ঢাকা, মার্চ ২৩, ২০১৯, ৯ চৈত্র ১৪২৫
---
bbc24news.com
প্রথম পাতা » জেলার খবর » দিনাজপুরে নৈশ প্রহরী খুনের ঘটনা, সন্দেহভাজনকে পুড়িয়ে হত্যা
বৃহস্পতিবার ● ৯ আগস্ট ২০১৮, ৯ চৈত্র ১৪২৫
Email this News Print Friendly Version

দিনাজপুরে নৈশ প্রহরী খুনের ঘটনা, সন্দেহভাজনকে পুড়িয়ে হত্যা

---বিবিসি২৪নিউজ,নিজস্ব সংবাদদাতা:দিনাজপুরের পুলিশ সুপার হামিদুল আলম জানান, দিনাজপুরের বীরগঞ্জে এক নৈশ প্রহরী খুন হওয়ার পর সন্দেহভাজন খুনিকে ধরে পুড়িয়ে হত্যা করেছে স্থানীয় জনতা।ভোরে বীরগঞ্জ উপজেলার শালবাগান ও হাটতলা মোড়ে এই দুই হত্যাকাণ্ড ঘটে।

নিহত নৈশ প্রহরী সুরুজ আলী (৫০) বীরগঞ্জ পৌরসভার জেলখানা মোড় এলাকার আবুল কাশেমের ছেলে। আর জনতার হাতে নিহত রবিউল ইসলাম (৩২) একই এলাকার তারা মিয়ার ছেলে।

পুলিশ বলছে, নৈশপ্রহরী সুরুজ আলী ভোরে শালবাগান মোড়ে দায়িত্ব পালনের সময় তাকে ছুরি মেরে হত্যা করা হয়। এর পরপরই হাটখোলা মোড়ে দায়িত্বরত নৈশপ্রহরী শহীদ (৪০) ‘দুর্বৃত্তের’ ছুরিকাঘাতে আহত হন।

এ খবর ছড়িয়ে পড়লে স্থানীয়রা উত্তেজিত হয়ে ওঠে এবং সকাল ৬টার দিকে দিনাজপুর-রংপুর-পঞ্চগড় মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখাতে থাকে। এর মধ্যে জেলখানা মোড় এলাকায় রবিউলের বাড়িতে রক্তমাখা জামা-কাপড় পাওয়া গেলে তাকে খুঁজতে শুরু করে জনতা।

স্থানীয় বাসিন্দা সুলতান আহমেদ বলেন, ঘণ্টা দুই পর তেরমাইল গড়েয়া এলাকায় রবিউলকে পাওয়া গেলে তাকে ধরে শালবাগান এলাকায় এনে পেটানো হয়। পরে গায়ে আগুন দিয়ে তাকে পুড়িয়ে হত্যা করে জনতা।

খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। পুলিশ সুপার হামিদুল আলমসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

পুলিশের হস্তক্ষেপে বেলা ১০টার দিকে দিনাজপুর-রংপুর-পঞ্চগড় মহাসড়কে যান চলাচল শুরু হলেও এলাকায় চাপা উত্তেজনা বিরাজ করছে বলে স্থানীয় বাসিন্দা আব্দুর রাজ্জাক জানান।

পুলিশ সুপার হামিদুল আলম বলেন, “প্রাথমিক তথ্যে মনে হয়েছে, রবিউল একাই ওই হত্যায় জড়িত। এলাকাবাসী বিষয়টি জানার পর তাকে ধরে এনে পুড়িয়ে হত্যা করেছে। তবে স্থানীয়রা বলেছে, রবিউল খানিকটা পাগল প্রকৃতির।


চাঁদপুরে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ১

ট্রেনের টিকিট পেতে মানুষের লম্বা লাইন


এ বিভাগের আরো খবর...

