ঢাকা, মার্চ ২৩, ২০১৯, ৯ চৈত্র ১৪২৫
---
bbc24news.com
প্রথম পাতা » প্রধান সংবাদ » রাজপথে দাঁড়াতে না পারায় নিজেকেই ধিক্কার দিই- রিজভী
রবিবার ● ১২ আগস্ট ২০১৮, ৯ চৈত্র ১৪২৫
Email this News Print Friendly Version

রাজপথে দাঁড়াতে না পারায় নিজেকেই ধিক্কার দিই- রিজভী

---বিবিসি২৪নিউজ,নিজস্ব প্রতিবেদক:অবৈধ সরকারের বিরুদ্ধে রাজপথে বের হতে পারি না, এটা ভাবলে মনে হয় নিজেকেই ধিক্কার দিই, বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন।আজ দুপুরে রাজধানীর নয়াপল্টন দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলে তিনি এ কথা বলেন। বিএনপি চেয়ারপাসন খালেদা জিয়ার প্রয়াত ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকোর জন্মদিন উপলক্ষে মহিলা দল এই আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করে।

রিজভী বলেন, ‘আজকে জাতি অবরুদ্ধ। কচি কচি বাচ্চাদের যেভাবে রক্তাক্ত করা হয়েছে, তাদের রক্তমাখা কেডস ও শার্ট দেখলে কার না হৃদয় ভেঙে যায়। অথচ এই ঘটনাও ঘটিয়েছে এই সরকার।’

শিক্ষার্থীদের ওপরে যারা আক্রমণ করেছে প্রধানমন্ত্রী তাদের দেখতে যান, কিন্তু যারা আক্রান্ত হয়েছে সেই স্কুলপড়ুয়া বাচ্চাদের দেখতে যান না অভিযোগ করে বিএনপির এই নেতা বলেন, ‘এই নিষ্ঠুরতার মধ্যে আমরা এখনও বাস করছি। আমরা এখনও কেন ঘর থেকে বের হতে পারি না? কেন আমরা এই অবৈধ সরকারের বিরুদ্ধে রাজপথের ইট, কাঠ ও কংক্রিটের ধুলা উড়িয়ে দাঁড়াতে পারি না? সেটা ভাবলে নিজের কাছে নিজেকেই ধিক্কার লাগে।

রিজভী আহমেদ বলেন, ‘যখন খালেদা জিয়া গুলশানের অফিসে অবরুদ্ধ, তখন তার ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকোর মৃত্যু সংবাদ শুনতে হয়েছে তাকে। তখন তিনি শেখ হাসিনার রক্তচক্ষুর কাছে মাথানত করেননি। ভয়কে তিনি উড়িয়ে দিয়েছেন। খালেদা জিয়া তখনও নির্ভীক ছিলেন। এটাই হলো খালেদা জিয়ার বৈশিষ্ট্য। এটা নিয়েই তিনি দশকের পর দশক জাতীয়তাবাদের পতাকা, স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্বের পতাকা উড়িয়েছেন। আজ খালেদা জিয়া কারাগারে আছেন, তাকে মুক্ত করতে হবে। কারণ, তার মুক্তির মাধ্যমে শুধু একজন ব্যক্তির মুক্তি হবে না। মুক্তি হবে দেশ ও জনগণের।

কোকোর স্মৃতিচারণা করে এই বিএনপি নেতা বলেন, ‘আরাফাত রহমান কোকো নীরবে নিভৃতে চলাফেরা করতেন। সবার সঙ্গে অত্যন্ত আন্তরিক ছিলেন। কোনও কথা বললে অত্যন্ত বিনয়ের সঙ্গে বলতেন। তিনি রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত ছিলেন না। অত্যন্ত মিতভাষী ও ক্রিড়ামোদী ছিলেন। এই ছেলেটিকে অকালে পৃথিবী থেকে চলে যাওয়ার কথা নয়। তার মায়ের ওপর জুলুম দেখে তিনি পৃথিবী থেকে চলে গেছেন।

আগামী ১৫ আগস্ট খালেদা জিয়ার জন্মদিন উপলক্ষে তার কারামুক্তি, আশু রোগমুক্তি ও দীর্ঘায়ু কামনায় সারা দেশের জেলা ও উপজেলায় দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হবে বলেও জানান রিজভী। তিনি বলেন, ‘ঈদের দিন সকাল সাড়ে ১১টায় বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের নেতৃত্বে বিএনপির সিনিয়র নেতারা জিয়াউর রহমানের মাজার জিয়ারত করবেন।


সঠিক কাগজ-পত্র উপস্থাপন না করায় রফতানি অর্থায়নে জটিলতা

ঈদুল আযহা ২২ আগস্ট


এ বিভাগের আরো খবর...

