ঢাকা, ডিসেম্বর ১৮, ২০১৮, ৪ পৌষ ১৪২৫
---
bbc24news.com
প্রথম পাতা » আর্ন্তজাতিক » সুইডেনে অভিবাসন কঠিন হচ্ছে?
রবিবার ● ২৯ জুলাই ২০১৮, ৪ পৌষ ১৪২৫
Email this News Print Friendly Version

সুইডেনে অভিবাসন কঠিন হচ্ছে?

---বিবিসি২৪নিউজ,আন্তর্জাতিক ডেস্ক:প্রচলিত ভাবেই সুইডেন খুব সহনশীল একটা দেশ কিন্তু এখন পরিস্থিতি পাল্টেছে।গত সেপ্টেম্বরে দেশটির সাধারণ নির্বাচনে অভিবাসনই ছিলো গুরুত্বপূর্ণ ইস্যু।
অভিবাসন বিরোধী সুইডেন ডেমোক্রেটদের সমর্থন বেড়ে ২২ দশমিক ৪ শতাংশে দাড়ায়, যেখানে আগের নির্বাচনে ২০১৪ সাল তাদের সমর্থন ছিলো প্রায় ১৩ শতাংশের মতো।

বেশির ভাগ দলই আরও অভিবাসীকে ফেরত পাঠাতে চায়। তারা সীমান্ত বন্ধ করে দিতে চায়। তারা অভিবাসীদের জন্য নীতি আরও কঠিন করে দিতে চায়। যেহেতু এসব অভিবাসীদের বাসাবাড়ি নেই তাই তাদের গোপন স্থানে চলে যেতে হয় ও পালিয়ে থাকতে হয়।২০১৫ সালে অভিবাসন সংকটের জের ধরে আশ্রয়প্রার্থীর সংখ্যা রেকর্ড পরিমাণ বেড়ে যায়।

সু্ই‌ডেনও সীমান্তে কড়াকড়ি শুরু করে। আশ্রয় প্রার্থীদের একটা বড় অংশের আবেদনও প্রত্যাখ্যান করতে শুরু করে দেশটি।আলী নামে এই যুবকের আবেদন প্রত্যাখ্যাত হয় তিনবার, এখন তাকে জোর করে দেশে পাঠিয়ে দেয়া হতে পারে।

“সবাই জানে সেখানে একটি যুদ্ধ চলছে এবং প্রতিদিনই তালিবানরা সেখানে বিস্ফোরণ ঘটাচ্ছে। লোকজন খুন হচ্ছে প্রতিনিয়ত। কোন নিরাপত্তাই নেই। এখানে সুইডেনে যেকোনো মানুষই কিছু একটা হতে পারে-একজন ভালো মানুষ কিংবা পড়াশোনায়। আমি এখানে স্কুলে যেতে পারি। আমি যে কোনো ধরনের পোশাক পড়তে পারি। ইচ্ছে মতো যে কোনো ধর্মও আমি পালন করতে পারি”।

কিন্তু দেখা গেছে ২০১৭ সাল থেকে আফগান আশ্রয় প্রার্থীদের ৬০ভাগেরই আবেদন প্রত্যাখ্যান করা হয়েছে। অথচ ২০১৫ সালেও এই হার ছিলো মাত্র ১২ শতাংশ।

সুইডিশ মাইগ্রেশন বোর্ডের কর্মকর্তা কার্ল বেক্সেলিয়াস বলছেন, ” আফগানিস্তানের কিছু প্রদেশে আপনি ফিরতে পারবেন না আমরা জানি। সেখানে ঝুঁকি আছে। কিন্তু প্রশ্ন হলো আপনি কি দেশটির অন্য কোন অংশে ফিরতে পারেন ? আর সেটাই রেসিডেন্ট পারমিট বা সুইডেনে আশ্রয়ের সুযোগ না দেয়ার একটা বড় কারণ। আমরা বলছি তুমি একটি প্রদেশ থেকে এসেছো যেখানে অনেক সহিংসতা হয় কিন্তু তুমি আফগানিস্তানের অন্য অংশে ফিরতে পারো, যেখানে সহিংসতার ঝুঁকি কম”।আর এভাবে অনেকে বসবাসের অনুমতি না পেয়েও জীবনের ঝুঁকি কিংবা উন্নত জীবনের জন্য গোপন হলেও থেকে যাওয়ার চেষ্টা করে। সুইডিশ নাগরিকদের অনেকেই গোপনে তাদের সহায়তাও করে।


জেনে নেই বেশি বয়সে সন্তান জন্মদানের ঝুঁকি?

