ঢাকা, নভেম্বর ১৮, ২০১৮, ৪ অগ্রহায়ন ১৪২৫
---
bbc24news.com
প্রথম পাতা » জেলার খবর » পদ্মায় ভাঙন তীব্র আকার ধারণ করছে
শনিবার ● ৭ জুলাই ২০১৮, ৪ অগ্রহায়ন ১৪২৫
Email this News Print Friendly Version

পদ্মায় ভাঙন তীব্র আকার ধারণ করছে

---বিবিসি২৪নিউজ,শরীয়তপুর প্রতিনিধি:শরীয়তপুরের নড়িয়া ও জাজিরা উপজেলায় পদ্মায় ভাঙন দেখা দিয়েছে। দিন যত পার হচ্ছে বিস্তীর্ণ এলাকা জুড়ে ভাঙন ততই তীব্র আকার ধারণ করছে। ভাঙনে দিশেহারা মানুষগুলো নির্ঘুম রাত কাটাচ্ছেন। তাই ভাঙন প্রতিরোধে সরকারের কাছে দ্রুত বেড়িবাঁধের দাবি জানিয়েছেন এলাকাবাসী।এদিকে ভাঙনে নদী গর্ভে বিলীন হচ্ছে ফসলি জমি ও ঘরবাড়ি। নদী পাড়ের বাসিন্দারা তাদের ঘরবাড়ি অন্যত্র সরিয়ে নেয়ার কাজ করছেন। এমনকি রাস্তাঘাট, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, হাসপাতাল, মাদরাসা, মসজিদও হুমকির মুখে রয়েছে।গত দুই সপ্তাহ ধরে পদ্মা নদীর ডান তীর নড়িয়ার বাঁশতলা এলাকায় হঠাৎ করে তীব্র ভাঙন দেখা দিয়েছে। এতে নড়িয়ার বিলাসপুর, পাচুখারকান্দি, ইশ্বরকাঠি, বাঁশতলা, মুলফৎগঞ্জ, সাধুরবাজার গ্রামে কয়েকশ মিটার ভেঙে নদী গর্ভে বিলিন হয়েছে। ভাঙতে শুরু করেছে সুরেশ্বর, চরমহন, হালসার, মূলপাড়া, কেদারপুর, চর নড়িয়া, সাহেবের চর, পূর্ব নড়িয়া, পাঁচগাও, চর জাজিরা, মাদবর কান্দি ও শেরআলী কান্দী। এতে পদ্মা পাড়ের এলাকার লোকজন আতঙ্কিত হয়ে পড়েছে।গত দুই বছরে পদ্মার অব্যাহত ভাঙনে শরীয়তপুরের নড়িয়া ও জাজিরা উপজেলার প্রায় ৭ হাজার পরিবার গৃহহীন হয়েছে। পানি উন্নয়ন বোর্ডের তথ্যানুযায়ী বর্তমানে ভাঙনের হুমকিতে রয়েছে ৮ হাজার বসত বাড়ি, ১৮৫ কিলোমিটার সড়ক, ১ কিলোমিটার সুরেশ্বর রক্ষা বাঁধ, ২২টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, ৫৫ মসজিদ মাদরাসাসহ প্রায় ৩ হাজার ৪২৫ কোটি টাকার সম্পদ।

এ ক্ষতি এড়াতে নড়িয়া-জাজিরা উপজেলার পদ্মা নদীর ডান তীর রক্ষা প্রকল্প নামে একটি প্রকল্প গত ২ জানুয়ারি অনুমোদন দেয় জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক)। ১ হাজার ৯৭ কোটি টাকার এ প্রকল্পের আওতায় দুই উপজেলায় ৯ কিলোমিটার এলাকায় বাঁধ ও চর ড্রেজিং করা হবে।কিন্তু এ বিষয়ে শরীয়তপুর পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তারা বলছেন, একনেকে অনুমোদিত প্রকল্প বাস্তবায়নের অগ্রগতি বর্তমানের আমলাতান্ত্রিক জটিলতায় আটকে আছে। তবে জরুরি ভিত্তিতে ঝুঁকিপূর্ণ জায়গাগুলোতে অস্থায়ী ভাবে ভাঙন প্রতিরোধের চেষ্টা চালানো হবে বলে জানান তারা।

মূলপাড়া গ্রামের আব্দুল গণি ছৈয়াল ও বাঁশতলা গ্রামের আলমগীর হোসেন আলম বলেন, প্রতি বছরের মতো এ বছরও ভাঙন দেখা দিয়েছে। জানি না ভিটেমাটি নিয়ে এ বছর থাকতে পারবো কিনা। বর্ষার শুরুতেই ভাঙন শুরু হওয়ায় ভয় হচ্ছে।নড়িয়া পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর বাঁশতলা গ্রামের আব্দুল লতিফ বেপারী বলেন, অব্যাহত ভাঙনে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন ভুক্তভোগী পরিবারগুলো।

কেদারপুর ইউনিয়ন পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান হাফেজ সানাউল্লাহ্ বলেন, নদী ভাঙনের ভয়াবহতা এতো বেশি যে প্রতিদিনই কোনো না কোনো বাড়ি অথবা স্থাপনা নদীতে চলে যাচ্ছে। এই বিষয়ে ঊর্ধ্বতন মহলকে জানিয়েও কোনো লাভ হচ্ছে না।

তিনি বলেন, যেভাবে ভাঙছে তাতে নড়িয়া উপজেলাটিই কিছু দিনের মধ্যে শরীয়তপুরের মানচিত্র থেকে হারিয়ে যাবে।শরীয়তপুর পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপবিভাগীয় প্রকৌশলী মো. তারেক হাসান বলেন, ভাঙন শুরুর বিষয়টি ঊধ্বর্তন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে। জরুরি ভিত্তিতে ঝুঁকিপূর্ণ জায়গাগুলোতে অস্থায়ীভাবে ভাঙন প্রতিরোধের চেষ্টা চালানো হবে।


কেয়া কসমেটিকসের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা বিএসইসির

ক্যামেরুনে যাত্রীবাহী বাস নদীতে পড়ে নিহত ২৮


এ বিভাগের আরো খবর...

