ঢাকা, নভেম্বর ১৮, ২০১৮, ৪ অগ্রহায়ন ১৪২৫
---
bbc24news.com
প্রথম পাতা » আর্ন্তজাতিক » বছরে ৭ কোটি মানুষ শরণার্থী হচ্ছে-ইইএনএইচসিআর
বুধবার ● ২০ জুন ২০১৮, ৪ অগ্রহায়ন ১৪২৫
Email this News Print Friendly Version

বছরে ৭ কোটি মানুষ শরণার্থী হচ্ছে-ইইএনএইচসিআর

---বিবিসি২৪নিউজ,আন্তর্জাতিক ডেস্ক: জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক সংস্থা জানিয়েছে, সহিংসতা, যুদ্ধ ও সংঘাতের ফলে বিশ্বে এখন ৬৮ দশমিক ৫ মিলিয়ন, অর্থাৎ ৬ কোটি ৮৫ লক্ষ মানুষ বাস্তুচ্যুত অবস্থায় আছেন৷ বিশ্ব শরণার্থী দিবসের প্রাক্কালে ২০১৭ সালে প্রতি দু’সেকেন্ডে একজন বাস্তুচ্যূত হয়েছেন৷ মিয়ানমার, কঙ্গো প্রজাতন্ত্র এবং সিরিয়া থেকে আরো মানুষ বাসভূমি ছাড়তে বাধ্য হয়েছে৷মঙ্গলবার জাতিসংঘের উদ্বাস্তু বিষয়ক সংস্থা ইইএনএইচসিআর এ কথা জানিয়েছে৷

জাতিসংঘের হিসেব মতে, ২০১৬ সালে সারা বিশ্বে ৬ কোটি ৫৬ লাখ মানুষ ঘরছাড়া হয়েছিল৷ সেবছর মূলত মিয়ানমার থেকেই বেশি মানুষ বাস্তুচ্যুত হয়েছিল৷ এছাড়া দক্ষিণ সুদানে গৃহযুদ্ধ চলছে ২০১৩ সাল থেকে৷ গৃহযুদ্ধের কবলে পড়ে গত কয়েক বছরে দেশটির লাখ লাখ মানুষ ঘরবাড়ি ছেড়ে প্রতিবেশী দেশগুলোতে আশ্রয় নিয়েছে৷

জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক রাষ্ট্রদূত ফিলিপ্পো গ্রান্ডি জানিয়েছেন, এদের মধ্যে বর্তমানে প্রায় ৭০ শতাংশ শরণার্থীই মাত্র ১০ টি দেশের থেকে বাস্তুচ্যূত৷

ইউএনএইচসিআর সদর দপ্তর থেকে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, দক্ষিণ সুদানের পর সিরিয়া সংকটের কারণে গৃহহীনদের সংখ্যা বাড়ছে৷ বিশ্বব্যাপী এসব মানুষের সুরক্ষা জরুরি৷ দক্ষিণ সুদানের পর সিরিয়া, কঙ্গো প্রজাতন্ত্র ও কলম্বিয়ায় অভ্যন্তরীণ যুদ্ধের কারণে প্রতিবেশী দেশগুলোয় আশ্রয় নিচ্ছে হাজার হাজার মানুষ৷ বিশ্বব্যাপী ৪ কোটি শরণার্থী অভ্যন্তরীণভাবে বাস্তুচ্যূত হয়েছে৷ কলম্বিয়া, সিরিয়া এবং কঙ্গো প্রজাতন্ত্র থেকেই বাস্তুচ্যুত হয়েছে সবচেয়ে বেশি৷ এসব দেশে সংঘাত ও দুর্বিষহ দুর্ভোগের কারণে সম্প্রতি সমুদ্রপথেও শরণার্থী বৃদ্ধি পেয়েছে৷

মাত্র পাঁচ থেকে ছ’মিনিটের মধ্যে এভ্রস নদী পার হওয়া যায়৷ নদী ছোট হলেও তাতে স্রোতের কিছু কমতি নেই৷ এককালে স্মাগলাররা এই পথ দিয়ে মাল পাচার করতো৷ উদ্বাস্তুরা সে পথ ধরার পর থেকে এই রুটে দুর্ঘটনা ও প্রাণহানির সংখ্যা লক্ষণীয়ভাবে বেড়েছে৷

