ঢাকা, সেপ্টেম্বর ২৫, ২০১৮, ১০ আশ্বিন ১৪২৫
---
bbc24news.com
প্রথম পাতা » বিশেষ প্রতিবেদন » আমদানি প্রাধান্যে গ্যাস বিদ্যুতের দাম বাড়ছে!
বুধবার ● ১১ জুলাই ২০১৮, ১০ আশ্বিন ১৪২৫
Email this News Print Friendly Version

আমদানি প্রাধান্যে গ্যাস বিদ্যুতের দাম বাড়ছে!

---বিবিসি২৪নিউজ,বিশেষ প্রতিনিধি:আমদানিনির্ভর পরিকল্পনা বাস্তবায়নে নতুন গ্যাসক্ষেত্র আবিষ্কার ও উৎপাদন না করে জ্বালানির কৃত্রিম সংকট তৈরি করা হয়েছে। সংকট মেটাতে আমদানি করা হচ্ছে তরলীকৃত প্রাকৃতিক গ্যাস (এলএনজি) ও তরলীকৃত পেট্রোলিয়াম গ্যাস (এলপিজি)। ফলে ক্রমাগত বৃদ্ধি পাচ্ছে জ্বালানির দাম। এ মহাপরিকল্পনা সংশোধন না করা হলে জ্বালানির মূল্য বাড়তেই থাকবে।গতকাল তেল-গ্যাস-খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির এক আলোচনা সভায় বক্তারা এসব কথা বলেন। রাজধানীর পুরানা পল্টনে মুক্তি ভবনে অনুষ্ঠিত এ সভায় সভাপতিত্ব করেন শিক্ষক, অর্থনীতিবিদ ও গবেষক আনু মুহাম্মদ। ‘গ্যাস-বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধি: জাতীয় স্বার্থবিরোধী মহাপরিকল্পনা ও এলএনজির ওপর নির্ভরতা’ শীর্ষক এ আলোচনায় মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক মোশাহিদা সুলতানা। মূল প্রবন্ধে বলা হয়, যুক্তরাষ্ট্রের জরিপ বলছে বাংলাদেশে মোট গ্যাস মজুদের পরিমাণ ৩৫ ট্রিলিয়ন ঘনফুট। আর দেশের ভূতাত্ত্বিক জরিপের প্রতিবেদন বলছে তা ৪১ ট্রিলিয়ন ঘনফুট। এখন পর্যন্ত ব্যবহার শেষে যে গ্যাস আছে, তাতে আগামী ২০৪০ সাল পর্যন্ত গ্যাসের সংকট দেখা দেয়ার কথা নয়। কিন্তু এসব গ্যাস উত্তোলনের ব্যবস্থা না করে সংকটের কথা বলে এলএনজি আমদানি করছে সরকার, যা দেশীয় গ্যাসের চেয়ে তিন থেকে চার গুণ ব্যয়বহুল।

অধ্যাপক ড. আনু মুহাম্মদ বলেন, বিদ্যুৎ-জ্বালানি সরবরাহে বিশেষ আইন নামে পরিচিত দায়মুক্তি আইনের মাধ্যমে দেশের জ্বালানি খাতকে ধ্বংস করা হয়েছে। এ আইনের আশ্রয় নিয়ে বিদ্যুৎ খাতের অর্থ লুটপাট হচ্ছে। গ্যাস উন্নয়ন তহবিলের টাকা দিয়ে বাপেক্সকে শক্তিশালী করার কথা ছিল। তা না করে ওই টাকায় বিদেশী কোম্পানিকে ভাড়া করা হচ্ছে, যারা একটি শূন্য কূপ খনন করে ২০০ কোটি টাকা নিয়ে গেছে। এভাবে পুরো অর্থনীতিকে ধ্বংস করা হয়েছে। দায়মুক্তি আইন না থাকলে সরকার আদালতে আটকে যেত বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

সভায় বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির (সিপিবি) কেন্দ্রীয় নেতা রুহিন হোসেন প্রিন্স বলেন, ২০১৭ সালে দুই দফায় গ্যাসের দাম বাড়ানো হয়েছে ২২ শতাংশ। এ বছর দাম আরো ৩০ শতাংশ বাড়ানোর প্রস্তুতি চলছে। এতে বিদ্যুতের দাম বাড়বে, বাড়িভাড়া বাড়বে। দৈনন্দিন জীবনে বড় ধরনের চাপ দেখা দেবে।বক্তারা বলেন, গত ১০ বছরে কোনো নতুন ক্ষেত্র থেকে গ্যাস উত্তোলনে উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি হয়নি। বাপেক্সের পাঁচ বছর মেয়াদি পরিকল্পনার অর্ধেক সময় চলে গেলেও ১০৮টির মধ্যে কূপ খনন হয়েছে মাত্র আটটি। তাড়াহুড়ো করে এতগুলো কূপ খননের পরিকল্পনা বাস্তবায়নযোগ্য নয় বলেও তারা মন্তব্য করেন।


পাকিস্তানে আত্মঘাতী বোমা হামলায় নিহত ১৪!

নির্বাচনে অনিয়মে চার কর্মকর্তাকে ডাকা হচ্ছে ইসিতে


এ বিভাগের আরো খবর...

