ঢাকা, মার্চ ২৩, ২০১৯, ৯ চৈত্র ১৪২৫
---
bbc24news.com
প্রথম পাতা » তথ্যপ্রযুক্তি » ‘সূর্য অভিযানে’ নাসার নভোযান ‘পার্কার সোলার প্রোব’
রবিবার ● ১২ আগস্ট ২০১৮, ৯ চৈত্র ১৪২৫
Email this News Print Friendly Version

‘সূর্য অভিযানে’ নাসার নভোযান ‘পার্কার সোলার প্রোব’

---বিবিসি২৪নিউজ,নিজস্ব প্রতিবেদক:ষূর্যের রহস্য ভেদের এক মিশন নিয়ে পার্কার সোলার প্রোব নামে একটি উপগ্রহ সফলভাবে উৎক্ষেপণ করেছে মার্কিন মহাকাশ সংস্থা নাসা।নির্ধারিত সময়ের একদিন পর ফ্লোরিডার কেপ ক্যানাভেরাল নাসার নভোযানটি উৎক্ষেপণ করা হলো। এটি সূর্যের ৬০ লক্ষ কিলোমিটারের মধ্যে গিয়ে পৌঁছাবে এবং সূর্যের এত কাছাকাছি এর আগে কোন যানই যেতে পারে নি।সূর্যের যে উজ্জ্বল আলোকছটার অংশটি সূর্যগ্রহণের সময় দেখা যায় - যাকে বলে ‘করোনা’, এই যানটি তার ভেতর দিয়ে উড়ে যাবে।বলা হচ্ছে, ১০০০ ডিগ্রি সেলসিয়াসেরও বেশি তাপ সহ্য করার ক্ষমতা রয়েছে প্রোবের।

চারটি ডেল্টা-ফোর রকেট দিয়ে উপগ্রহটি মহাকাশে পাঠানো হচ্ছে। যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডা অঙ্গরাজ্যের কেপ ক্যানাভেরাল থেকে ‘প্রোব’ কে উৎক্ষেপণের কথা ছিল শনিবার সকালে। তবে শেষ মূহুর্তে বাড়তি কিছু পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য তা ১৪ ঘণ্টা পিছিয়ে দেওয়া হয়।
অবিশ্বাস্য গতির নভোযান

সাত বছর ধরে সূর্যের চারদিকে ২৪ বার প্রদক্ষিণ করবে এই স্যাটেলাইট। সে সময় এটির গতি হবে ঘণ্টায় কমপক্ষে ৬৭০,০০০ কিলোমিটার। ৬০ লাখ কিলোমিটার দূর থেকে সূর্যকে প্রদক্ষিণ করে তথ্য সংগ্রহ করতে থাকবে।

এই প্রকল্পের অন্যতম বিজ্ঞানী ড. নিকি ফক্স বলেছেন, “আমি বুঝতে পারছি ৬০ লাখ কিমি দূরত্বকে কখনই নিকট দূরত্ব বলে মনে হবেনা, কিন্তু যদি ধরে নেয়া হয় ভূপৃষ্ঠ এবং সূর্যের দূরত্ব এক মিটার, তাহলে প্রোব সূর্য থেকে মাত্র ৪ সেমি দূরে থাকবে।

প্রোব যে গতিতে চলবে তা নজিরবিহীন। ড ফক্স বলছেন,”এত দ্রুতগতির কোনো কিছু আগে তৈরি হয়নি। সূর্যের চারদিকে এটি প্রতি ঘণ্টায় ৬৯০,০০০ কিমি পর্যন্ত গতিতে ঘুরবে। অর্থাৎ এই গতিতে নিউইয়র্ক থেকে টোকিও যেতে লাগবে এক মিনিটেরও কম সময়।”

বলা হচ্ছে, মনুষ্য-বিহীন এই নভোযান, যেটি একটি স্যাটেলাইটের মত কাজ করবে, তা সূর্যের যতটা কাছে যাবে এর আগে মানুষের তৈরি কোন যান এত কাছে যায়নি।

সূর্যের চারদিকে উজ্জ্বল আভাযুক্ত যে এলাকা, যেটি ‘করোনা’ নামে পরিচিত, সরাসরি সেখানে গিয়ে ঢুকবে এই স্যাটেলাইট। তারপর সূর্যের চারদিকে প্রদক্ষিণ করতে করতে বোঝার চেষ্টা করবে এই নক্ষত্রের আচরণ।

কেন এই অভিযান গুরুত্বপূর্ণ?

