ঢাকা, সেপ্টেম্বর ২১, ২০১৮, ৫ আশ্বিন ১৪২৫
---
bbc24news.com
প্রথম পাতা » আর্ন্তজাতিক » ট্রাম্প-কিম প্রথম দেখায় নার্ভাস ছিলেন
মঙ্গলবার ● ১২ জুন ২০১৮, ৫ আশ্বিন ১৪২৫
Email this News Print Friendly Version

ট্রাম্প-কিম প্রথম দেখায় নার্ভাস ছিলেন

---বিবিসি২৪নিউজ,নিজস্ব প্রতিবেদক:সিঙ্গাপুরের ঐতিহাসিক বৈঠকে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও উত্তর কোরিয়ার শীর্ষ নেতা কিম জং উন প্রথম ৬০ সেকেন্ডের মধ্যেই দুই নেতা একে অপরের ওপর প্রভাব বিস্তারে বেশ সচেষ্ট হয়ে উঠেছিলেন বলে জানিয়েছেন শরীরি ভাষা বিষয়ক এক বিশেষজ্ঞ।“হাত মেলানোর সময় দুজনকেই সমকক্ষ মনে হচ্ছিল। নিজেকে নেতা এবং বিষয়টির ওপর নিয়ন্ত্রণ আছে দেখাতে বেশ সচেতন ছিলেন ট্রাম্প,” বলেন সিঙ্গাপুরভিত্তিক ইনফ্লুয়েন্স সলিউশনসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক লিয়ং।প্রথম দেখায় ট্রাম্পই বেশি সময় ধরে কথা বলেছেন, কিম ছিলেন অত্যন্ত মনোযোগী। বৈঠক কক্ষে যাওয়ার আগে উত্তর কোরিয়ার নেতা অন্তত তিনবার ট্রাম্পের দিকে ঝুঁকে কথা শোনার চেষ্টা করেন বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

মার্কিন প্রেসিডেন্টের বাহুতে চাপড় দিয়ে কিম মুখোমুখি সাক্ষাতে নিজের নিয়ন্ত্রণ আছে এটা দেখাতেও সচেষ্ট ছিলেন। উত্তর কোরীয় নেতার পিঠে হাত দিয়ে দ্বিগুণ বয়সী ট্রাম্প এরপর কিমকে লাইব্রেরির পথ দেখিয়ে দেন, যেখানে দুই নেতা একান্তে বৈঠক করেন।

বৈঠক কক্ষে বসার পরও দুজনই স্নায়ুচাপজনিত উত্তেজনা লুকাতে ব্যর্থ হয়েছেন বলে জানান লিয়ং। দুই হাত দিয়ে অস্থিরতা ঢাকার চেষ্টার পাশাপাশি চটজলদি হাসিতে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করেন ট্রাম্প; খানিক ঝুঁকে থাকা কিমের চোখ ছিল মাটির দিকে।যুক্তরাষ্ট্র ও উত্তর কোরিয়ার এ শীর্ষ সম্মেলনে কোরীয় উপদ্বীপের ‘পারমাণবিক নিরস্ত্রীকরণ’ ও দুই কোরিয়ার মধ্যে শান্তিচুক্তি নিয়ে আলোচনা হওয়ার কথা। দায়িত্বরত কোনো মার্কিন প্রেসিডেন্টের সঙ্গে উত্তরের কোনো শীর্ষ নেতার এটিই প্রথম মুখোমুখি সাক্ষাৎ।

বৈঠকের আগে ট্রাম্প বলেছিলেন, উত্তর কোরিয়ার নেতা শান্তি প্রতিষ্ঠায় আন্তরিক কি না, দেখা হওয়ার প্রথমি মিনিটেই তা বুঝে যাবেন তিনি।

“ভাল কিছু হতে যাচ্ছে কি না, খুব দ্রুতই তা আমি বুঝতে পারবো। কিছু হবে কি না তাও দ্রুতই আমি জেনে যাব বলেই মনে করছি, হয়তো এটি হবে না। আদৌ ইতিবাচক কিছু হবে, কি হবে না, তা আমি অতি দ্রুতই বুঝে যাব,” কানাডায় অনুষ্ঠিত জি-৭ সম্মেলনের পর এক সংবাদ সম্মেলনে এমনটাই জানিয়েছিলেন ট্রাম্প।


রোহিঙ্গা শিবিরে ত্রাণ কর্মীদের বিশেষ ক্যাটাগরির ভিসা- প্রধানমন্ত্রী

জাদু বিশ্বাস করে না অপু বিশ্বাস


এ বিভাগের আরো খবর...

