ঢাকা, ফেব্রুয়ারী ২১, ২০১৯, ৯ ফাল্গুন ১৪২৫
---
bbc24news.com
প্রথম পাতা » আর্ন্তজাতিক » বছরে ৭ কোটি মানুষ শরণার্থী হচ্ছে-ইইএনএইচসিআর
বুধবার ● ২০ জুন ২০১৮, ৯ ফাল্গুন ১৪২৫
Email this News Print Friendly Version

বছরে ৭ কোটি মানুষ শরণার্থী হচ্ছে-ইইএনএইচসিআর

---বিবিসি২৪নিউজ,আন্তর্জাতিক ডেস্ক: জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক সংস্থা জানিয়েছে, সহিংসতা, যুদ্ধ ও সংঘাতের ফলে বিশ্বে এখন ৬৮ দশমিক ৫ মিলিয়ন, অর্থাৎ ৬ কোটি ৮৫ লক্ষ মানুষ বাস্তুচ্যুত অবস্থায় আছেন৷ বিশ্ব শরণার্থী দিবসের প্রাক্কালে ২০১৭ সালে প্রতি দু’সেকেন্ডে একজন বাস্তুচ্যূত হয়েছেন৷ মিয়ানমার, কঙ্গো প্রজাতন্ত্র এবং সিরিয়া থেকে আরো মানুষ বাসভূমি ছাড়তে বাধ্য হয়েছে৷মঙ্গলবার জাতিসংঘের উদ্বাস্তু বিষয়ক সংস্থা ইইএনএইচসিআর এ কথা জানিয়েছে৷

জাতিসংঘের হিসেব মতে, ২০১৬ সালে সারা বিশ্বে ৬ কোটি ৫৬ লাখ মানুষ ঘরছাড়া হয়েছিল৷ সেবছর মূলত মিয়ানমার থেকেই বেশি মানুষ বাস্তুচ্যুত হয়েছিল৷ এছাড়া দক্ষিণ সুদানে গৃহযুদ্ধ চলছে ২০১৩ সাল থেকে৷ গৃহযুদ্ধের কবলে পড়ে গত কয়েক বছরে দেশটির লাখ লাখ মানুষ ঘরবাড়ি ছেড়ে প্রতিবেশী দেশগুলোতে আশ্রয় নিয়েছে৷

জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক রাষ্ট্রদূত ফিলিপ্পো গ্রান্ডি জানিয়েছেন, এদের মধ্যে বর্তমানে প্রায় ৭০ শতাংশ শরণার্থীই মাত্র ১০ টি দেশের থেকে বাস্তুচ্যূত৷

ইউএনএইচসিআর সদর দপ্তর থেকে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, দক্ষিণ সুদানের পর সিরিয়া সংকটের কারণে গৃহহীনদের সংখ্যা বাড়ছে৷ বিশ্বব্যাপী এসব মানুষের সুরক্ষা জরুরি৷ দক্ষিণ সুদানের পর সিরিয়া, কঙ্গো প্রজাতন্ত্র ও কলম্বিয়ায় অভ্যন্তরীণ যুদ্ধের কারণে প্রতিবেশী দেশগুলোয় আশ্রয় নিচ্ছে হাজার হাজার মানুষ৷ বিশ্বব্যাপী ৪ কোটি শরণার্থী অভ্যন্তরীণভাবে বাস্তুচ্যূত হয়েছে৷ কলম্বিয়া, সিরিয়া এবং কঙ্গো প্রজাতন্ত্র থেকেই বাস্তুচ্যুত হয়েছে সবচেয়ে বেশি৷ এসব দেশে সংঘাত ও দুর্বিষহ দুর্ভোগের কারণে সম্প্রতি সমুদ্রপথেও শরণার্থী বৃদ্ধি পেয়েছে৷

মাত্র পাঁচ থেকে ছ’মিনিটের মধ্যে এভ্রস নদী পার হওয়া যায়৷ নদী ছোট হলেও তাতে স্রোতের কিছু কমতি নেই৷ এককালে স্মাগলাররা এই পথ দিয়ে মাল পাচার করতো৷ উদ্বাস্তুরা সে পথ ধরার পর থেকে এই রুটে দুর্ঘটনা ও প্রাণহানির সংখ্যা লক্ষণীয়ভাবে বেড়েছে৷

