ঢাকা, সেপ্টেম্বর ২৩, ২০১৮, ৮ আশ্বিন ১৪২৫
---
bbc24news.com
প্রথম পাতা » সম্পাদকীয় » নিম্নমানের ওষুধ মনিটরিংয়ে শক্তিশালী পদক্ষেপ নিন?
মঙ্গলবার ● ৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৮ আশ্বিন ১৪২৫
Email this News Print Friendly Version

নিম্নমানের ওষুধ মনিটরিংয়ে শক্তিশালী পদক্ষেপ নিন?

---শাহাদাৎ হোসেন: নকল ও নিুমানের ওষুধের বিস্তার রোধে অনেক পদক্ষেপ নেয়া হলেও সারা দেশের ওষুধ বাজারে মানহীন ওষুধ ছড়িয়ে পড়েছে। বিষয়টি উদ্বেগজনক।ওষুধের বিরূপ প্রভাবে দেশে কত মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে তার সঠিক হিসাব পাওয়া না গেলেও এর কারণে অনেক পরিবারকে যে পথে বসতে হয়েছে এ ব্যাপারে সন্দেহ নেই।এতদিন কোনো ভুক্তভোগী তার ওষুধের বিরূপ প্রভাবের কথা কেবল সংশ্লিষ্ট চিকিৎসককে জানাতে পারতেন, ক্ষেত্রবিশেষে চিকিৎসককে এ তথ্য জানাতেও অনেক রোগীকে নানারকম বিড়ম্বনার শিকার হতে হতো।

এখন থেকে ওষুধের বিরূপ প্রভাব দেখা দিলে সঙ্গে সঙ্গে এ অভিযোগ জানানো যাবে ঔষধ প্রশাসন অধিদফতরে। অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে অধিদফতর ওষুধ উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানকে বিরূপ প্রভাবের কারণ অনুসন্ধানে নির্দেশনা প্রদান করবে। এতে পরবর্তী পর্যায়ে ওষুধ ব্যবহারে চিকিৎসকরা আরও সতর্ক হতে পারবেন। এ প্রক্রিয়াটি সম্ভব হয়েছে বাংলাদেশ ফার্মাকোভিজিলেন্স নেটওয়ার্কে প্রবেশ করার ফলে।

উল্লেখ্য, ফার্মাকোভিজিলেন্সের মূল লক্ষ্য হল ওষুধের নিরাপদ ও যুক্তিসঙ্গত ব্যবহারের মাধ্যমে রোগীর সঠিক চিকিৎসাপ্রাপ্তি নিশ্চিত করা। বর্তমানে দেশের সীমিতসংখ্যক হাসপাতাল ও ফার্মাসিউটিক্যাল কোম্পানিকে এ কার্যক্রমের আওতায় আনা হয়েছে। এ ছাড়া সীমিতসংখ্যক চিকিৎসক, নার্স ও ফার্মাসিস্টকে এ কার্যক্রমের আওতায় প্রশিক্ষণ দেয়া হয়েছে।

এ কার্যক্রমের পরিধি দ্রুত বাড়ানোর পদক্ষেপ নেয়া হলে এর মাধ্যমে সারা দেশের মানুষ বিশেষভাবে উপকৃত হবে। এ কার্যক্রমকে শক্তিশালী করতে একটি গাইডলাইন প্রণয়ন করা হয়েছে। এ গাইডলাইন ওষুধের বিরূপ প্রতিক্রিয়া মনিটরিংয়ে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণে সহায়ক ভূমিকা পালন করবে বলে আশা করা যায়। ওষুধ কোম্পানি, হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ, চিকিৎসক, ফার্মাসিস্ট, নার্সসহ সংশ্লিষ্ট সবাই গাইডলাইন অনুসরণ করে ফার্মাকোভিজিলেন্স কার্যক্রমে অংশগ্রহণ করলে জনগণের নিরাপদ চিকিৎসাপ্রাপ্তি নিশ্চিত হবে।

বিশেষত অসাধু ব্যবসায়ীরা মফস্বলে নিুমানের ওষুধ বাজারজাত করে থাকে। তাদের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ নেয়া না হলে মানুষ নানাভাবে প্রতারিত হবে।


যা থাকছে বাংলাদেশ একাদশে!

২১ বছর পর একসঙ্গে সঞ্জয়-মাধুরী


এ বিভাগের আরো খবর...

