ঢাকা, নভেম্বর ১৮, ২০১৮, ৪ অগ্রহায়ন ১৪২৫
---
bbc24news.com
প্রথম পাতা » আর্ন্তজাতিক » ট্রাম্প-কিম প্রথম দেখায় নার্ভাস ছিলেন
মঙ্গলবার ● ১২ জুন ২০১৮, ৪ অগ্রহায়ন ১৪২৫
Email this News Print Friendly Version

ট্রাম্প-কিম প্রথম দেখায় নার্ভাস ছিলেন

---বিবিসি২৪নিউজ,নিজস্ব প্রতিবেদক:সিঙ্গাপুরের ঐতিহাসিক বৈঠকে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও উত্তর কোরিয়ার শীর্ষ নেতা কিম জং উন প্রথম ৬০ সেকেন্ডের মধ্যেই দুই নেতা একে অপরের ওপর প্রভাব বিস্তারে বেশ সচেষ্ট হয়ে উঠেছিলেন বলে জানিয়েছেন শরীরি ভাষা বিষয়ক এক বিশেষজ্ঞ।“হাত মেলানোর সময় দুজনকেই সমকক্ষ মনে হচ্ছিল। নিজেকে নেতা এবং বিষয়টির ওপর নিয়ন্ত্রণ আছে দেখাতে বেশ সচেতন ছিলেন ট্রাম্প,” বলেন সিঙ্গাপুরভিত্তিক ইনফ্লুয়েন্স সলিউশনসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক লিয়ং।প্রথম দেখায় ট্রাম্পই বেশি সময় ধরে কথা বলেছেন, কিম ছিলেন অত্যন্ত মনোযোগী। বৈঠক কক্ষে যাওয়ার আগে উত্তর কোরিয়ার নেতা অন্তত তিনবার ট্রাম্পের দিকে ঝুঁকে কথা শোনার চেষ্টা করেন বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

মার্কিন প্রেসিডেন্টের বাহুতে চাপড় দিয়ে কিম মুখোমুখি সাক্ষাতে নিজের নিয়ন্ত্রণ আছে এটা দেখাতেও সচেষ্ট ছিলেন। উত্তর কোরীয় নেতার পিঠে হাত দিয়ে দ্বিগুণ বয়সী ট্রাম্প এরপর কিমকে লাইব্রেরির পথ দেখিয়ে দেন, যেখানে দুই নেতা একান্তে বৈঠক করেন।

বৈঠক কক্ষে বসার পরও দুজনই স্নায়ুচাপজনিত উত্তেজনা লুকাতে ব্যর্থ হয়েছেন বলে জানান লিয়ং। দুই হাত দিয়ে অস্থিরতা ঢাকার চেষ্টার পাশাপাশি চটজলদি হাসিতে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করেন ট্রাম্প; খানিক ঝুঁকে থাকা কিমের চোখ ছিল মাটির দিকে।যুক্তরাষ্ট্র ও উত্তর কোরিয়ার এ শীর্ষ সম্মেলনে কোরীয় উপদ্বীপের ‘পারমাণবিক নিরস্ত্রীকরণ’ ও দুই কোরিয়ার মধ্যে শান্তিচুক্তি নিয়ে আলোচনা হওয়ার কথা। দায়িত্বরত কোনো মার্কিন প্রেসিডেন্টের সঙ্গে উত্তরের কোনো শীর্ষ নেতার এটিই প্রথম মুখোমুখি সাক্ষাৎ।

বৈঠকের আগে ট্রাম্প বলেছিলেন, উত্তর কোরিয়ার নেতা শান্তি প্রতিষ্ঠায় আন্তরিক কি না, দেখা হওয়ার প্রথমি মিনিটেই তা বুঝে যাবেন তিনি।

“ভাল কিছু হতে যাচ্ছে কি না, খুব দ্রুতই তা আমি বুঝতে পারবো। কিছু হবে কি না তাও দ্রুতই আমি জেনে যাব বলেই মনে করছি, হয়তো এটি হবে না। আদৌ ইতিবাচক কিছু হবে, কি হবে না, তা আমি অতি দ্রুতই বুঝে যাব,” কানাডায় অনুষ্ঠিত জি-৭ সম্মেলনের পর এক সংবাদ সম্মেলনে এমনটাই জানিয়েছিলেন ট্রাম্প।


রোহিঙ্গা শিবিরে ত্রাণ কর্মীদের বিশেষ ক্যাটাগরির ভিসা- প্রধানমন্ত্রী

জাদু বিশ্বাস করে না অপু বিশ্বাস


এ বিভাগের আরো খবর...