এ বিষয়ে গ্রান্ডি বলেন, ‘‘এই ১০টি দেশের সমস্যাগুলোর যদি সমাধান পাওয়া যেত, প্রত্যেক বছর এই বিপুল সংখ্যক শরণার্থী সমস্যা বড়ত না, বরং কমতো৷”

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, গতবছরই ১ কোটি ৬২ লক্ষ মানুষ নতুন করে গৃহহীন হয়েছে৷ এদের মধ্যে যাঁরা প্রথমবার বাধ্য হয়ে ঘর ছেড়েছেন, তাঁরাও যেমন আছেন, তেমনি আছেন যাঁরা ইতিমধ্যে উদ্বাস্তু৷

এর মানে প্রতিদিন ৪৪,৪০০ মানুষ বিতাড়িত হচ্ছে এবং প্রতি দু’সেকেন্ডে ১ জন করে গৃহহীন হচ্ছে৷
বিশ্বব্যাপী নজিরবিহীনভাবে যুদ্ধ, সহিসংতা ও উৎখাতের কারণে প্রতিদিনইরাজনৈতিক আশ্রয় প্রার্থীর সংখ্যা বাড়ছে বলে মনে করা হচ্ছে৷ অন্যান্য দেশে রাজনৈতিক আশ্রয় চেয়ে বিভিন্ন সংস্থার দ্বারে দ্বারে ঘুরছে যুদ্ধবিধ্বস্ত এসব মানুষ৷

আর জাতিসংঘ শরণার্থী কমিশন (ইউএনএইচসিআর) বলছে, ৮৫ শতাংশ শরণার্থী উন্নয়নশীল দেশের, যাঁরা খুবই দরিদ্র৷ এদের অধিকাংশই আফগানিস্তান, দক্ষিণ সুদান, মিয়ানমার, সোমালিয়া, সুদান এবং কঙ্গো থেকে এসেছে৷

ইউরোপের দেশগুলিতে ক্রমবর্ধমান শরণার্থীদের সংখ্যা প্রমাণ করে ২০১৫ এবং ২০১৬ সালে সবমিলিয়ে শরণার্থীর সংখ্যা বেড়েছে৷ তাঁদের আশ্রয়ের আবেদনেরও ধীরে ধীরে প্রক্রিয়া চলছে৷ জার্মানিতেও শরণার্থী ৪৫ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে৷

শরণার্থীদের ফিরে যাওয়ার সংখ্যাটা শতকরা ৩ শতাংশ বেড়েছে মাত্র এক বছরে৷শরণার্থী সংস্থা বলছে, বাস্তুচ্যুত হওয়া ৬৬৭,৪০০ দেশত্যাগী মানুষকে তাদের দেশে ফিরিয়ে নেওয়া হয়েছে৷ ২০১৬ সালে এই সংখ্যাটা ছিল ৫৫২,০০০৷


জাতিসংঘের মানবাধিকার পরিষদ বেরিয়ে আসল- যুক্তরাষ্ট্র

আবারও কমলাপুরে রাজধানীমুখী মানুষের ভিড়


এ বিভাগের আরো খবর...

