ঢাকা, আগস্ট ১৮, ২০১৮, ৩ ভাদ্র ১৪২৫
---
bbc24news.com
প্রথম পাতা » বিশেষ প্রতিবেদন » রাজস্ব অর্জন নিয়ে শঙ্কায় এনবিআর
বুধবার ● ১৩ জুন ২০১৮, ৩ ভাদ্র ১৪২৫
Email this News Print Friendly Version

রাজস্ব অর্জন নিয়ে শঙ্কায় এনবিআর

---বিবিসি২৪নিউজ,বিশেষ প্রতিনিধি:জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর), উচ্চপ্রবৃদ্ধি ধরে রাজস্বের লক্ষ্য নির্ধারণ করা হলেও তা অর্জনে ধাক্কা খেয়েছে। চলতি অর্থবছরের প্রথম ১১ মাসে (জুলাই-মে) রাজস্ব আহরণে সর্বনিম্ন প্রবৃদ্ধি হয়েছে।অর্থবছর শেষ হতে এক মাস বাকি থাকলেও মূল লক্ষ্যমাত্রা থেকে প্রায় ৬৮ হাজার কোটি টাকা পিছিয়ে আছে সংস্থাটি। আর সংশোধিত লক্ষ্যমাত্রা থেকে পিছিয়ে ৪৫ হাজার কোটি টাকা, যা অর্জন নিয়ে শঙ্কায় এনবিআর। কারণ এর আগে কোনো অর্থবছরেই এক মাসে ২৬ হাজার কোটি টাকার বেশি রাজস্ব আহরণের রেকর্ড নেই সংস্থাটির।

২০১৭-১৮ অর্থবছরের জন্য ৩২ শতাংশ প্রবৃদ্ধি ধরে এনবিআরের জন্য ২ লাখ ৪৮ হাজার ১৯০ কোটি টাকার রাজস্ব লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়। পরে লক্ষ্যমাত্রা সংশোধন করে ২ লাখ ২৫ হাজার কোটি টাকায় নামিয়ে আনা হয়। অর্থবছরের প্রথম ১১ মাসে আয়কর, ভ্যাট ও শুল্ক মিলে সংস্থাটি আহরণ করতে পেরেছে সাকল্যে ১ লাখ ৮০ হাজার কোটি টাকা, যা মূল লক্ষ্যমাত্রার ৭২ ও সংশোধিত লক্ষ্যমাত্রার ৮০ শতাংশ। অর্থাৎ সংশোধিত লক্ষ্যমাত্রা পূরণেও শেষ মাসে ৪৫ হাজার কোটি টাকার রাজস্ব আহরণ করতে হবে এনবিআরকে। কোনোভাবেই এটা সম্ভব নয় বলে মনে করছেন স্বয়ং এনবিআর কর্মকর্তারাই।রাজস্ব আহরণের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা বলছেন, আগের অর্থবছরের সাময়িক হিসাবে ১ লাখ ৮৫ কোটি টাকার রাজস্ব আহরণকে ভিত্তি ধরে ৩২ শতাংশ প্রবৃদ্ধির লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছিল। তবে ওই অর্থবছর শেষে প্রকৃত আহরণ ১৪ হাজার কোটি টাকা কম হওয়ায় লক্ষ্যমাত্রার প্রবৃদ্ধি দাঁড়িয়েছে ৪২ শতাংশের বেশি; যা অর্জন করা সম্ভব নয়।

অনলাইন পদ্ধতির কথা বিবেচনায় নিয়ে ভ্যাট ও আয়কর খাতে রাজস্ব লক্ষ্যমাত্রা বাড়ানো হলেও ব্যাহত হয়েছে সে অর্জনও। সেই সঙ্গে সিগারেট, ব্যাংক, বীমাসহ বৃহৎ খাতগুলো থেকে রাজস্ব আহরণ কম হওয়ায় লক্ষ্যমাত্রা থেকে পিছিয়ে পড়েছে এনবিআর। করপোরেট কর ও সারচার্জ বাবদ রাজস্ব আহরণের লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত না হওয়াও দুশ্চিন্তায় ফেলেছে সংস্থাটিকে।