২৮ বছর পর অভিষেক হলো ডাকসু কমিটির ২৮ বছর পর অভিষেক হলো ডাকসু কমিটির
চিকিৎসাধীন ওবায়দুল কাদের শঙ্কামুক্ত চিকিৎসাধীন ওবায়দুল কাদের শঙ্কামুক্ত
জাসিন্ডা আরডার্নের নোবেল পুরস্কারের পক্ষে পিটিশন জাসিন্ডা আরডার্নের নোবেল পুরস্কারের পক্ষে পিটিশন
টাইগারেদর হুট করে বিয়ের রহস্য উদঘাটন টাইগারেদর হুট করে বিয়ের রহস্য উদঘাটন
ধর্ষণ মামলার আসামির জামিন পাওয়ার রহস্য কী? ধর্ষণ মামলার আসামির জামিন পাওয়ার রহস্য কী?
নুরুল ডাকসুর ভিপির  দায়িত্ব নিচ্ছেন আজ নুরুল ডাকসুর ভিপির দায়িত্ব নিচ্ছেন আজ
আপত্তি নেই জাতিসংঘের রোহিঙ্গাদের ভাসানচরে স্থানান্তর নিয়ে আপত্তি নেই জাতিসংঘের রোহিঙ্গাদের ভাসানচরে স্থানান্তর নিয়ে
কাদেরকে কো-চেয়ারম্যান পদ থেকে অব্যাহতি কাদেরকে কো-চেয়ারম্যান পদ থেকে অব্যাহতি
ভেনেজুয়েলার বিপক্ষে ৩-১ গোলে হারল আর্জেন্টিনা ভেনেজুয়েলার বিপক্ষে ৩-১ গোলে হারল আর্জেন্টিনা
বরিশালে বাস-মাহেন্দ্র সংঘর্ষে কলেজছাত্রীসহ নিহত ৫ বরিশালে বাস-মাহেন্দ্র সংঘর্ষে কলেজছাত্রীসহ নিহত ৫

সর্বাধিক পঠিত

কী করবেন নাকে অ্যালার্জি হলে? কী করবেন নাকে অ্যালার্জি হলে?
স্বাস্থ্য অধিদফতরে নিয়োগ! স্বাস্থ্য অধিদফতরে নিয়োগ!
বিমানবন্দরে ময়লার ঝুড়িতে মিলল ৪৮ স্বর্ণের বার বিমানবন্দরে ময়লার ঝুড়িতে মিলল ৪৮ স্বর্ণের বার
যশোরে টাকা নিয়ে বিরোধে ছেলরে হাতে বাবা খুন যশোরে টাকা নিয়ে বিরোধে ছেলরে হাতে বাবা খুন
২৮ বছর পর অভিষেক হলো ডাকসু কমিটির ২৮ বছর পর অভিষেক হলো ডাকসু কমিটির
চিকিৎসাধীন ওবায়দুল কাদের শঙ্কামুক্ত চিকিৎসাধীন ওবায়দুল কাদের শঙ্কামুক্ত
বিভিন্ন স্থানে সড়ক দুর্ঘটনায় কলেজ ছাত্রীসহ নিহত ৭ বিভিন্ন স্থানে সড়ক দুর্ঘটনায় কলেজ ছাত্রীসহ নিহত ৭
জাসিন্ডা আরডার্নের নোবেল পুরস্কারের পক্ষে পিটিশন জাসিন্ডা আরডার্নের নোবেল পুরস্কারের পক্ষে পিটিশন
টাইগারেদর হুট করে বিয়ের রহস্য উদঘাটন টাইগারেদর হুট করে বিয়ের রহস্য উদঘাটন
কেমন যাবে আজকের দিনটি ? কেমন যাবে আজকের দিনটি ?
প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকা তৈরি করতে পারছে না কেন?
শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক বিশ্বে একটি রোল মডেল?
সীমাহীন দুর্নীতিগ্রস্ত বিমান
নানা সমস্যায় জর্জরিত ব্যাংকিং খাত!
উত্তপ্ত কাশ্মীর সমস্যার স্থায়ী সমাধান প্রয়োজন!
দেশকে দ্রুত উন্নতির জন্য কারিগরি শিক্ষার বিকল্প নেই!
প্রধানমন্ত্রীর জার্মানি সফর উন্নয়ন- কূটনৈতিক সম্পর্ক জোরদার হবে!
খেলাপি ঋণে ‘জিরো টলারেন্স’ চাই
৫ জনই ছাত্রলীগ-যুবলীগ নেতা
দুর্নীতির বিরুদ্ধে প্রকৃত অর্থেই নিতে হবে জিরো টলারেন্স