপি হতে মনোনয়নপত্র জমা দিলেন
আজ পূর্ণ চন্দ্রগ্রহণ আজ পূর্ণ চন্দ্রগ্রহণ
৩ মন্ত্রণালয়ে নতুন সচিব ৩ মন্ত্রণালয়ে নতুন সচিব
নাটোরে পৌর কাউন্সিলরকে কুপিয়ে হত্যা নাটোরে পৌর কাউন্সিলরকে কুপিয়ে হত্যা
আবারও ঢাকাই ছবিতে মুনমুন আবারও ঢাকাই ছবিতে মুনমুন
মেঘনায় ভেসে উঠল ২ লাশ মেঘনায় ভেসে উঠল ২ লাশ
টেকনাফে গ্রেপ্তার মাদক আসামি ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত টেকনাফে গ্রেপ্তার মাদক আসামি ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত

সর্বাধিক পঠিত

ওস্তাদের মার শেষ রাতেকিন্তু ‘ওস্তাদ’ হতে পারলেন না গেইল ওস্তাদের মার শেষ রাতেকিন্তু ‘ওস্তাদ’ হতে পারলেন না গেইল
কঙ্গনা ফুঁসে উঠলেন কঙ্গনা ফুঁসে উঠলেন
ব্র্যাড পিট-থেরন প্রেম করছেন ব্র্যাড পিট-থেরন প্রেম করছেন
শান্ত আজ হঠাৎ করেই একটু অশান্ত শান্ত আজ হঠাৎ করেই একটু অশান্ত
বাংলাদেশের কেউ নেই আইসিসির বর্ষসেরা টেস্ট দলে বাংলাদেশের কেউ নেই আইসিসির বর্ষসেরা টেস্ট দলে
বিএনপি জয়নুলের কাদায় আটকে পড়া গরুর গাড়ি: কাদের বিএনপি জয়নুলের কাদায় আটকে পড়া গরুর গাড়ি: কাদের
আইসিসিও মেনে নিচ্ছে কোহলির শ্রেষ্ঠত্ব আইসিসিও মেনে নিচ্ছে কোহলির শ্রেষ্ঠত্ব
অনৈতিকতার পথে হেঁটে কখনো ভালো ফল পাওয়া যায় না- শিক্ষামন্ত্রী অনৈতিকতার পথে হেঁটে কখনো ভালো ফল পাওয়া যায় না- শিক্ষামন্ত্রী
রাশিয়ার উপকূলে ২ জাহাজে আগুন, নিহত ১৪ রাশিয়ার উপকূলে ২ জাহাজে আগুন, নিহত ১৪
সিরাজগঞ্জে গৃহবধূ হত্যায় স্বামীসহ ৪ জনের মৃত্যুদণ্ড দিয়েছে- আদালত সিরাজগঞ্জে গৃহবধূ হত্যায় স্বামীসহ ৪ জনের মৃত্যুদণ্ড দিয়েছে- আদালত
দুর্নীতির বিরুদ্ধে প্রকৃত অর্থেই নিতে হবে জিরো টলারেন্স
বেআইনি ব্যাংকিং কার্যক্রমের বিরুদ্ধে বহুমুখী পদক্ষেপ নিন
খাদ্যে অতিরিক্ত ট্রান্সফ্যাটের কারণে, প্রতি বছর বিশ্বে পাঁচ লাখ মানুষের মৃত্যু হয়
স্বাধীনতার পর প্রথমবার ‘মন্ত্রীশূন্য’ কিশোরগঞ্জ
মন চুরির অভিযোগ পুলিশের কাছে!
সৈয়দ আশরাফ যে কবরে সমাহিত হবেন
ব্যবসায়ীদের বিনিয়োগের বাধা দূর করতে হবে?
মহাজোটের মহাজয়ে শেখ হাসিনা
বাংলাদেশে নির্বাচন-পরবর্তী সহিংসতা রোধ করুন!
নেইমারের সমালোচনায় পেলে