এনবিআর চেয়ারম্যান ও অভ্যন্তরীণ সম্পদ বিভাগের জ্যেষ্ঠ সচিব মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া বণিক বার্তাকে বলেন, আগের অর্থবছরের সংশোধিত লক্ষ্যমাত্রার তুলনায় প্রকৃত আদায় কম হওয়ায় প্রবৃদ্ধি দাঁড়িয়েছে ৪২ শতাংশ। এত বড় প্রবৃদ্ধি রাতারাতি অর্জন করা সম্ভব নয়।

প্রকৃত আদায়ের সঙ্গে সমন্বয় করে আমরা লক্ষ্যমাত্রা সংশোধন করেছি। অর্থবছরের শেষদিকে রাজস্ব আহরণে গতি আসে। মাঠপর্যায়ের কর্মকর্তারা আন্তরিকতার সঙ্গে কাজ করছেন। আশা করছি, অর্থবছর শেষে ২২-২৩ শতাংশ প্রবৃদ্ধি অর্জনে সক্ষম হব।

বিশ্বব্যাপী কর রাজস্বে মুখ্য ভূমিকা রাখে প্রত্যক্ষ কর। ধনী ও করপোরেট প্রতিষ্ঠানই এ করের অন্যতম মাধ্যম। আমদানি-রফতানিসহ পণ্য ও সেবার উৎস পর্যায় থেকেও বড় অংকের কর রাজস্ব আসে। বাংলাদেশেও ২০২১ সালে মোট রাজস্বের ৫০ শতাংশই এ খাত থেকে আহরণের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। যদিও বাস্তবতা ভিন্ন। কয়েক অর্থবছর ধরেই সাধারণ মানুষের কাছ থেকে নেয়া ভ্যাটের ওপর নির্ভরতা বাড়ছে সরকারের।

চলতি অর্থবছরের প্রথম ১১ মাসে ভ্যাটে রাজস্ব আহরণে গতি থাকলেও প্রত্যক্ষ করে বড় ধাক্কা খেয়েছে এনবিআর। অর্থবছরে ৮৭ হাজার কোটি টাকার মূল লক্ষ্যমাত্রার বিপরীতে জুলাই-মে সময়ের সাময়িক হিসাবে আয়কর ও ভ্রমণ কর বাবদ এনবিআর আহরণ করতে পেরেছে মাত্র ৫০ হাজার ৫৫০ কোটি টাকা। অর্থাৎ শুধু আয়কর খাতেই মূল লক্ষ্যমাত্রা থেকে প্রায় ৩৭ হাজার কোটি টাকা পিছিয়ে আছে এনবিআর; যা আগে কখনো হয়নি। যদিও আয়কর খাতে প্রায় ১০ হাজার কোটি টাকার লক্ষ্যমাত্রা কমানো হয়েছে। তার পরও অর্থবছরের প্রথম ১১ মাসে আয়করে লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের হার ৫৭ দশমিক ৮২ শতাংশ। এ সময় আয়করে প্রবৃদ্ধিও ১০ শতাংশের কম।

আগের অর্থবছরের প্রকৃত আদায় বিবেচনা ছাড়াই উচ্চ লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ ও নতুন ভ্যাট আইন কার্যকর না হওয়ায় শুরু থেকেও ঘাটতির আশঙ্কা করছিল এনবিআর। অনলাইন পদ্ধতি কার্যকর না হওয়ায় মূল্য সংযোজন কর (মূসক) বা ভ্যাটেও বড় ধরনের ঘাটতিতে পড়তে যাচ্ছে এনবিআর।

৯১ কোটি টাকার মূল লক্ষ্যমাত্রা ও ৮৩ হাজার কোটি টাকার সংশোধিত লক্ষ্যমাত্রার বিপরীতে ১১ মাসে ভ্যাট থেকে রাজস্ব এসেছে ৭১ হাজার ২৩৪ কোটি টাকা। এ সময় প্রায় ২৩ শতাংশ প্রবৃদ্ধি থাকলেও ৮ হাজার ৩৯৪ কোটি ঘাটতি রয়েছে সংস্থাটির।বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থার (ডব্লিউটিও) নির্দেশনা অনুযায়ী আমদানি-রফতানিতে শুল্ক নিরুৎসাহিত করা হলেও এক্ষেত্রেই লক্ষ্যমাত্রার কাছাকাছি রয়েছে এনবিআর। অ্যাসাইকুডা ওয়ার্ল্ড ও বন্দরে স্ক্যানার বসিয়ে শুল্ক ফাঁকি রোধ করে এক্ষেত্রে সাফল্য দেখিয়েছে সংস্থাটি।