সূর্য কীভাবে কাজ করে, তা বুঝতে সাহায্য করবে পার্কার নামের এই স্যাটেলাইট।

সূর্য তার বৈদ্যুতিক বিভিন্ন কণা এবং চৌম্বক শক্তি দিয়ে পৃথিবীকে সবসময় প্রভাবিত করছে। এই ‘সোলার উইন্ড’ বা সূর্য থেকে নিঃসরিত বাতাসের প্রভাবে উত্তর মেরুর আকাশে তৈরি হয় অদ্ভুত সুন্দর রংচঙে আলোর খেলা।

কিন্তু সূর্যের কিছু প্রবাহ পৃথিবীর চৌম্বক শক্তির ভারসাম্য বিঘ্নিত করে ফেলতে পারে। সেক্ষেত্রে যোগাযোগ ব্যবস্থা বিঘ্নিত হতে পারে, মহাকাশে স্যাটেলাইটগুলো কক্ষচ্যুত হতে পারে, এমনকি বৈদ্যুতিক গ্রিড বিকল হয়ে যেতে পারে।

বিজ্ঞানীরা সেই সব বিপদ আগে থেকে বোঝার চেষ্টা করছেন। পার্কার আগাম তথ্য দিয়ে এ কাজে দারুণভাবে সাহায্য করতে পারে।

করোনা’ বা সূর্যের চারদিকের উজ্জ্বল আভাযুক্ত যে এলাকা সেটির অদ্ভুত আচরণ বিজ্ঞানীদের কাছে বড় রহস্য।

সূর্যপৃষ্ঠের চেয়ে করোনার তাপমাত্রা বেশী। সূর্যপৃষ্ঠের তাপমাত্রা যেখানে ৬,০০০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মত, করোনা অঞ্চলের তাপমাত্রা কয়েক মিলিয়ন ডিগ্রি হতে পারে।

কেন এই ফারাক - তার সুনির্দিষ্ট উত্তর এখনো বিজ্ঞানীদের কাছে নেই।

এছাড়া, সূর্য থেকে নিঃসরিত বাতাস যখন করোনায় প্রবেশ করে, তখন তার গতি হঠাৎ তীব্রভাবে বেড়ে যায়। এই গরম বাতাস তখন প্রতি সেকেন্ডে ৫০০ কিমি বেগে সোলার সিস্টেমের ভেতর দিয়ে ধেয়ে চলে।

পার্কার করেনার বৈদ্যুতিক এবং চৌম্বক ক্ষেত্রের বিভিন্ন তথ্য পাঠাতে সক্ষম হবে বলে আশা করছেন বিজ্ঞানীরা।

কীভাবে টিকে থাকবে পার্কার?

এখন থেকে ৬০ বছর আগে প্রথম সূর্যের কাছাকাছি নভোযান পাঠানোর পরিকল্পনা করা হয়েছিল।

কিন্তু সূর্যের কাছে পাঠানোর জন্য যে ধরণের নভোযান তৈরির প্রয়োজন সেই প্রযুক্তি এতদিন পরে বিজ্ঞানীরা পেয়েছেন।

সোলার চালিত এই নভোযানের যন্ত্রপাতি থাকবে ৪.৫ ইঞ্চি পুরু কম্পোজিট কার্বনের আবরণে দিয়ে মোড়া। ফলে ভেতরের তাপমাত্রা সবসময় ৩০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের ভেতরে থাকবে।রক্ষা পাবে ভেতরের যন্ত্রপাতি এবং কম্প্যুটার।


ঐক্যবদ্ধ থাকুন, নৌকার বিজয় সুনিশ্চিত- স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

রোহিঙ্গা শিবির পরিদর্শনে অস্ট্রেলিয়ার প্রতিনিধিরা


এ বিভাগের আরো খবর...