ফায়ার সার্ভিস ৫৮৩ জনকে নিয়োগ দিচ্ছে ফায়ার সার্ভিস ৫৮৩ জনকে নিয়োগ দিচ্ছে
স্বাস্থ্য অধিদফতরে নিয়োগ! স্বাস্থ্য অধিদফতরে নিয়োগ!
যশোরে টাকা নিয়ে বিরোধে ছেলরে হাতে বাবা খুন যশোরে টাকা নিয়ে বিরোধে ছেলরে হাতে বাবা খুন
বিভিন্ন স্থানে সড়ক দুর্ঘটনায় কলেজ ছাত্রীসহ নিহত ৭ বিভিন্ন স্থানে সড়ক দুর্ঘটনায় কলেজ ছাত্রীসহ নিহত ৭
টাইগারেদর হুট করে বিয়ের রহস্য উদঘাটন টাইগারেদর হুট করে বিয়ের রহস্য উদঘাটন
কেমন যাবে আজকের দিনটি ? কেমন যাবে আজকের দিনটি ?
হাসুন প্রান খুলে: হাসতে নেই মানা হাসুন প্রান খুলে: হাসতে নেই মানা
আজকের ধাঁধা বলুন দেখি দাদা আজকের ধাঁধা বলুন দেখি দাদা
জিকোর নেতৃত্বে লড়ল বাংলাদেশ জিকোর নেতৃত্বে লড়ল বাংলাদেশ
গাজীপুরে গার্মেন্ট শ্রমিকদের বিক্ষোভ, সড়ক অবরোধ গাজীপুরে গার্মেন্ট শ্রমিকদের বিক্ষোভ, সড়ক অবরোধ

সর্বাধিক পঠিত

ফায়ার সার্ভিস ৫৮৩ জনকে নিয়োগ দিচ্ছে ফায়ার সার্ভিস ৫৮৩ জনকে নিয়োগ দিচ্ছে
কী করবেন নাকে অ্যালার্জি হলে? কী করবেন নাকে অ্যালার্জি হলে?
স্বাস্থ্য অধিদফতরে নিয়োগ! স্বাস্থ্য অধিদফতরে নিয়োগ!
বিমানবন্দরে ময়লার ঝুড়িতে মিলল ৪৮ স্বর্ণের বার বিমানবন্দরে ময়লার ঝুড়িতে মিলল ৪৮ স্বর্ণের বার
যশোরে টাকা নিয়ে বিরোধে ছেলরে হাতে বাবা খুন যশোরে টাকা নিয়ে বিরোধে ছেলরে হাতে বাবা খুন
২৮ বছর পর অভিষেক হলো ডাকসু কমিটির ২৮ বছর পর অভিষেক হলো ডাকসু কমিটির
চিকিৎসাধীন ওবায়দুল কাদের শঙ্কামুক্ত চিকিৎসাধীন ওবায়দুল কাদের শঙ্কামুক্ত
বিভিন্ন স্থানে সড়ক দুর্ঘটনায় কলেজ ছাত্রীসহ নিহত ৭ বিভিন্ন স্থানে সড়ক দুর্ঘটনায় কলেজ ছাত্রীসহ নিহত ৭
জাসিন্ডা আরডার্নের নোবেল পুরস্কারের পক্ষে পিটিশন জাসিন্ডা আরডার্নের নোবেল পুরস্কারের পক্ষে পিটিশন
টাইগারেদর হুট করে বিয়ের রহস্য উদঘাটন টাইগারেদর হুট করে বিয়ের রহস্য উদঘাটন
প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকা তৈরি করতে পারছে না কেন?
শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক বিশ্বে একটি রোল মডেল?
সীমাহীন দুর্নীতিগ্রস্ত বিমান
নানা সমস্যায় জর্জরিত ব্যাংকিং খাত!
উত্তপ্ত কাশ্মীর সমস্যার স্থায়ী সমাধান প্রয়োজন!
দেশকে দ্রুত উন্নতির জন্য কারিগরি শিক্ষার বিকল্প নেই!
প্রধানমন্ত্রীর জার্মানি সফর উন্নয়ন- কূটনৈতিক সম্পর্ক জোরদার হবে!
খেলাপি ঋণে ‘জিরো টলারেন্স’ চাই
৫ জনই ছাত্রলীগ-যুবলীগ নেতা
দুর্নীতির বিরুদ্ধে প্রকৃত অর্থেই নিতে হবে জিরো টলারেন্স