চলতি অর্থবছরের জন্য সংশোধিত ৬৪ কোটি টাকার লক্ষ্যমাত্রার বিপরীতে মে পর্যন্ত শুল্ক থেকে রাজস্ব এসেছে ৫৮ কোটি টাকা। অর্থাৎ শুল্ক থেকে লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে অর্থবছরের শেষ মাসে খাতটি থেকে ৬ হাজার কোটি টাকা আহরণ করতে হবে এনবিআরকে।

এদিকে গত পাঁচ অর্থবছরের মধ্যে রাজস্ব আহরণে এবারই সর্বনিম্ন প্রবৃদ্ধিতে রয়েছে এনবিআর। চলতি অর্থবছরের ১১ মাসে রাজস্ব আহরণে প্রবৃদ্ধি হয়েছে ১৩ দশমিক ৪২ শতাংশ। ২০১৬-১৭ অর্থবছরের একই সময়ে এ প্রবৃদ্ধি ছিল ১৮ দশমিক ৭, ২০১৫-১৬ অর্থবছরে ১৪ দশমিক ৮১ ও ২০১৪-১৫ অর্থবছরে ১৪ দশমিক ২ শতাংশ।

সক্ষমতা না বাড়িয়ে রাজস্বে উচ্চপ্রবৃদ্ধির আশা করাই লক্ষ্য অর্জন না হওয়ার পেছনে দায়ী বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা ড. এবি মির্জ্জা আজিজুল ইসলাম বলেন, রাজস্ব আহরণে ৩২ শতাংশের ওপর প্রবৃদ্ধির লক্ষ্যমাত্রা অবাস্তব। এটা অর্জনযোগ্যও নয়। আমাদের অর্থনীতির সক্ষমতার বিচারে আদায় সর্বোচ্চ ২০-২২ শতাংশ বাড়তে পারে। চলতি অর্থবছরের প্রবৃদ্ধির গতিধারা দেখে মনে হচ্ছে, তা-ও হবে না। তবে হঠাৎ লক্ষ্যমাত্রা থেকে আয়কর বিভাগ এত পিছিয়ে থাকায় আশঙ্কা তৈরি করছে। পাশাপাশি রাজস্ব প্রবৃদ্ধি ছাড়া জিডিপি প্রবৃদ্ধির প্রাক্কলনও ভুল বলে মনে হয় আমার কাছে।

যদিও রাজস্ব আহরণে প্রবৃদ্ধি সন্তোষজনক বলেই বৃহস্পতিবার দেয়া জাতীয় সংসদের বাজেট প্রস্তাবনায় জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। বাজেট বক্তৃতায় তিনি বলেন, কয়েক বছর ধরেই রাজস্ব আহরণের গতি বেশ ভালো। আমাদের মোট রাজস্বের ৮৫ শতাংশ আদায় করে এনবিআর। আমরা করহার না বাড়িয়ে কর ব্যবস্থাপনার সংস্কার, করভিত্তি সম্প্রসারণ ও স্বেচ্ছা পরিপালনের মাধ্যমে রাজস্ব আহরণে জোর দিয়েছি।


প্রয়োজনে এস-৪০০ ব্যবহার করবে- তুরস্কের হুঁশিয়ারি

সারার নগ্ন ভিডিও ভাইরাল!


এ বিভাগের আরো খবর...

