ঢাকা, জানুয়ারী ২২, ২০১৯, ৮ মাঘ ১৪২৫
---
bbc24news.com
প্রথম পাতা » ইউরোপ » ‘ট্যঁর দ্যে ফ্যাম’ রিপোর্ট: জার্মানিতে যৌনাঙ্গচ্ছেদে শিকার-৬৫হাজার নারী
সোমবার ● ২৭ আগস্ট ২০১৮, ৮ মাঘ ১৪২৫
Email this News Print Friendly Version

‘ট্যঁর দ্যে ফ্যাম’ রিপোর্ট: জার্মানিতে যৌনাঙ্গচ্ছেদে শিকার-৬৫হাজার নারী

---বিবিসি২৪নিউজ,ইউইউ খবর ডেস্ক: নারী অধিকার বিষয়ক সংগঠন ‘ট্যঁর দ্যে ফ্যাম’ হিসেব অনুযায়ী, জার্মানিতে বর্তমানে যৌনাঙ্গচ্ছেদের শিকার এমন নারীর সংখ্যা ৬৫,০০০-এর মতো, গত বছরের তুলনায় যা ১২ শতাংশ বেশি৷বিশ্বের যেসব দেশে নারীর যৌনাঙ্গচ্ছেদ বা এফজিএম এখনো চালু আছে, সেসব দেশ থেকে সাম্প্রতিক সময়ে জার্মানিতে নারীর আগমন বেড়ে যাওয়ায় এখানে এমন চর্চার শিকার নারীর সংখ্যা বেড়ে গেছে বলে মনে করছে সংগঠনটি।

‘ট্যঁর দ্যে ফ্যাম’ জানিয়েছে, যৌনাঙ্গচ্ছেদের শিকার ৬৫,০০০ নারী বর্তমানে জার্মানিতে অবস্থান করছেন৷

জাতিসংঘের শিশু বিষয়ক সংগঠন ইউনিসেফ-এর হিসেব অনুযায়ী, তাঁর দেশ সোমালিয়াতে এফজিএমের চর্চা সবচেয়ে বেশি৷ দেশটির ১৫ থেকে ৪৯ বছর বয়সি ৯৮ শতাংশ নারীই এর শিকার৷

‘‘যৌনাঙ্গচ্ছেদের জন্য তথাকথিত হাজাম রয়েছে৷ তবে তাঁরা আসলে জানেন না তাঁরা ঠিক কী করছেন৷ তাঁদের কাছে একটি ছুরি এবং একটি রেজার থাকে৷ আর সেগুলো দিয়ে তাঁরা কেটে ফেলে,” বলেন ইফরা৷

কেনিয়ার রিফ্ট গ্রামের এই নারী হাতে থাকা ব্লেডটি দিয়ে ইতোমধ্যে চারজনের যৌনাঙ্গচ্ছেদ করেছেন৷ পোকোট জনগোষ্ঠীর ঐতিহ্য অনুযায়ী, ব্লেড দিয়ে মেয়েদের যৌনাঙ্গের বাইরের অংশ কেটে বা যৌনাঙ্গচ্ছেদের মাধ্যমে তাঁদের মেয়ে থেকে নারীতে পরিণত করা হয়৷ যদিও বিশ্বের অনেক দেশে এটা নিষিদ্ধ, তাসত্ত্বেও অনেক নারী এখনো এই বর্বরতার শিকার হন৷

নারীর যৌনাঙ্গচ্ছেদ নানা প্রক্রিয়ায় করা হয়৷ কোথাও কোথাও যৌনাঙ্গের ভগাঙ্কুরের অংশবিশেষ কেটে ফেলা হয়৷ আবার মেয়েরা যাতে যৌনমিলনের সময় বেশি আনন্দ না পায় এবং বিয়ের আগ অবধি কুমারী থাকে, সেই উদ্দেশ্যে অনেক জায়গায় যোনির প্রবেশপথও সেলাই করে দেয়া হয়৷৷ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার হিসেব অনুযায়ী, গোটা বিশ্বে বিশ কোটি নারী এফজিএম-এর শিকার৷ আর এর ফলে নারীর মাসিকের সময় প্রদাহ, কাটাস্থলে বারংবার ইনফেকশন, সন্তান জন্মদানে সমস্যা এবং যৌনক্ষমতা কমে যাওয়াসহ নানা সমস্যা হয়৷

জার্মানিতে এফজিএম নিষিদ্ধ হলেও অভিবাসী পরিবারে জন্ম নেয়া ১৫,৫০০ মেয়ে এই চর্চার শিকার হওয়ার ঝুঁকিতে আছে বলে জানিয়েছে ‘ট্যঁর দ্যে ফ্যাম’৷


সোনালী ব্যাংকের সিবিএ সভাপতি কামাল উদ্দিন বরখাস্ত

বিশ্বের বন্দরগুলোর মধ্যে চট্টগ্রাম ৭০তম


এ বিভাগের আরো খবর...