এ বিষয়ে গ্রান্ডি বলেন, ‘‘এই ১০টি দেশের সমস্যাগুলোর যদি সমাধান পাওয়া যেত, প্রত্যেক বছর এই বিপুল সংখ্যক শরণার্থী সমস্যা বড়ত না, বরং কমতো৷”

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, গতবছরই ১ কোটি ৬২ লক্ষ মানুষ নতুন করে গৃহহীন হয়েছে৷ এদের মধ্যে যাঁরা প্রথমবার বাধ্য হয়ে ঘর ছেড়েছেন, তাঁরাও যেমন আছেন, তেমনি আছেন যাঁরা ইতিমধ্যে উদ্বাস্তু৷

এর মানে প্রতিদিন ৪৪,৪০০ মানুষ বিতাড়িত হচ্ছে এবং প্রতি দু’সেকেন্ডে ১ জন করে গৃহহীন হচ্ছে৷
বিশ্বব্যাপী নজিরবিহীনভাবে যুদ্ধ, সহিসংতা ও উৎখাতের কারণে প্রতিদিনইরাজনৈতিক আশ্রয় প্রার্থীর সংখ্যা বাড়ছে বলে মনে করা হচ্ছে৷ অন্যান্য দেশে রাজনৈতিক আশ্রয় চেয়ে বিভিন্ন সংস্থার দ্বারে দ্বারে ঘুরছে যুদ্ধবিধ্বস্ত এসব মানুষ৷

আর জাতিসংঘ শরণার্থী কমিশন (ইউএনএইচসিআর) বলছে, ৮৫ শতাংশ শরণার্থী উন্নয়নশীল দেশের, যাঁরা খুবই দরিদ্র৷ এদের অধিকাংশই আফগানিস্তান, দক্ষিণ সুদান, মিয়ানমার, সোমালিয়া, সুদান এবং কঙ্গো থেকে এসেছে৷

ইউরোপের দেশগুলিতে ক্রমবর্ধমান শরণার্থীদের সংখ্যা প্রমাণ করে ২০১৫ এবং ২০১৬ সালে সবমিলিয়ে শরণার্থীর সংখ্যা বেড়েছে৷ তাঁদের আশ্রয়ের আবেদনেরও ধীরে ধীরে প্রক্রিয়া চলছে৷ জার্মানিতেও শরণার্থী ৪৫ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে৷

শরণার্থীদের ফিরে যাওয়ার সংখ্যাটা শতকরা ৩ শতাংশ বেড়েছে মাত্র এক বছরে৷শরণার্থী সংস্থা বলছে, বাস্তুচ্যুত হওয়া ৬৬৭,৪০০ দেশত্যাগী মানুষকে তাদের দেশে ফিরিয়ে নেওয়া হয়েছে৷ ২০১৬ সালে এই সংখ্যাটা ছিল ৫৫২,০০০৷


জাতিসংঘের মানবাধিকার পরিষদ বেরিয়ে আসল- যুক্তরাষ্ট্র

আবারও কমলাপুরে রাজধানীমুখী মানুষের ভিড়


এ বিভাগের আরো খবর...