শীর্ষ বৈঠকের সমাপ্তি ঘোষণা প্রকাশে ব্যর্থ- এপেক শীর্ষ বৈঠকের সমাপ্তি ঘোষণা প্রকাশে ব্যর্থ- এপেক
আগামী বছর উত্তর কোরিয়া সফরে যাবেন-শি জিন পিং আগামী বছর উত্তর কোরিয়া সফরে যাবেন-শি জিন পিং
শিগগিরই খাসোগি হত্যাকারীদের নাম জানাবে- আমেরিকা শিগগিরই খাসোগি হত্যাকারীদের নাম জানাবে- আমেরিকা
মিয়ানমারে রোহিঙ্গা শিবিরে পুলিশের অভিযান মিয়ানমারে রোহিঙ্গা শিবিরে পুলিশের অভিযান
এবার কোথাও থার্টি ফার্স্ট নাইট পালন করা যাবে না- স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এবার কোথাও থার্টি ফার্স্ট নাইট পালন করা যাবে না- স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
তারেক এর ভিডিও কনফারেন্স বিএনপির অভ্যন্তরীণ বিষয়- ফকরুল তারেক এর ভিডিও কনফারেন্স বিএনপির অভ্যন্তরীণ বিষয়- ফকরুল
পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ: সোহাগ গ্রেফতার পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ: সোহাগ গ্রেফতার
সাজার রায়ের বিরুদ্ধে খালেদার আপিল সাজার রায়ের বিরুদ্ধে খালেদার আপিল
কক্সবাজারের সুনাম ক্ষুণ্ন হচ্ছে- আইজিপি কক্সবাজারের সুনাম ক্ষুণ্ন হচ্ছে- আইজিপি
আব্বাস দম্পতির আগাম জামিন আব্বাস দম্পতির আগাম জামিন

সর্বাধিক পঠিত

বাণিজ্যযুদ্ধের প্রস্তুতি নিতে হবে বাংলাদেশকে বাণিজ্যযুদ্ধের প্রস্তুতি নিতে হবে বাংলাদেশকে
শীর্ষ বৈঠকের সমাপ্তি ঘোষণা প্রকাশে ব্যর্থ- এপেক শীর্ষ বৈঠকের সমাপ্তি ঘোষণা প্রকাশে ব্যর্থ- এপেক
আগামী বছর উত্তর কোরিয়া সফরে যাবেন-শি জিন পিং আগামী বছর উত্তর কোরিয়া সফরে যাবেন-শি জিন পিং
শিগগিরই খাসোগি হত্যাকারীদের নাম জানাবে- আমেরিকা শিগগিরই খাসোগি হত্যাকারীদের নাম জানাবে- আমেরিকা
বগুড়ায় মেলায় বিশালাকৃতির মাছের পসরা বসেছে বগুড়ায় মেলায় বিশালাকৃতির মাছের পসরা বসেছে
ভারতে স্বর্ণের চাহিদা বেড়েছে ১৭.৪ টন ভারতে স্বর্ণের চাহিদা বেড়েছে ১৭.৪ টন
টেস্টে ক্যাপ্টেন হওয়ার পর ধোনির কৃর্তী ফাঁস করলেন লক্ষ্মণ! টেস্টে ক্যাপ্টেন হওয়ার পর ধোনির কৃর্তী ফাঁস করলেন লক্ষ্মণ!
চিলিতে তামা উৎপাদন ৭.৩% চিলিতে তামা উৎপাদন ৭.৩%
মিয়ানমারে রোহিঙ্গা শিবিরে পুলিশের অভিযান মিয়ানমারে রোহিঙ্গা শিবিরে পুলিশের অভিযান
“জীবনের শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত বঙ্গবন্ধুর আদর্শ নিয়ে বাঁচতে চাই” “জীবনের শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত বঙ্গবন্ধুর আদর্শ নিয়ে বাঁচতে চাই”
নির্বাচনে সবার অংশগ্রহণ-গণতন্ত্রের জন্য ইতিবাচক
বহুল প্রত্যাশিত সংলাপে কি ছিল?
একটি অর্থবহ ও সফল সংলাপের প্রত্যাশা করছি
শেখ হাসিনা বার্ন ইন্সটিটিউটের: প্রত্যাশিত স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত হবে কি?
নদীশাসনের দুর্বলতা বিঘ্নিত হচ্ছে নৌপথে চলাচল
শিল্পে গ্যাস সংযোগ না দেওয়া, আর্থিক ক্ষতির মুখে-সরকার
গুদামের খাদ্যদ্রব্য পাচারে-সক্রিয় চোর সিন্ডিকেট
প্যারিস জলবায়ু চুক্তি ৩০০ পৃষ্ঠার খসড়া অনুমোদন করেছে-ব্যাংকক
সড়ক শৃঙ্খলা-মূল সমস্যাটা রাজনীতিতেই: কাদের
বিশ্বের ভয়াবহ আবহাওয়া নিয়ে প্রযুক্তিগত আলোচনা চলছে