প্রচণ্ড শীত ও ঘন কুয়াশায় ৩১ রোহিঙ্গা শূন্যরেখায় প্রচণ্ড শীত ও ঘন কুয়াশায় ৩১ রোহিঙ্গা শূন্যরেখায়
১১ হাসপাতালে দুদকের অভিযান, ৪০ শতাংশ চিকিৎসক অনুপস্থিত ১১ হাসপাতালে দুদকের অভিযান, ৪০ শতাংশ চিকিৎসক অনুপস্থিত
বিশ্বের অর্ধেক মানুষের সম্পদ ২৬ ধনীর হাতে বিশ্বের অর্ধেক মানুষের সম্পদ ২৬ ধনীর হাতে
নাইকো মামলার পরবর্তী শুনানি ৪ ফেব্রুয়ারি নাইকো মামলার পরবর্তী শুনানি ৪ ফেব্রুয়ারি
সংসদে যেতে পারছেন না তৃতীয় লিঙ্গের কেউ সংসদে যেতে পারছেন না তৃতীয় লিঙ্গের কেউ
কৃত্রিম উল্কা বৃষ্টি ছিটাবে- জাপান কৃত্রিম উল্কা বৃষ্টি ছিটাবে- জাপান
নতুন ২৫০ রোহিঙ্গাকে বাংলাদেশে ফেরত পাঠাচ্ছে- সৌদি আরব নতুন ২৫০ রোহিঙ্গাকে বাংলাদেশে ফেরত পাঠাচ্ছে- সৌদি আরব
৫০ হাজার পুলিশ নিয়োগ দেয়ার নির্দেশ ৫০ হাজার পুলিশ নিয়োগ দেয়ার নির্দেশ
এস কে সিনহার দুর্নীতি মামলার তদন্ত প্রতিবেদন ২৬ ফেব্রুয়ারি এস কে সিনহার দুর্নীতি মামলার তদন্ত প্রতিবেদন ২৬ ফেব্রুয়ারি
প্রধানমন্ত্রীকে ওআইসি মহাসচিবের অভিনন্দন প্রধানমন্ত্রীকে ওআইসি মহাসচিবের অভিনন্দন

সর্বাধিক পঠিত

আফগান সেনা ঘাঁটিতে তালেবান হামলা, নিহত শতাধিক আফগান সেনা ঘাঁটিতে তালেবান হামলা, নিহত শতাধিক
বিশ্ব ইজতেমা নিয়ে এখনও সংশয় কাটেনি বিশ্ব ইজতেমা নিয়ে এখনও সংশয় কাটেনি
ভারতে ষাঁড়ের রেসলিং উৎসবে নিহত ২ ভারতে ষাঁড়ের রেসলিং উৎসবে নিহত ২
ফ্রাঙ্কলিংকের ঝড়ে উড়ে গেল ঢাকা ডায়নামাইটস ফ্রাঙ্কলিংকের ঝড়ে উড়ে গেল ঢাকা ডায়নামাইটস
বড় সংগ্রহ গড়তে পারেনি সাকিবের ঢাকা বড় সংগ্রহ গড়তে পারেনি সাকিবের ঢাকা
রাতভর নেচে অসুস্থ বিপাশা রাতভর নেচে অসুস্থ বিপাশা
বিশ্ব ইজতেমা অনুষ্ঠানের নির্দেশনা চেয়ে হাইকোর্টে রিট বিশ্ব ইজতেমা অনুষ্ঠানের নির্দেশনা চেয়ে হাইকোর্টে রিট
রাষ্ট্রপতির সঙ্গে নৌবাহিনী প্রধানের বিদায়ী সাক্ষাৎ রাষ্ট্রপতির সঙ্গে নৌবাহিনী প্রধানের বিদায়ী সাক্ষাৎ
প্রচণ্ড শীত ও ঘন কুয়াশায় ৩১ রোহিঙ্গা শূন্যরেখায় প্রচণ্ড শীত ও ঘন কুয়াশায় ৩১ রোহিঙ্গা শূন্যরেখায়
বুধবারের বৈঠকে ইজতেমা নিয়ে সিদ্ধান্ত:স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বুধবারের বৈঠকে ইজতেমা নিয়ে সিদ্ধান্ত:স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
বেআইনি ব্যাংকিং কার্যক্রমের বিরুদ্ধে বহুমুখী পদক্ষেপ নিন
খাদ্যে অতিরিক্ত ট্রান্সফ্যাটের কারণে, প্রতি বছর বিশ্বে পাঁচ লাখ মানুষের মৃত্যু হয়
স্বাধীনতার পর প্রথমবার ‘মন্ত্রীশূন্য’ কিশোরগঞ্জ
মন চুরির অভিযোগ পুলিশের কাছে!
সৈয়দ আশরাফ যে কবরে সমাহিত হবেন
ব্যবসায়ীদের বিনিয়োগের বাধা দূর করতে হবে?
মহাজোটের মহাজয়ে শেখ হাসিনা
বাংলাদেশে নির্বাচন-পরবর্তী সহিংসতা রোধ করুন!
নেইমারের সমালোচনায় পেলে
জলবায়ু পরিবর্তনে বিশ্বব্যাংক-আইএফসি ২২ বিলিয়ন ডলার দিবে