ঢাকা, জানুয়ারী ২২, ২০১৯, ৮ মাঘ ১৪২৫
---
bbc24news.com
প্রথম পাতা » এক্সক্লুসিভ » রহস্যময় পেঁচার খোঁজে গুপ্তধন সন্ধানীরা!
সোমবার ● ১৩ আগস্ট ২০১৮, ৮ মাঘ ১৪২৫
Email this News Print Friendly Version

রহস্যময় পেঁচার খোঁজে গুপ্তধন সন্ধানীরা!

---বিবিসি২৪নিউজ,শাহাদাত হোসেন:ফ্রান্সের কোথাও ব্রোঞ্জের তৈরি একটি উড়ন্ত পেঁচার মূর্তি লুকানো আছে। যে এটিকে খুঁজে পাবেন, তিনি যে তখন সোনা ও রূপা দিয়ে তৈরি পেঁচার আসল ভাস্কর্যটি উপহার হিসাবে পাবেন তাই নয়, তিনি পাবেন বিশ্বের সবচেয়ে বেশি সময় ধরে অনুসন্ধান করা গুপ্তধনের খোঁজ।কারণ এই গুপ্তধনটি খোঁজা হচ্ছে গত পঁচিশ বছর ধরে।আসল পেঁচাটি তৈরি হয়েছে সোনা এবং রূপা দিয়ে, কিন্তু সেটিকে পেতে হলে ব্রোঞ্জের পেঁচাটিকে আগে খুঁজে বের করতে হবে।

এই গুপ্তধনের বিষয়ে প্রথম একটি বই প্রকাশিত হয় ১৯৯৩ সালে। ‘সোনালি পেঁচার খোজে’ নামে ওই বইতে গুপ্তধনের বিষয়ে কিছু সূত্র দেয়া হয়েছে। এর কিছুদিন আগে বইটির লেখক ম্যাক্স ভ্যালেন্টিন ওই সোনার ভাস্কর্যটি ফ্রান্সের কোন এক স্থানে লুকিয়ে রাখেন।

সেই সময় ব্রিটেনের সবচেয়ে বিক্রি হওয়া বই ছিল ‘ম্যাসকিউরেড’-যেখানে একটি সোনার খরগোশ খুঁজে বের করার বেশ কিছু জটিল ধাঁধা তৈরি করেছিলেন শিল্পী কিট উইলিয়ামস।

কিন্তু এ ধরণের সব ধাঁধার শেষপর্যন্ত রহস্য উদঘাটিত হয়েছে। কিন্তু ফরাসি এই বইয়ে উল্লেখ করা পেঁচার রহস্য এখনো বের হয়নি। পঁচিশ বছর পরেও শত শত মানুষ সেই গুপ্তধন খুঁজে বেড়াচ্ছে।

এখন সেসব রহস্য নিয়ে ইন্টারনেটে বিশেষ ফোরাম তৈরি হয়েছে, যারা নিয়মিত আলোচনার বাইরেও প্রতিবছর বিশেষ সভায় মিলিত হন।এমনকি ফ্রান্সের আদালতে গুপ্তধন অনুসন্ধানকারীদের স্বার্থ দেখভাল করার জন্য একটি সমিতিও তৈরি হয়েছে।

এটুকো নামের ওই সমিতির একজন প্রতিষ্ঠাতা সদস্য পিয়েরে ব্লোউচ বলছেন, ”১৯৯৩ সালের অগাস্ট মাস থেকে আমি এই গুপ্তধন খুঁজছি।’অন্যদের মতো মি. ব্লোউচেরও এই গুপ্তধনের বিষয়ে নিজস্ব কিছু মতামত আছে। সেই ধারণা অনুযায়ী বোর্গেস শহরের আশেপাশের অনেক জায়গায় তিনি খোঁড়াখুঁড়িও করেছেন। অবসরপ্রাপ্ত এই প্রকৌশলী এখন অনলাইন সাহিত্য নিয়ে সময় কাটান। তিনি আশা করছেন, গুপ্তধন উদ্ধারে খুব তাড়াতাড়ি নতুন কোন ধারণা খুঁজে পাবেন।

তবে এই ধাঁধার রহস্য বের করতে হলে বৈজ্ঞানিক জ্ঞান, কল্পনাশক্তি আর কিছু সংকেত জানতে হবে।বইয়ের ১১টি ধাঁধার ভেতর গুপ্তধনের আসল সন্ধান রয়েছে বলে মনে করা হয়। এই ধাঁধা অনুসরণ করে প্রথমে ফ্রান্সের একটি শহর সনাক্ত করতে হবে। আরো ১২টি ধাঁধার রহস্য উদ্ধার করে সেই শহরের ভেতর লুকানো গুপ্তধনটির স্থান সনাক্ত করা যাবে।