মোদির পথে হাঁটলেন ইমরান খান মোদির পথে হাঁটলেন ইমরান খান
মুক্তিযোদ্ধা কোটা থাকছে, বাকী সব বাতিল- নাসিম মুক্তিযোদ্ধা কোটা থাকছে, বাকী সব বাতিল- নাসিম
যাত্রীদের চাপ এখনো পুরোপুরি নেই? যাত্রীদের চাপ এখনো পুরোপুরি নেই?
প্রাকৃতিক গ্যাস এলএনজি যুগে প্রবেশ করল- বাংলাদেশ প্রাকৃতিক গ্যাস এলএনজি যুগে প্রবেশ করল- বাংলাদেশ
জামিন পেতে ‘ছিনতাইকারী কল্যাণ ফান্ড’ জামিন পেতে ‘ছিনতাইকারী কল্যাণ ফান্ড’
সাবেক জাতিসংঘ মহাসচিব কফি আনান আর নেই সাবেক জাতিসংঘ মহাসচিব কফি আনান আর নেই
নিরাপদ সড়ক নিশ্চিতে সরেজমিনে প্রধানমন্ত্রীর মুখ্যসচিব নিরাপদ সড়ক নিশ্চিতে সরেজমিনে প্রধানমন্ত্রীর মুখ্যসচিব
ইরান তৈরী করবে এস-৩০০ ক্ষেপণাস্ত্র ইরান তৈরী করবে এস-৩০০ ক্ষেপণাস্ত্র
যাত্রীদের গন্তব্যে পৌঁছানো আমাদের চ্যালেঞ্জ- আমজাদ হোসেন যাত্রীদের গন্তব্যে পৌঁছানো আমাদের চ্যালেঞ্জ- আমজাদ হোসেন
সাংবিধানিক প্রক্রিয়া থেকে সরে আসার সুযোগ নেই- কাদের সাংবিধানিক প্রক্রিয়া থেকে সরে আসার সুযোগ নেই- কাদের

সর্বাধিক পঠিত

মোদির পথে হাঁটলেন ইমরান খান মোদির পথে হাঁটলেন ইমরান খান
মুক্তিযোদ্ধা কোটা থাকছে, বাকী সব বাতিল- নাসিম মুক্তিযোদ্ধা কোটা থাকছে, বাকী সব বাতিল- নাসিম
যাত্রীদের চাপ এখনো পুরোপুরি নেই? যাত্রীদের চাপ এখনো পুরোপুরি নেই?
নেইমারের জন্য ২৯০০ কোটি টাকা দিতে রাজি রিয়াল! নেইমারের জন্য ২৯০০ কোটি টাকা দিতে রাজি রিয়াল!
প্রাকৃতিক গ্যাস এলএনজি যুগে প্রবেশ করল- বাংলাদেশ প্রাকৃতিক গ্যাস এলএনজি যুগে প্রবেশ করল- বাংলাদেশ
জামিন পেতে ‘ছিনতাইকারী কল্যাণ ফান্ড’ জামিন পেতে ‘ছিনতাইকারী কল্যাণ ফান্ড’
সাবেক জাতিসংঘ মহাসচিব কফি আনান আর নেই সাবেক জাতিসংঘ মহাসচিব কফি আনান আর নেই
নিরাপদ সড়ক নিশ্চিতে সরেজমিনে প্রধানমন্ত্রীর মুখ্যসচিব নিরাপদ সড়ক নিশ্চিতে সরেজমিনে প্রধানমন্ত্রীর মুখ্যসচিব
ইরান তৈরী করবে এস-৩০০ ক্ষেপণাস্ত্র ইরান তৈরী করবে এস-৩০০ ক্ষেপণাস্ত্র
যাত্রীদের গন্তব্যে পৌঁছানো আমাদের চ্যালেঞ্জ- আমজাদ হোসেন যাত্রীদের গন্তব্যে পৌঁছানো আমাদের চ্যালেঞ্জ- আমজাদ হোসেন
বিশ্বের বসবাসের জন্য অযোগ্য শহর ঢাকা কেন?
অবশেষে খুঁজে পাওয়া গেল এলিয়েন?
তৃতীয় লিঙ্গদের আইনি স্বীকৃতি দিল-জার্মান
রাশেদ চৌধুরীকে ফেরত দিতে পারে-ট্রাম্প প্রশাসন
খেলাপি ঋণের বৃত্তে ব্যাংকিং খাত
বাংলাদেশের টিভি চ্যানেলগুলোতে বিদেশি ছবির হিড়িক
জার্মানের নদীতে ভেসে উঠছে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের অস্ত্র-শস্ত্র
জলবায়ু পরিবর্তনে-নিউ ইয়র্ক ও সিডনির কোন দ্বীপে বসতি থাকবে না
পরীক্ষার খাতায় ‘উই ওয়ান্ট জাস্টিস’ লিখলেন শিক্ষার্থীরা!
শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে ফায়দা লুঠতে ব্যস্ত কারা!