মুসলিমদের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে মোদি সরকারের স্বৈরাচারী পন্থা মুসলিমদের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে মোদি সরকারের স্বৈরাচারী পন্থা
উ’ কোরিয়ার সাথে আলোচনা ফের শুরু করতে যুক্তরাষ্ট্রের প্রস্তাব উ’ কোরিয়ার সাথে আলোচনা ফের শুরু করতে যুক্তরাষ্ট্রের প্রস্তাব
আজকে আইন প্রশাসনের অধীনে না: নজরুল আজকে আইন প্রশাসনের অধীনে না: নজরুল
রাধানীতে যানজট নিরসনে পরিকল্পনা হলেও বাস্তবায়ন নেই রাধানীতে যানজট নিরসনে পরিকল্পনা হলেও বাস্তবায়ন নেই
একমাসে রফতানি আয় কমেছে ৩৭ কোটি মার্কিন ডলার একমাসে রফতানি আয় কমেছে ৩৭ কোটি মার্কিন ডলার
ড. কামাল প্রত্যেক দলের প্রতিনিধি চান ড. কামাল প্রত্যেক দলের প্রতিনিধি চান
৩ লাখ মানুষ বছরে ক্যান্সারে আক্রান্ত হচ্ছে- নাসিম ৩ লাখ মানুষ বছরে ক্যান্সারে আক্রান্ত হচ্ছে- নাসিম
ইরান নয় সৌদি আরবই বিশ্বের জন্য হুমকি- বেঞ্জামিন ইরান নয় সৌদি আরবই বিশ্বের জন্য হুমকি- বেঞ্জামিন
উ’ কোরিয়াকে জ্বালানী দেয়ার অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করল- রাশিয়া উ’ কোরিয়াকে জ্বালানী দেয়ার অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করল- রাশিয়া
ইরানের সঙ্গে চুক্তি করতে চায়- আমেরিকা ইরানের সঙ্গে চুক্তি করতে চায়- আমেরিকা

সর্বাধিক পঠিত

বাংলাদেশে ইন্টারনেট গ্রাহক ৯ কোটি, ৮ কোটি মোবাইলে বাংলাদেশে ইন্টারনেট গ্রাহক ৯ কোটি, ৮ কোটি মোবাইলে
মুসলিমদের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে মোদি সরকারের স্বৈরাচারী পন্থা মুসলিমদের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে মোদি সরকারের স্বৈরাচারী পন্থা
চারটি চরিত্রে ইশরাত রয় চৈতি চারটি চরিত্রে ইশরাত রয় চৈতি
উ’ কোরিয়ার সাথে আলোচনা ফের শুরু করতে যুক্তরাষ্ট্রের প্রস্তাব উ’ কোরিয়ার সাথে আলোচনা ফের শুরু করতে যুক্তরাষ্ট্রের প্রস্তাব
সংসদে জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ বিল পাস সংসদে জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ বিল পাস
ফেনীতে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের বিজয়ী সদর ফেনীতে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের বিজয়ী সদর
রজনীকান্ত ও অক্ষয়-মুখোমুখি রজনীকান্ত ও অক্ষয়-মুখোমুখি
আজকে আইন প্রশাসনের অধীনে না: নজরুল আজকে আইন প্রশাসনের অধীনে না: নজরুল
পার্টি ডাকলে সাড়া দেবো, সিনেমা নিয়ে ব্যস্ত-জ্যোতি পার্টি ডাকলে সাড়া দেবো, সিনেমা নিয়ে ব্যস্ত-জ্যোতি
রাধানীতে যানজট নিরসনে পরিকল্পনা হলেও বাস্তবায়ন নেই রাধানীতে যানজট নিরসনে পরিকল্পনা হলেও বাস্তবায়ন নেই
শিল্পে গ্যাস সংযোগ না দেওয়া, আর্থিক ক্ষতির মুখে-সরকার
গুদামের খাদ্যদ্রব্য পাচারে-সক্রিয় চোর সিন্ডিকেট
প্যারিস জলবায়ু চুক্তি ৩০০ পৃষ্ঠার খসড়া অনুমোদন করেছে-ব্যাংকক
সড়ক শৃঙ্খলা-মূল সমস্যাটা রাজনীতিতেই: কাদের
বিশ্বের ভয়াবহ আবহাওয়া নিয়ে প্রযুক্তিগত আলোচনা চলছে
রোহিঙ্গা প্রশ্নে চীন-রাশিয়াকে-জাতিসংঘের কড়া হুুশিয়ারি!
খালেদা জিয়ার জামিন বহাল
বিমসটেক শীর্ষ সম্মেলনে নেপালে প্রধানমন্ত্রী
আওয়ামী লীগের জন্য যা পেয়েছি তা ভয়ংকর!
‘ট্যঁর দ্যে ফ্যাম’ রিপোর্ট: জার্মানিতে যৌনাঙ্গচ্ছেদে শিকার-৬৫হাজার নারী