ইন্টারনেটে এ নিয়ে অনেক ধাঁধা এবং তার সম্ভাব্য সমাধান রয়েছে। সেগুলো নিয়ে অনেক তর্কবিতর্ক হচ্ছে, কিন্তু এখনো আসল গুপ্তধনের খোঁজ মেলেনি।

বইটি লেখার পর ভ্যালেন্টিন বেশ কিছুদিন একটি চ্যাট লাইন চালাতেন, যেখানে গুপ্তধন অনুসন্ধানকারীরা তাকে প্রশ্ন করতে পারতেন। এখন তার সেইসব উত্তর একত্রে ইন্টারনেটে পাওয়া যাচ্ছে এবং সেগুলোকে এই গুপ্তধন খোঁজার একটি তথ্যাগার বলে মনে করা হচ্ছে।

পেঁচাটি কি কখনো খুঁজে পাওয়া যাবে?

মি. ভ্যালেন্টিন এখন আর এই প্রশ্নের উত্তর দেয়ার জন্য বেঁচে নেই। নয় বছর আগে তিনি মারা যান। তবে তার গুপ্তধনের রহস্য একটি চিঠিতে লিখে মুখবন্ধ খামের ভেতর রেখে গেছেন, যা এখন তার পরিবারের হেফাজতে রয়েছে।

এই রহস্যের আরেকজন গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি হচ্ছেন শিল্পী মিচেল বেকার, যিনি বইয়ের ভেতরের অঙ্কন এবং পেঁচাটির ভাস্কর্য তৈরি করেছেন। লুকিয়ে রাখা ব্রোঞ্জের পেঁচাটি সত্যিকারের সোনার পেঁচার একটি নকল। আসল পেঁচাটি রয়েছে মি. বেকারের হেফাজতে। চার বছর আগে তিনি সেটি বিক্রি করার চেষ্টা করলে গুপ্তধন অনুসন্ধানকারীদের বাধার মুখে পড়েন। আদালত সেই বিক্রি নিষিদ্ধ করে আদেশ দেন, তিনি এটি বিক্রি করতে পারবেন না, কারণ এটি ভবিষ্যতের গুপ্তধন বিজয়ীর প্রাপ্য।

যদিও বইটি লেখা ও সাজাতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছিলেন মিচেল বেকার, কিন্তু তিনি নিজেও জানেন না, ব্রোঞ্জের পেঁচাটি কোথায় লুকানো রয়েছে।সুতরাং, এখন জীবিত এমন কেউ নেই, যিনি জানেন কোথায় রয়েছে সেই উড়ন্ত পেঁচা।

অনেকে আশঙ্কা করতে শুরু করেছেন, এই গুপ্তধনের সন্ধান আর কখনোই পাওয়া যাবে না। কারণ ওই স্থানটির ওপর হয়তো কোন কিছু তৈরি হয়েছে। অথবা এসব সূত্র সমাধানের যোগ্য নয়। হয়তো প্রথম থেকেই এটি একটি মজা ছিল।তবে সত্যিকারের অনুসন্ধানকারীরা ভ্যালেন্টিনের কাছ থেকে এখনো আসল প্রেরণা গ্রহণ করেন। কারণ তিনি বলেছিলেন, ”যদি সকল অনুসন্ধানকারী তাদের সব জ্ঞান একত্র করেন,…. তাহলে পেঁচাটিকে দুই ঘণ্টার মধ্যেই খুঁজে পাওয়া যাবে।’


সর্বোচ্চ শিরোপাজয়ী খেলোয়াড়রা হলেন মেসি

Next Article


এ বিভাগের আরো খবর...