বগুড়ায় মেলায় বিশালাকৃতির মাছের পসরা বসেছে বগুড়ায় মেলায় বিশালাকৃতির মাছের পসরা বসেছে
“জীবনের শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত বঙ্গবন্ধুর আদর্শ নিয়ে বাঁচতে চাই” “জীবনের শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত বঙ্গবন্ধুর আদর্শ নিয়ে বাঁচতে চাই”
বাগেরহাট যেন এখন ‘এমপি-হাট’ ৯৩ প্রার্থীর মনোনয়নপত্র সংগ্রহ! বাগেরহাট যেন এখন ‘এমপি-হাট’ ৯৩ প্রার্থীর মনোনয়নপত্র সংগ্রহ!
আচল এখন গোয়েন্দা পুলিশ! আচল এখন গোয়েন্দা পুলিশ!
চলচ্চিত্র পরিচালক আমজাদ হোসেন ইমপালস হাসপাতালে লাইফ সাপোর্টে আছেন চলচ্চিত্র পরিচালক আমজাদ হোসেন ইমপালস হাসপাতালে লাইফ সাপোর্টে আছেন
আশরাফুলের প্রতি আগ্রহ নেই কোন দলের আশরাফুলের প্রতি আগ্রহ নেই কোন দলের
আইপিএল ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলো লিটনকে নিয়ে টানাটানি! আইপিএল ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলো লিটনকে নিয়ে টানাটানি!
না ফেরার দেশে চলে গেলেন সম্পাদক শাহরিয়ার শহীদ না ফেরার দেশে চলে গেলেন সম্পাদক শাহরিয়ার শহীদ
টিভিতে আজেকর যত খেলা টিভিতে আজেকর যত খেলা
ক্যারিবীয়রের বিপক্ষে নেই তামিম দলে ফিরেছেন সাকিব ক্যারিবীয়রের বিপক্ষে নেই তামিম দলে ফিরেছেন সাকিব

সর্বাধিক পঠিত

বাণিজ্যযুদ্ধের প্রস্তুতি নিতে হবে বাংলাদেশকে বাণিজ্যযুদ্ধের প্রস্তুতি নিতে হবে বাংলাদেশকে
শীর্ষ বৈঠকের সমাপ্তি ঘোষণা প্রকাশে ব্যর্থ- এপেক শীর্ষ বৈঠকের সমাপ্তি ঘোষণা প্রকাশে ব্যর্থ- এপেক
আগামী বছর উত্তর কোরিয়া সফরে যাবেন-শি জিন পিং আগামী বছর উত্তর কোরিয়া সফরে যাবেন-শি জিন পিং
শিগগিরই খাসোগি হত্যাকারীদের নাম জানাবে- আমেরিকা শিগগিরই খাসোগি হত্যাকারীদের নাম জানাবে- আমেরিকা
বগুড়ায় মেলায় বিশালাকৃতির মাছের পসরা বসেছে বগুড়ায় মেলায় বিশালাকৃতির মাছের পসরা বসেছে
ভারতে স্বর্ণের চাহিদা বেড়েছে ১৭.৪ টন ভারতে স্বর্ণের চাহিদা বেড়েছে ১৭.৪ টন
টেস্টে ক্যাপ্টেন হওয়ার পর ধোনির কৃর্তী ফাঁস করলেন লক্ষ্মণ! টেস্টে ক্যাপ্টেন হওয়ার পর ধোনির কৃর্তী ফাঁস করলেন লক্ষ্মণ!
চিলিতে তামা উৎপাদন ৭.৩% চিলিতে তামা উৎপাদন ৭.৩%
মিয়ানমারে রোহিঙ্গা শিবিরে পুলিশের অভিযান মিয়ানমারে রোহিঙ্গা শিবিরে পুলিশের অভিযান
“জীবনের শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত বঙ্গবন্ধুর আদর্শ নিয়ে বাঁচতে চাই” “জীবনের শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত বঙ্গবন্ধুর আদর্শ নিয়ে বাঁচতে চাই”
নির্বাচনে সবার অংশগ্রহণ-গণতন্ত্রের জন্য ইতিবাচক
বহুল প্রত্যাশিত সংলাপে কি ছিল?
একটি অর্থবহ ও সফল সংলাপের প্রত্যাশা করছি
শেখ হাসিনা বার্ন ইন্সটিটিউটের: প্রত্যাশিত স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত হবে কি?
নদীশাসনের দুর্বলতা বিঘ্নিত হচ্ছে নৌপথে চলাচল
শিল্পে গ্যাস সংযোগ না দেওয়া, আর্থিক ক্ষতির মুখে-সরকার
গুদামের খাদ্যদ্রব্য পাচারে-সক্রিয় চোর সিন্ডিকেট
প্যারিস জলবায়ু চুক্তি ৩০০ পৃষ্ঠার খসড়া অনুমোদন করেছে-ব্যাংকক
সড়ক শৃঙ্খলা-মূল সমস্যাটা রাজনীতিতেই: কাদের
বিশ্বের ভয়াবহ আবহাওয়া নিয়ে প্রযুক্তিগত আলোচনা চলছে