ঢাকা, অক্টোবর ২১, ২০১৮, ৬ কার্তিক ১৪২৫
---
bbc24news.com
প্রথম পাতা » জাতীয় » রাধানীতে যানজট নিরসনে পরিকল্পনা হলেও বাস্তবায়ন নেই
বৃহস্পতিবার ● ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৬ কার্তিক ১৪২৫
Email this News Print Friendly Version

রাধানীতে যানজট নিরসনে পরিকল্পনা হলেও বাস্তবায়ন নেই

---বিবিসি২৪নিউজ,নিজস্ব প্রতিবেদক:ঢাকা পরিবহন সমন্বয় কর্তৃপক্ষ (ডিটিসিএ) শিক্ষা নিতে পারে বলে মনে করেন বিশেষজ্ঞ ও বিশিষ্টজনরা।আজ রাজধানীর তোপখানা রোডস্থ সিরডাপ মিলনায়তনে ‘ঢাকা শহরের যানজট নিরসনে স্বল্প মেয়াদী কর্ম পরিকল্পনা-প্রেক্ষিত সংশোধিত কৌশলগত পরিবহন পরিকল্পনা’ এবং ‘ব্যক্তিগত গাড়ি ব্যবহার নিয়ন্ত্রণে বহুমাধ্যম ভিত্তিক পরিবহন ব্যবস্থার গুরুত্ব’ শীর্ষক অংশীজন সভায় এসব কথা বলেন আমন্ত্রিত বিশেষজ্ঞ বিশিষ্টজনরা।

ডিটিসিএ এর নির্বাহী পরিচালক (অতিরিক্ত সচিব) খন্দকার রাকিবুর রহমানের সঞ্চালনায় সভায় পৃথক প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বাংলাদেশ প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) পুরকৌশল অধ্যাপক মোয়াজ্জেম হোসেন ও বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব প্ল্যানার্সের (বিআইপি) সহ-সভাপতি অধ্যাপক ড. আকতার হোসেন।

প্রবন্ধ উপস্থাপন শেষে বিশিষ্ট কলামিস্ট আবুল মকসুদ বলেন, ‘ঢাকা শহরের সঙ্গে অন্য শহরের যদি যোগাযোগ উন্নয়ন না হয় তবে সরকারের সব উন্নয়ন পরিকল্পনাই ব্যর্থ।

কী শিক্ষা আর প্রযুক্তি? অন্য সব খাতের তুলনায় এখনই সময় বরাদ্দ বাড়িয়ে যোগাযোগ ব্যবস্থাকে উন্নত করা।’

তিনি বলেন, ‘কিছু করতে চাইলেই আমরা অন্য সব উন্নত দেশের সঙ্গে তুলনা করি। এ তুলনায় বাংলাদেশের কোনো লাভ নেই। বরং দেশের সব মানুষের মানসিকতা, বাস্তবতা, মতামত, দেশের ভৌগলিক অবস্থা এবং মানুষের সংখ্যা উপলব্ধি করতে হবে। শুধু সড়কের কথা বললে হবে না, সড়কের সঙ্গে নৌ ও রেলের সমন্বয় জরুরি।’

তিনি বলেন, ‘ডিটিসিএ রিভাইস স্ট্র্যাটেজিক ট্রান্সপোর্ট প্ল্যান (আরএসটিপি) তৈরি করেছে। এ পরিকল্পনা বাস্তবায়নে সবার মতামত নিয়ে খুব দ্রুত একটা শক্তিশালী কমিশন বা কমিটি গঠন করতে হবে। যা কাজ শুরুর রুট ম্যাপ করে দেবেন। ‘

নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা) চেয়ারম্যান ইলিয়াস কাঞ্চন বলেন, ‘মানুষ বেশি সড়ক কম। আগে আমাদের চিন্তা, আচরণের পরিবর্তন, নিয়ম মানার মানসিকতা তৈরি করতে হবে।

ফুটওভার ব্রিজের চেয়ে রাজধানীতে বেশি সুবিধাজনক আন্ডারপাস সে ব্যাপারে কার্যকরী পদক্ষেপ নিতে হবে।

তিনি প্রশ্ন তুলে বলেন, ‘এক রাজধানীতে সব আনতে হবে কেন? জীবিকার টানে কেনই বা সবাইকে ঢাকা আসবে হবে? এই কেন এর জবাব আমরা জানি। কিন্তু বাস্তবায়নের সদিচ্ছা নেই। ডিসেন্ট্রালাইজেশন না হওয়া পর্যন্ত ট্রাফিক পরিকল্পনা বাস্তবায়ন সহজ হবে না।’