২৮ বছর পর অভিষেক হলো ডাকসু কমিটির ২৮ বছর পর অভিষেক হলো ডাকসু কমিটির
চিকিৎসাধীন ওবায়দুল কাদের শঙ্কামুক্ত চিকিৎসাধীন ওবায়দুল কাদের শঙ্কামুক্ত
জাসিন্ডা আরডার্নের নোবেল পুরস্কারের পক্ষে পিটিশন জাসিন্ডা আরডার্নের নোবেল পুরস্কারের পক্ষে পিটিশন
টাইগারেদর হুট করে বিয়ের রহস্য উদঘাটন টাইগারেদর হুট করে বিয়ের রহস্য উদঘাটন
ধর্ষণ মামলার আসামির জামিন পাওয়ার রহস্য কী? ধর্ষণ মামলার আসামির জামিন পাওয়ার রহস্য কী?
নুরুল ডাকসুর ভিপির  দায়িত্ব নিচ্ছেন আজ নুরুল ডাকসুর ভিপির দায়িত্ব নিচ্ছেন আজ
আপত্তি নেই জাতিসংঘের রোহিঙ্গাদের ভাসানচরে স্থানান্তর নিয়ে আপত্তি নেই জাতিসংঘের রোহিঙ্গাদের ভাসানচরে স্থানান্তর নিয়ে
কাদেরকে কো-চেয়ারম্যান পদ থেকে অব্যাহতি কাদেরকে কো-চেয়ারম্যান পদ থেকে অব্যাহতি
ভেনেজুয়েলার বিপক্ষে ৩-১ গোলে হারল আর্জেন্টিনা ভেনেজুয়েলার বিপক্ষে ৩-১ গোলে হারল আর্জেন্টিনা
বরিশালে বাস-মাহেন্দ্র সংঘর্ষে কলেজছাত্রীসহ নিহত ৫ বরিশালে বাস-মাহেন্দ্র সংঘর্ষে কলেজছাত্রীসহ নিহত ৫

সর্বাধিক পঠিত

কী করবেন নাকে অ্যালার্জি হলে? কী করবেন নাকে অ্যালার্জি হলে?
স্বাস্থ্য অধিদফতরে নিয়োগ! স্বাস্থ্য অধিদফতরে নিয়োগ!
বিমানবন্দরে ময়লার ঝুড়িতে মিলল ৪৮ স্বর্ণের বার বিমানবন্দরে ময়লার ঝুড়িতে মিলল ৪৮ স্বর্ণের বার
যশোরে টাকা নিয়ে বিরোধে ছেলরে হাতে বাবা খুন যশোরে টাকা নিয়ে বিরোধে ছেলরে হাতে বাবা খুন
২৮ বছর পর অভিষেক হলো ডাকসু কমিটির ২৮ বছর পর অভিষেক হলো ডাকসু কমিটির
চিকিৎসাধীন ওবায়দুল কাদের শঙ্কামুক্ত চিকিৎসাধীন ওবায়দুল কাদের শঙ্কামুক্ত
বিভিন্ন স্থানে সড়ক দুর্ঘটনায় কলেজ ছাত্রীসহ নিহত ৭ বিভিন্ন স্থানে সড়ক দুর্ঘটনায় কলেজ ছাত্রীসহ নিহত ৭
জাসিন্ডা আরডার্নের নোবেল পুরস্কারের পক্ষে পিটিশন জাসিন্ডা আরডার্নের নোবেল পুরস্কারের পক্ষে পিটিশন
টাইগারেদর হুট করে বিয়ের রহস্য উদঘাটন টাইগারেদর হুট করে বিয়ের রহস্য উদঘাটন
কেমন যাবে আজকের দিনটি ? কেমন যাবে আজকের দিনটি ?
প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকা তৈরি করতে পারছে না কেন?
শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক বিশ্বে একটি রোল মডেল?
সীমাহীন দুর্নীতিগ্রস্ত বিমান
নানা সমস্যায় জর্জরিত ব্যাংকিং খাত!
উত্তপ্ত কাশ্মীর সমস্যার স্থায়ী সমাধান প্রয়োজন!
দেশকে দ্রুত উন্নতির জন্য কারিগরি শিক্ষার বিকল্প নেই!
প্রধানমন্ত্রীর জার্মানি সফর উন্নয়ন- কূটনৈতিক সম্পর্ক জোরদার হবে!
খেলাপি ঋণে ‘জিরো টলারেন্স’ চাই
৫ জনই ছাত্রলীগ-যুবলীগ নেতা
দুর্নীতির বিরুদ্ধে প্রকৃত অর্থেই নিতে হবে জিরো টলারেন্স