সোমালিয়া ও ইরিত্রিয়ার সম্পর্ক জোরদার


এ বিভাগের আরো খবর...

দেশে ১০১৬ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন দেশে ১০১৬ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন
মাহবুব তালুকদারের কথা সত্য নয়- সিইসি মাহবুব তালুকদারের কথা সত্য নয়- সিইসি
ঢাকায় ধানের শীষের প্রার্থী সালাহউদ্দিনের প্রচারে হামলা! ঢাকায় ধানের শীষের প্রার্থী সালাহউদ্দিনের প্রচারে হামলা!
ছয় মাসের  জামিন পেয়েছে- মইনুল ছয় মাসের জামিন পেয়েছে- মইনুল
নির্বাচন করতে পারবেন না- খালেদা জিয়া নির্বাচন করতে পারবেন না- খালেদা জিয়া
ঢাকায় ঐক্যফ্রন্টের গণর‌্যালি ২৪ ও ২৫ ডিসেম্বর ঢাকায় ঐক্যফ্রন্টের গণর‌্যালি ২৪ ও ২৫ ডিসেম্বর
মুম্বাইয়ে হাসপাতালে আগুন, শিশুসহ নিহত ৮ মুম্বাইয়ে হাসপাতালে আগুন, শিশুসহ নিহত ৮
চীন, পাকিস্তান, আফগানিস্তান সন্ত্রাসবাদ-বিরোধী লড়াইয়ের সমঝোতা চীন, পাকিস্তান, আফগানিস্তান সন্ত্রাসবাদ-বিরোধী লড়াইয়ের সমঝোতা
বিশ্লেষকরা ঐক্যফ্রন্টের ইশতেহারকে ‘ফাঁকা বুলি’ বলছেন কেন? বিশ্লেষকরা ঐক্যফ্রন্টের ইশতেহারকে ‘ফাঁকা বুলি’ বলছেন কেন?
বিএনপির প্রার্থী শূন্য ঢাকা-২০ আসনে বিএনপির প্রার্থী শূন্য ঢাকা-২০ আসনে

সর্বাধিক পঠিত

মা ক্যানসারে আক্রান্ত ছেলে আসছেন কেকেআরএ মা ক্যানসারে আক্রান্ত ছেলে আসছেন কেকেআরএ
চাহিদার অতিরিক্ত কফি: ইউএসডিএ চাহিদার অতিরিক্ত কফি: ইউএসডিএ
দেশে ১০১৬ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন দেশে ১০১৬ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন
মাহবুব তালুকদারের কথা সত্য নয়- সিইসি মাহবুব তালুকদারের কথা সত্য নয়- সিইসি
আইসিএসবিতে বিজয় দিবস পালন আইসিএসবিতে বিজয় দিবস পালন
নিলামে বড় প্রশ্ন যুবরাজকে নিয়ে নিলামে বড় প্রশ্ন যুবরাজকে নিয়ে
ঢাকায় ধানের শীষের প্রার্থী সালাহউদ্দিনের প্রচারে হামলা! ঢাকায় ধানের শীষের প্রার্থী সালাহউদ্দিনের প্রচারে হামলা!
নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করেছে- বিএনপি নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করেছে- বিএনপি
আইপিএলের নিলাম শুরু আইপিএলের নিলাম শুরু
ছয় মাসের  জামিন পেয়েছে- মইনুল ছয় মাসের জামিন পেয়েছে- মইনুল
নেইমারের সমালোচনায় পেলে
জলবায়ু পরিবর্তনে বিশ্বব্যাংক-আইএফসি ২২ বিলিয়ন ডলার দিবে
জলবায়ু পরিবর্তনের যুদ্ধে নারীর অংশগ্রহণ করতে হবে-প্যাট্রিসিয়া
বিএনপির দুটি আসনের পরিবর্তন
কলেজ শিক্ষক আলী হোসেন হত্যা দুইজনের ত্যুদণ্ড
নির্বাচনে সবার অংশগ্রহণ-গণতন্ত্রের জন্য ইতিবাচক
বহুল প্রত্যাশিত সংলাপে কি ছিল?
একটি অর্থবহ ও সফল সংলাপের প্রত্যাশা করছি
শেখ হাসিনা বার্ন ইন্সটিটিউটের: প্রত্যাশিত স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত হবে কি?
নদীশাসনের দুর্বলতা বিঘ্নিত হচ্ছে নৌপথে চলাচল