শীর্ষ বৈঠকের সমাপ্তি ঘোষণা প্রকাশে ব্যর্থ- এপেক শীর্ষ বৈঠকের সমাপ্তি ঘোষণা প্রকাশে ব্যর্থ- এপেক
আগামী বছর উত্তর কোরিয়া সফরে যাবেন-শি জিন পিং আগামী বছর উত্তর কোরিয়া সফরে যাবেন-শি জিন পিং
শিগগিরই খাসোগি হত্যাকারীদের নাম জানাবে- আমেরিকা শিগগিরই খাসোগি হত্যাকারীদের নাম জানাবে- আমেরিকা
মিয়ানমারে রোহিঙ্গা শিবিরে পুলিশের অভিযান মিয়ানমারে রোহিঙ্গা শিবিরে পুলিশের অভিযান
এবার কোথাও থার্টি ফার্স্ট নাইট পালন করা যাবে না- স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এবার কোথাও থার্টি ফার্স্ট নাইট পালন করা যাবে না- স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
তারেক এর ভিডিও কনফারেন্স বিএনপির অভ্যন্তরীণ বিষয়- ফকরুল তারেক এর ভিডিও কনফারেন্স বিএনপির অভ্যন্তরীণ বিষয়- ফকরুল
পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ: সোহাগ গ্রেফতার পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ: সোহাগ গ্রেফতার
সাজার রায়ের বিরুদ্ধে খালেদার আপিল সাজার রায়ের বিরুদ্ধে খালেদার আপিল
কক্সবাজারের সুনাম ক্ষুণ্ন হচ্ছে- আইজিপি কক্সবাজারের সুনাম ক্ষুণ্ন হচ্ছে- আইজিপি
আব্বাস দম্পতির আগাম জামিন আব্বাস দম্পতির আগাম জামিন

সর্বাধিক পঠিত

বাণিজ্যযুদ্ধের প্রস্তুতি নিতে হবে বাংলাদেশকে বাণিজ্যযুদ্ধের প্রস্তুতি নিতে হবে বাংলাদেশকে
শীর্ষ বৈঠকের সমাপ্তি ঘোষণা প্রকাশে ব্যর্থ- এপেক শীর্ষ বৈঠকের সমাপ্তি ঘোষণা প্রকাশে ব্যর্থ- এপেক
আগামী বছর উত্তর কোরিয়া সফরে যাবেন-শি জিন পিং আগামী বছর উত্তর কোরিয়া সফরে যাবেন-শি জিন পিং
শিগগিরই খাসোগি হত্যাকারীদের নাম জানাবে- আমেরিকা শিগগিরই খাসোগি হত্যাকারীদের নাম জানাবে- আমেরিকা
বগুড়ায় মেলায় বিশালাকৃতির মাছের পসরা বসেছে বগুড়ায় মেলায় বিশালাকৃতির মাছের পসরা বসেছে
ভারতে স্বর্ণের চাহিদা বেড়েছে ১৭.৪ টন ভারতে স্বর্ণের চাহিদা বেড়েছে ১৭.৪ টন
টেস্টে ক্যাপ্টেন হওয়ার পর ধোনির কৃর্তী ফাঁস করলেন লক্ষ্মণ! টেস্টে ক্যাপ্টেন হওয়ার পর ধোনির কৃর্তী ফাঁস করলেন লক্ষ্মণ!
চিলিতে তামা উৎপাদন ৭.৩% চিলিতে তামা উৎপাদন ৭.৩%
মিয়ানমারে রোহিঙ্গা শিবিরে পুলিশের অভিযান মিয়ানমারে রোহিঙ্গা শিবিরে পুলিশের অভিযান
“জীবনের শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত বঙ্গবন্ধুর আদর্শ নিয়ে বাঁচতে চাই” “জীবনের শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত বঙ্গবন্ধুর আদর্শ নিয়ে বাঁচতে চাই”
নির্বাচনে সবার অংশগ্রহণ-গণতন্ত্রের জন্য ইতিবাচক
বহুল প্রত্যাশিত সংলাপে কি ছিল?
একটি অর্থবহ ও সফল সংলাপের প্রত্যাশা করছি
শেখ হাসিনা বার্ন ইন্সটিটিউটের: প্রত্যাশিত স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত হবে কি?
নদীশাসনের দুর্বলতা বিঘ্নিত হচ্ছে নৌপথে চলাচল
শিল্পে গ্যাস সংযোগ না দেওয়া, আর্থিক ক্ষতির মুখে-সরকার
গুদামের খাদ্যদ্রব্য পাচারে-সক্রিয় চোর সিন্ডিকেট
প্যারিস জলবায়ু চুক্তি ৩০০ পৃষ্ঠার খসড়া অনুমোদন করেছে-ব্যাংকক
সড়ক শৃঙ্খলা-মূল সমস্যাটা রাজনীতিতেই: কাদের
বিশ্বের ভয়াবহ আবহাওয়া নিয়ে প্রযুক্তিগত আলোচনা চলছে