বাংলাদেশের অগ্নিকান্ডে - মমতার সমবেদনা বাংলাদেশের অগ্নিকান্ডে - মমতার সমবেদনা
এখনই কেমিক্যাল গোডাউন সরানোর কাজ শুরু করা উচিত- আইজিপি এখনই কেমিক্যাল গোডাউন সরানোর কাজ শুরু করা উচিত- আইজিপি
চকবাজারে অগ্নিকাণ্ড: শিক্ষা পেয়েছি, ব্যবস্থা হবে- কাদের চকবাজারে অগ্নিকাণ্ড: শিক্ষা পেয়েছি, ব্যবস্থা হবে- কাদের
অগ্নিকাণ্ডে নিহত শ্রমিকদের জন্য ১ লাখ টাকা দেবে- শ্রম মন্ত্রণালয় অগ্নিকাণ্ডে নিহত শ্রমিকদের জন্য ১ লাখ টাকা দেবে- শ্রম মন্ত্রণালয়
সরকারের ব্যর্থতায় মানুষ অকারণে জীবন হারাচ্ছে- ফকরুল সরকারের ব্যর্থতায় মানুষ অকারণে জীবন হারাচ্ছে- ফকরুল
শহীদ মিনারে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা শহীদ মিনারে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা
চকবাজারে অগ্নিকাণ্ডে মর্মান্তিক ঘটনায় রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শোক চকবাজারে অগ্নিকাণ্ডে মর্মান্তিক ঘটনায় রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শোক
চকবাজারে ভয়াবহ আগুনে নিহত ৭০ চকবাজারে ভয়াবহ আগুনে নিহত ৭০
২ মাসের মধ্যে ৫ হাজার চিকিৎসক নিয়োগ- স্বাস্থ্যমন্ত্রী ২ মাসের মধ্যে ৫ হাজার চিকিৎসক নিয়োগ- স্বাস্থ্যমন্ত্রী
উ. কোরিয়াকে পরমাণু নিরস্ত্রীকরণে তাড়াহুড়োর দরকার নেই: ট্রাম্প উ. কোরিয়াকে পরমাণু নিরস্ত্রীকরণে তাড়াহুড়োর দরকার নেই: ট্রাম্প

সর্বাধিক পঠিত

গেইলের ছক্কার বিশ্বরেকর্ড আফ্রিদিকে ছাড়িয়ে গেইলের ছক্কার বিশ্বরেকর্ড আফ্রিদিকে ছাড়িয়ে
আজহার, সৌরভ, কেউই ক্রিকেট চায় না পাকিস্তানের সঙ্গে আজহার, সৌরভ, কেউই ক্রিকেট চায় না পাকিস্তানের সঙ্গে
শাপলা-শালুক জামদানী শাপলা-শালুক জামদানী
সেন্টমার্টিনে বিপুল পরিমাণ ইয়াবা জব্দ, আটক ১১ সেন্টমার্টিনে বিপুল পরিমাণ ইয়াবা জব্দ, আটক ১১
মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ প্রতিযোগিতার এভ্রিলকে সঙ্গে নিয়ে আসিফ মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ প্রতিযোগিতার এভ্রিলকে সঙ্গে নিয়ে আসিফ
অভিনেতা প্রতীক বব্বর স্ত্রীর সঙ্গে অর্ধনগ্ন ছবি পোষ্ট করে বিপাকে অভিনেতা প্রতীক বব্বর স্ত্রীর সঙ্গে অর্ধনগ্ন ছবি পোষ্ট করে বিপাকে
আমাদের প্রিয় ‘আই আর’…চৌধুরী মনজুর লিয়াকত (রুমি) আমাদের প্রিয় ‘আই আর’…চৌধুরী মনজুর লিয়াকত (রুমি)
কিম কার্দাশিয়ান উন্মুক্ত দেহে ঝড় তুললেন! কিম কার্দাশিয়ান উন্মুক্ত দেহে ঝড় তুললেন!
বাংলাদেশের অগ্নিকান্ডে - মমতার সমবেদনা বাংলাদেশের অগ্নিকান্ডে - মমতার সমবেদনা
এবার ইয়ামিকে দেখা যাবে বিকিনিতে এবার ইয়ামিকে দেখা যাবে বিকিনিতে
প্রধানমন্ত্রীর জার্মানি সফর উন্নয়ন- কূটনৈতিক সম্পর্ক জোরদার হবে!
খেলাপি ঋণে ‘জিরো টলারেন্স’ চাই
৫ জনই ছাত্রলীগ-যুবলীগ নেতা
দুর্নীতির বিরুদ্ধে প্রকৃত অর্থেই নিতে হবে জিরো টলারেন্স
বেআইনি ব্যাংকিং কার্যক্রমের বিরুদ্ধে বহুমুখী পদক্ষেপ নিন
খাদ্যে অতিরিক্ত ট্রান্সফ্যাটের কারণে, প্রতি বছর বিশ্বে পাঁচ লাখ মানুষের মৃত্যু হয়
স্বাধীনতার পর প্রথমবার ‘মন্ত্রীশূন্য’ কিশোরগঞ্জ
মন চুরির অভিযোগ পুলিশের কাছে!
সৈয়দ আশরাফ যে কবরে সমাহিত হবেন
ব্যবসায়ীদের বিনিয়োগের বাধা দূর করতে হবে?