যাদের কথা ও কাজে মিল রয়েছে, তাদের ভোট দেবেন: রাষ্ট্রপতি যাদের কথা ও কাজে মিল রয়েছে, তাদের ভোট দেবেন: রাষ্ট্রপতি
জাতিসংঘে রোহিঙ্গা সঙ্কট অবসানে প্রধানমন্ত্রীর ৩ প্রস্তাব জাতিসংঘে রোহিঙ্গা সঙ্কট অবসানে প্রধানমন্ত্রীর ৩ প্রস্তাব
‘বৈশ্বিক শরণার্থী বিষয় জাতিসংঘে রোহিঙ্গা সঙ্কট সমাধানে প্রধানমন্ত্রীর প্রস্তাব ‘বৈশ্বিক শরণার্থী বিষয় জাতিসংঘে রোহিঙ্গা সঙ্কট সমাধানে প্রধানমন্ত্রীর প্রস্তাব
ভারতের সঙ্গে বাণিজ্য চান ইমরান খান ভারতের সঙ্গে বাণিজ্য চান ইমরান খান
সৌদির কাছে অবশ্যই অস্ত্র বিক্রি বন্ধ করতে হবে- জেরেমি সৌদির কাছে অবশ্যই অস্ত্র বিক্রি বন্ধ করতে হবে- জেরেমি
সন্ত্রাসী হামলায় জড়িতদের কঠোর শাস্তি দেওয়া হবে- ইরান সন্ত্রাসী হামলায় জড়িতদের কঠোর শাস্তি দেওয়া হবে- ইরান
২৯ সেপ্টেম্বর নাট্যমঞ্চে নাগরিক সমাবেশ করবে- আ’ লীগ ২৯ সেপ্টেম্বর নাট্যমঞ্চে নাগরিক সমাবেশ করবে- আ’ লীগ
সরকারি হলো নতুন ৪৩ মাধ্যমিক বিদ্যালয় সরকারি হলো নতুন ৪৩ মাধ্যমিক বিদ্যালয়
পরিচ্ছন্নতায় ভারতকে ডিঙিয়ে বাংলাদেশের রেকর্ড পরিচ্ছন্নতায় ভারতকে ডিঙিয়ে বাংলাদেশের রেকর্ড
৪ অক্টোবর ভাসান চর যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী ৪ অক্টোবর ভাসান চর যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী

সর্বাধিক পঠিত

৫০ কোটি টাকায় ‘মাসুদ রানা’ সিনেমা! ৫০ কোটি টাকায় ‘মাসুদ রানা’ সিনেমা!
বর্ষসেরা খেলোয়াড় হতে পারেননি রোনালদো বর্ষসেরা খেলোয়াড় হতে পারেননি রোনালদো
যাদের কথা ও কাজে মিল রয়েছে, তাদের ভোট দেবেন: রাষ্ট্রপতি যাদের কথা ও কাজে মিল রয়েছে, তাদের ভোট দেবেন: রাষ্ট্রপতি
জাতিসংঘে রোহিঙ্গা সঙ্কট অবসানে প্রধানমন্ত্রীর ৩ প্রস্তাব জাতিসংঘে রোহিঙ্গা সঙ্কট অবসানে প্রধানমন্ত্রীর ৩ প্রস্তাব
‘বৈশ্বিক শরণার্থী বিষয় জাতিসংঘে রোহিঙ্গা সঙ্কট সমাধানে প্রধানমন্ত্রীর প্রস্তাব ‘বৈশ্বিক শরণার্থী বিষয় জাতিসংঘে রোহিঙ্গা সঙ্কট সমাধানে প্রধানমন্ত্রীর প্রস্তাব
ভারতের সঙ্গে বাণিজ্য চান ইমরান খান ভারতের সঙ্গে বাণিজ্য চান ইমরান খান
ট্রাম্পের দাবি নাকচ করেছে- ওপেক ট্রাম্পের দাবি নাকচ করেছে- ওপেক
সৌদির কাছে অবশ্যই অস্ত্র বিক্রি বন্ধ করতে হবে- জেরেমি সৌদির কাছে অবশ্যই অস্ত্র বিক্রি বন্ধ করতে হবে- জেরেমি
সন্ত্রাসী হামলায় জড়িতদের কঠোর শাস্তি দেওয়া হবে- ইরান সন্ত্রাসী হামলায় জড়িতদের কঠোর শাস্তি দেওয়া হবে- ইরান
২৯ সেপ্টেম্বর নাট্যমঞ্চে নাগরিক সমাবেশ করবে- আ’ লীগ ২৯ সেপ্টেম্বর নাট্যমঞ্চে নাগরিক সমাবেশ করবে- আ’ লীগ
শিল্পে গ্যাস সংযোগ না দেওয়া, আর্থিক ক্ষতির মুখে-সরকার
গুদামের খাদ্যদ্রব্য পাচারে-সক্রিয় চোর সিন্ডিকেট
প্যারিস জলবায়ু চুক্তি ৩০০ পৃষ্ঠার খসড়া অনুমোদন করেছে-ব্যাংকক
সড়ক শৃঙ্খলা-মূল সমস্যাটা রাজনীতিতেই: কাদের
বিশ্বের ভয়াবহ আবহাওয়া নিয়ে প্রযুক্তিগত আলোচনা চলছে
রোহিঙ্গা প্রশ্নে চীন-রাশিয়াকে-জাতিসংঘের কড়া হুুশিয়ারি!
খালেদা জিয়ার জামিন বহাল
বিমসটেক শীর্ষ সম্মেলনে নেপালে প্রধানমন্ত্রী
আওয়ামী লীগের জন্য যা পেয়েছি তা ভয়ংকর!
‘ট্যঁর দ্যে ফ্যাম’ রিপোর্ট: জার্মানিতে যৌনাঙ্গচ্ছেদে শিকার-৬৫হাজার নারী