৩ লাখ মানুষ বছরে ক্যান্সারে আক্রান্ত হচ্ছে- নাসিম ৩ লাখ মানুষ বছরে ক্যান্সারে আক্রান্ত হচ্ছে- নাসিম
শহরাঞ্চলের স্বাস্থ্যসেবায় আরও ১১ কোটি ডলার দেবে- এডিবি শহরাঞ্চলের স্বাস্থ্যসেবায় আরও ১১ কোটি ডলার দেবে- এডিবি
স্বাস্থ্য খাতের ঋণ সহায়তা ১১ কোটি ডলার এডিবি স্বাস্থ্য খাতের ঋণ সহায়তা ১১ কোটি ডলার এডিবি
খালি পেটে রসুন খাওয়ার অভ্যস করুন খালি পেটে রসুন খাওয়ার অভ্যস করুন
অবৈধ হাসপাতালগুলো আদালতের নির্দেশ মানছে না কেন? অবৈধ হাসপাতালগুলো আদালতের নির্দেশ মানছে না কেন?
চৈত্রে সুস্থ থাকতে এই খাবারগুলোকে না বলুন চৈত্রে সুস্থ থাকতে এই খাবারগুলোকে না বলুন
বিশ্বে যৌনরোগ সিফিলিসের সংক্রমণ ভয়াবহভাবে বাড়ছে! বিশ্বে যৌনরোগ সিফিলিসের সংক্রমণ ভয়াবহভাবে বাড়ছে!
যৌন ভাইরাস নিয়ে যত লজ্জা ও অজ্ঞতা কেন? যৌন ভাইরাস নিয়ে যত লজ্জা ও অজ্ঞতা কেন?
শিল্পে গ্যাস সংযোগ না দেওয়া, আর্থিক ক্ষতির মুখে-সরকার শিল্পে গ্যাস সংযোগ না দেওয়া, আর্থিক ক্ষতির মুখে-সরকার
চলতি বছরে প্রায় ২ কোটি মানুষ ক্যান্সারে আক্রান্ত হবে? চলতি বছরে প্রায় ২ কোটি মানুষ ক্যান্সারে আক্রান্ত হবে?

সর্বাধিক পঠিত

মালয়েশিয়ায় ৫৫ বাংলাদেশি আটক মালয়েশিয়ায় ৫৫ বাংলাদেশি আটক
১ অক্টোবর থেকে সভা-সমাবেশ করবে জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়া ১ অক্টোবর থেকে সভা-সমাবেশ করবে জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়া
ডিজিটাল আইনের নিবর্তনমূলক ধারা বাতিল চায়- সুজন ডিজিটাল আইনের নিবর্তনমূলক ধারা বাতিল চায়- সুজন
ছেলেবেলা থেকেই নেইমার আমার আদর্শ-রিশার্লিসন ছেলেবেলা থেকেই নেইমার আমার আদর্শ-রিশার্লিসন
ইরানে সামরিক কুচকাওয়াজে হামলায় নিহত ২৪ ইরানে সামরিক কুচকাওয়াজে হামলায় নিহত ২৪
অধিকার পুনোরুদ্ধার করতে জনগণকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে- কামাল অধিকার পুনোরুদ্ধার করতে জনগণকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে- কামাল
রোহিঙ্গা ইস্যুতে কূটনৈতিক প্রচেষ্টার সঙ্গে সামরিক প্রস্তুতিও নিতে হবে রোহিঙ্গা ইস্যুতে কূটনৈতিক প্রচেষ্টার সঙ্গে সামরিক প্রস্তুতিও নিতে হবে
নরসিংদীতে ব্রহ্মপুত্রে নৌকা ডুবি, নিহত ৩ নরসিংদীতে ব্রহ্মপুত্রে নৌকা ডুবি, নিহত ৩
জিতের শহর কলকাতায় ‘নাকাব’৮৪টি প্রেক্ষাগৃহে চলছে জিতের শহর কলকাতায় ‘নাকাব’৮৪টি প্রেক্ষাগৃহে চলছে
ড. কামালের ‘ঐক্য প্রক্রিয়া’র সমাবেশে ফখরুল ড. কামালের ‘ঐক্য প্রক্রিয়া’র সমাবেশে ফখরুল
শিল্পে গ্যাস সংযোগ না দেওয়া, আর্থিক ক্ষতির মুখে-সরকার
গুদামের খাদ্যদ্রব্য পাচারে-সক্রিয় চোর সিন্ডিকেট
প্যারিস জলবায়ু চুক্তি ৩০০ পৃষ্ঠার খসড়া অনুমোদন করেছে-ব্যাংকক
সড়ক শৃঙ্খলা-মূল সমস্যাটা রাজনীতিতেই: কাদের
বিশ্বের ভয়াবহ আবহাওয়া নিয়ে প্রযুক্তিগত আলোচনা চলছে
রোহিঙ্গা প্রশ্নে চীন-রাশিয়াকে-জাতিসংঘের কড়া হুুশিয়ারি!
খালেদা জিয়ার জামিন বহাল
বিমসটেক শীর্ষ সম্মেলনে নেপালে প্রধানমন্ত্রী
আওয়ামী লীগের জন্য যা পেয়েছি তা ভয়ংকর!
‘ট্যঁর দ্যে ফ্যাম’ রিপোর্ট: জার্মানিতে যৌনাঙ্গচ্ছেদে শিকার-৬৫হাজার নারী