ঢাকা, মে ২৩, ২০১৮, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫
---
---
bbc24news.com
প্রথম পাতা » আর্ন্তজাতিক » ফিলিস্তিন ইস্যুতে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের ব্যর্থ?
বুধবার ● ১৬ মে ২০১৮, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫
Email this News Print Friendly Version

ফিলিস্তিন ইস্যুতে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের ব্যর্থ?

---বিবিসি২৪নিউজ,আন্তর্জাতিক ডেস্ক:জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের জরুরি অধিবেশন কোনো ফলাফল ছাড়াই শেষ হয়েছে ফিলিস্তিন ইস্যুতে। বৈঠকে অংশগ্রহণকারী বেশিরভাগ সদস্যদেশ সোমবারের গাজা গণহত্যার ব্যাপারে নিরপেক্ষ তদন্ত করার আহ্বান জানালেও এ সংক্রান্ত বিবৃতি আটকে দিয়েছে আমেরিকা।কুয়েতের আহ্বানে নিরাপত্তা পরিষদের ফিলিস্তিন বিষয়ক জরুরি এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।গতকাল জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের জরুরি বৈঠকে আমেরিকার বন্ধু ও শত্রু মিলে প্রায় সবগুলো সদস্যদেশ বায়তুল মুকাদ্দাসে মার্কিন দূতাবাস স্থানান্তরের বিরোধিতা করে। তবে বৈঠকে মূলত গাজায় সোমবারের ইসরাইলি গণহত্যা নিয়ে আলোচনা হয়।এতে প্রায় সব রাষ্ট্রদূত বলেন, নিরস্ত্র বেসামরিক নাগরিকদের বিরুদ্ধে তাজা গুলি ব্যবহারের ব্যাপারে ইসরাইলকে আরো বেশি সাবধান হতে হবে।বৈঠকে জাতিসংঘের মধ্যপ্রাচ্য বিষয়ক সমন্বয়ক নিকোলাই ম্লাদেনোভ গাজা উপত্যকায় আহত ফিলিস্তিনিদের চিকিৎসার জন্য এ উপত্যকা থেকে বাইরে যাওয়ার অনুমতি দিতে মিশর ও ইসরাইলের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

বৈঠকে কুয়েতের রাষ্ট্রদূত ফিলিস্তিনি জনগণের ওপর ইসরাইলের নির্বিচার গুলিবর্ষণের নিন্দা জানান এবং এ হামলাকে আন্তর্জাতিক আইনের সুস্পষ্ট লঙ্ঘন বলে উল্লেখ করেছেন।
কিন্তু মার্কিন রাষ্ট্রদূত নিকি হ্যালি ফিলিস্তিনি জনগণের ওপর ইসরাইলি সেনাদের ভয়াবহ গণত্যার প্রতি সমর্থন জানিয়ে বলেন, সোমবারের ‘সহিংসতা’র জন্য গাজা নিয়ন্ত্রকারী হামাসই দায়ী।শেষ পর্যন্ত বৈঠকটি ইসরাইলের বিরুদ্ধে কোন নিন্দা প্রস্তাব গ্রহণ করা ছাড়াই শেষ হয়।

অধিকৃত বায়তুল মুকাদ্দাস শহরে মার্কিন দূতাবাস খোলার প্রতিবাদে সোমবার গাজা উপত্যকায় বিক্ষোভকারী ফিলিস্তিনিদের ওপর নির্বিচারে গুলি চালায় ইহুদিবাদী সেনারা। এতে অন্ত ৫৮ ফিলিস্তিনি শহীদ ও দুই হাজারের বেশি মানুষ আহত হয়।

ইহুদিবাদী ইসরাইল ১৯৬৭ সালের যুদ্ধে ফিলিস্তিনিদের কাছ থেকে বায়তুল মুকাদ্দাস শহর দখল করে নেয়। এখন পর্যন্ত আন্তর্জাতিক সমাজ এই দখলদারিত্বকে স্বীকৃতি দেয়নি।


জামিন পেলেও মুক্তি পাচ্ছেন না- খালেদা জিয়া

রাশিয়াতে ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডোই দলকে নেতৃত্ব দেবেন!


এ বিভাগের আরো খবর...