প্রচণ্ড শীত ও ঘন কুয়াশায় ৩১ রোহিঙ্গা শূন্যরেখায় প্রচণ্ড শীত ও ঘন কুয়াশায় ৩১ রোহিঙ্গা শূন্যরেখায়
১১ হাসপাতালে দুদকের অভিযান, ৪০ শতাংশ চিকিৎসক অনুপস্থিত ১১ হাসপাতালে দুদকের অভিযান, ৪০ শতাংশ চিকিৎসক অনুপস্থিত
বিশ্বের অর্ধেক মানুষের সম্পদ ২৬ ধনীর হাতে বিশ্বের অর্ধেক মানুষের সম্পদ ২৬ ধনীর হাতে
নাইকো মামলার পরবর্তী শুনানি ৪ ফেব্রুয়ারি নাইকো মামলার পরবর্তী শুনানি ৪ ফেব্রুয়ারি
সংসদে যেতে পারছেন না তৃতীয় লিঙ্গের কেউ সংসদে যেতে পারছেন না তৃতীয় লিঙ্গের কেউ
কৃত্রিম উল্কা বৃষ্টি ছিটাবে- জাপান কৃত্রিম উল্কা বৃষ্টি ছিটাবে- জাপান
নতুন ২৫০ রোহিঙ্গাকে বাংলাদেশে ফেরত পাঠাচ্ছে- সৌদি আরব নতুন ২৫০ রোহিঙ্গাকে বাংলাদেশে ফেরত পাঠাচ্ছে- সৌদি আরব
৫০ হাজার পুলিশ নিয়োগ দেয়ার নির্দেশ ৫০ হাজার পুলিশ নিয়োগ দেয়ার নির্দেশ
এস কে সিনহার দুর্নীতি মামলার তদন্ত প্রতিবেদন ২৬ ফেব্রুয়ারি এস কে সিনহার দুর্নীতি মামলার তদন্ত প্রতিবেদন ২৬ ফেব্রুয়ারি
প্রধানমন্ত্রীকে ওআইসি মহাসচিবের অভিনন্দন প্রধানমন্ত্রীকে ওআইসি মহাসচিবের অভিনন্দন

সর্বাধিক পঠিত

আফগান সেনা ঘাঁটিতে তালেবান হামলা, নিহত শতাধিক আফগান সেনা ঘাঁটিতে তালেবান হামলা, নিহত শতাধিক
বিশ্ব ইজতেমা নিয়ে এখনও সংশয় কাটেনি বিশ্ব ইজতেমা নিয়ে এখনও সংশয় কাটেনি
ভারতে ষাঁড়ের রেসলিং উৎসবে নিহত ২ ভারতে ষাঁড়ের রেসলিং উৎসবে নিহত ২
ফ্রাঙ্কলিংকের ঝড়ে উড়ে গেল ঢাকা ডায়নামাইটস ফ্রাঙ্কলিংকের ঝড়ে উড়ে গেল ঢাকা ডায়নামাইটস
বড় সংগ্রহ গড়তে পারেনি সাকিবের ঢাকা বড় সংগ্রহ গড়তে পারেনি সাকিবের ঢাকা
রাতভর নেচে অসুস্থ বিপাশা রাতভর নেচে অসুস্থ বিপাশা
বিশ্ব ইজতেমা অনুষ্ঠানের নির্দেশনা চেয়ে হাইকোর্টে রিট বিশ্ব ইজতেমা অনুষ্ঠানের নির্দেশনা চেয়ে হাইকোর্টে রিট
রাষ্ট্রপতির সঙ্গে নৌবাহিনী প্রধানের বিদায়ী সাক্ষাৎ রাষ্ট্রপতির সঙ্গে নৌবাহিনী প্রধানের বিদায়ী সাক্ষাৎ
প্রচণ্ড শীত ও ঘন কুয়াশায় ৩১ রোহিঙ্গা শূন্যরেখায় প্রচণ্ড শীত ও ঘন কুয়াশায় ৩১ রোহিঙ্গা শূন্যরেখায়
বুধবারের বৈঠকে ইজতেমা নিয়ে সিদ্ধান্ত:স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বুধবারের বৈঠকে ইজতেমা নিয়ে সিদ্ধান্ত:স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
বেআইনি ব্যাংকিং কার্যক্রমের বিরুদ্ধে বহুমুখী পদক্ষেপ নিন
খাদ্যে অতিরিক্ত ট্রান্সফ্যাটের কারণে, প্রতি বছর বিশ্বে পাঁচ লাখ মানুষের মৃত্যু হয়
স্বাধীনতার পর প্রথমবার ‘মন্ত্রীশূন্য’ কিশোরগঞ্জ
মন চুরির অভিযোগ পুলিশের কাছে!
সৈয়দ আশরাফ যে কবরে সমাহিত হবেন
ব্যবসায়ীদের বিনিয়োগের বাধা দূর করতে হবে?
মহাজোটের মহাজয়ে শেখ হাসিনা
বাংলাদেশে নির্বাচন-পরবর্তী সহিংসতা রোধ করুন!
নেইমারের সমালোচনায় পেলে
জলবায়ু পরিবর্তনে বিশ্বব্যাংক-আইএফসি ২২ বিলিয়ন ডলার দিবে