চীন-উত্তর কোরীয় সীমান্তে কড়া নজরদারির আহবান ট্রাম্পের চীন-উত্তর কোরীয় সীমান্তে কড়া নজরদারির আহবান ট্রাম্পের
প্রাথমিকে ট্রাফিক আইন শিক্ষার তাগিদ প্রধানমন্ত্রীর প্রাথমিকে ট্রাফিক আইন শিক্ষার তাগিদ প্রধানমন্ত্রীর
ডিজিটালআইন নিয়ে উদ্বেগ দূর করার প্রতিশ্রুতি ডিজিটালআইন নিয়ে উদ্বেগ দূর করার প্রতিশ্রুতি
বিশেষ বিসিএসের লিখিত পরীক্ষা আগামী জুলাইয়ে বিশেষ বিসিএসের লিখিত পরীক্ষা আগামী জুলাইয়ে
অর্থপাচারের অভিযোগে নাজিবকে জিজ্ঞাসাবাদ অর্থপাচারের অভিযোগে নাজিবকে জিজ্ঞাসাবাদ
তদন্তেই প্রকৃত সত্য বের হবে- এ কে আজাদ তদন্তেই প্রকৃত সত্য বের হবে- এ কে আজাদ
ডিজিটাল আইনে অসঙ্গতি দূর করার আশ্বাস? ডিজিটাল আইনে অসঙ্গতি দূর করার আশ্বাস?
পাল্টা আক্রমণ করায় মাদক ব্যবসায়ীরা নিহত: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী পাল্টা আক্রমণ করায় মাদক ব্যবসায়ীরা নিহত: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
পদ্মাসেতুর রেলসংযোগসহ ১৬ প্রকল্পের অনুমোদন পদ্মাসেতুর রেলসংযোগসহ ১৬ প্রকল্পের অনুমোদন
ঈদে ৪ দিন সিএনজি স্টেশন ২৪ ঘণ্টা খোলা থাকবে- কাদের ঈদে ৪ দিন সিএনজি স্টেশন ২৪ ঘণ্টা খোলা থাকবে- কাদের

সর্বাধিক পঠিত

চীন-উত্তর কোরীয় সীমান্তে কড়া নজরদারির আহবান ট্রাম্পের চীন-উত্তর কোরীয় সীমান্তে কড়া নজরদারির আহবান ট্রাম্পের
প্রাথমিকে ট্রাফিক আইন শিক্ষার তাগিদ প্রধানমন্ত্রীর প্রাথমিকে ট্রাফিক আইন শিক্ষার তাগিদ প্রধানমন্ত্রীর
ডিজিটালআইন নিয়ে উদ্বেগ দূর করার প্রতিশ্রুতি ডিজিটালআইন নিয়ে উদ্বেগ দূর করার প্রতিশ্রুতি
বিশেষ বিসিএসের লিখিত পরীক্ষা আগামী জুলাইয়ে বিশেষ বিসিএসের লিখিত পরীক্ষা আগামী জুলাইয়ে
অভিনেত্রী তাজিন আহমেদ আর নেই অভিনেত্রী তাজিন আহমেদ আর নেই
অর্থপাচারের অভিযোগে নাজিবকে জিজ্ঞাসাবাদ অর্থপাচারের অভিযোগে নাজিবকে জিজ্ঞাসাবাদ
দুই মামলায় খালেদার জামিন শুনানি আগামীকাল পর্যন্ত মুলতবি দুই মামলায় খালেদার জামিন শুনানি আগামীকাল পর্যন্ত মুলতবি
পদ্মা সেতু রেলসংযোগ প্রকল্পের ব্যয় বেড়েছে! পদ্মা সেতু রেলসংযোগ প্রকল্পের ব্যয় বেড়েছে!
সুহানার ১৮ তম জন্মদিনে শাহরুখ-গৌরির বিশেষ পরিকল্পনা! সুহানার ১৮ তম জন্মদিনে শাহরুখ-গৌরির বিশেষ পরিকল্পনা!
তদন্তেই প্রকৃত সত্য বের হবে- এ কে আজাদ তদন্তেই প্রকৃত সত্য বের হবে- এ কে আজাদ
অসহনীয় যানজট নিরসনে দ্রুত কার্যকর পদক্ষেপ নিন?
বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট মহাকাশযাত্রা বাংলাদেশের জন্য মাইলফলক
বন জলবায়ু আলোচনায় যে সিদ্ধান্ত হয়েছে
জলবায়ু পরিবর্তনে প্যারিস চুক্তির সাথে চারশো বড় কোম্পানি প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হয়েছে
আবারও অশান্ত হয়ে উঠছে পাহাড়ি এলাকা?
কিম-মুনের ঐতিহাসিক বৈঠক-গোটা বিশ্বে এটি শান্তির পরিবেশ তৈরি করবে!
অবর্ণনীয় দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে রাজধানীবাসীকে
বিড়ি শিল্পে তামাকের ভয়াবহতা আর শিশুশ্রম বাড়ছে
প্লাস্টিক বিপর্যয়ের মুখে বাংলাদেশ, খাবারে ঢুকে পড়ছে প্লাস্টিক !
শিক্ষাকে কখনো পণ্য হিসেবে বিবেচনা করা উচিত নয়