বাংলাদেশ প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) নগর ও অঞ্চল পরিকল্পনা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মো. মোসলেহ উদ্দিন বলেন, ‘শহরের পরিবহনকেন্দ্রিক চিন্তা বাড়াতে হবে, মেগাপ্রকল্প গ্রহণ করতে হবে। পরিকল্পনাও হচ্ছে এখন অ্যাকশন জরুরি।’

বুয়েটের এক্সিডেন্ট রিচার্স ইনস্টিটিউটের (এআরআই) সহকারী অধ্যাপক কাজী মো. সাইফুন নেওয়াজ বলেন, ‘রাজধানীর ভূখণ্ড ব্যবহার ও নতুন নতুন রাস্তা তৈরি করে থাকে সিটি কর্পোরেশন। কিন্তু তাদের কোনো গাইড লাইন নেই। একটা রাস্তা তৈরির আগে অনেক কিছুই বিবেচনায় আনতে হয়। সেগুলো শুরু করা উচিত।’

বুয়েটের সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক ড. শামসুল হক বলেন, ‘রাজধানীতে যানবাহন চলাচলে শৃঙ্খলা ফেরানো গেলে যানজট এমনিতেই কমে আসবে। কিন্তু সেটা সরকার, কিংবা ডিটিসিএ পারেনি। তাহলে স্বল্প ও দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা যাই গ্রহণ করা হোক না কেন, সেটার বাস্তবায়ন জরুরি।’

তিনি বলেন, ঢাকা উত্তর সিটির প্রয়াত মেয়র আনিসুল হক দরদ ও সাহসিকতার সঙ্গে স্বল্প সময়ের মধ্যে গুলশানে যান চলাচল নিয়ন্ত্রণ করেছেন। সেখানকার ফুটপাত এখন রাজধানীর জন্য আদর্শ। তেমনিভাবে রাজধানীর হাতিরঝিলও আদর্শ উদাহরণ। তাহলে আমরা পুরো রাজধানীতে পারছি না কেন?’

তিনি বলেন, ‘খাম্বা মার্কা উন্নয়ন দেশের জন্য টেকসই নয় বরং এটা যে কত বড় ক্ষতি তা পরে টের পাওয়া যাবে। দেশে এতো এতো ফুটওভার ব্রিজ পৃথিবীর আর কোনো দেশে নেই। আবার সেই দেশে জোরপূর্বক ফুটওভার ব্রিজে উঠানোর চেষ্টা চলছে।


একমাসে রফতানি আয় কমেছে ৩৭ কোটি মার্কিন ডলার

পার্টি ডাকলে সাড়া দেবো, সিনেমা নিয়ে ব্যস্ত-জ্যোতি


এ বিভাগের আরো খবর...

আমেরিকা চুক্তি থেকে বেরিয়ে আসলে পাল্টা ব্যবস্থা নেবে- মস্কো আমেরিকা চুক্তি থেকে বেরিয়ে আসলে পাল্টা ব্যবস্থা নেবে- মস্কো
মার্কিন জোটের যুদ্ধাপরাধে ব্যবস্থা নিন- জাতিসংঘকে সিরিয়া মার্কিন জোটের যুদ্ধাপরাধে ব্যবস্থা নিন- জাতিসংঘকে সিরিয়া
নিরাপত্তা পরিষদের নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করুন: ইয়েমেন নিরাপত্তা পরিষদের নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করুন: ইয়েমেন
ইরান থেকে তেল আমদানি বাড়াচ্ছে- তুরস্ক ইরান থেকে তেল আমদানি বাড়াচ্ছে- তুরস্ক
সিলেটে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সমাবেশের অনুমতি সিলেটে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সমাবেশের অনুমতি
দশম সংসদের শেষ অধিবেশন শুরু, চলবে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত দশম সংসদের শেষ অধিবেশন শুরু, চলবে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত
প্রধানমন্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন আগামীকাল প্রধানমন্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন আগামীকাল
চোখ হারানো প্রত্যেককে ১০ লাখ করে ক্ষতিপূরণ দেয়ার নির্দেশ চোখ হারানো প্রত্যেককে ১০ লাখ করে ক্ষতিপূরণ দেয়ার নির্দেশ
স্টিয়ারিং ও সমন্বয়ক কমিটির যৌথসভায় জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট স্টিয়ারিং ও সমন্বয়ক কমিটির যৌথসভায় জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট
ডিজিটাল ডিসপ্লের মাধ্যমে প্রচারণা চালানো যাবে- হেলালুদ্দীন ডিজিটাল ডিসপ্লের মাধ্যমে প্রচারণা চালানো যাবে- হেলালুদ্দীন

সর্বাধিক পঠিত

আমেরিকা চুক্তি থেকে বেরিয়ে আসলে পাল্টা ব্যবস্থা নেবে- মস্কো আমেরিকা চুক্তি থেকে বেরিয়ে আসলে পাল্টা ব্যবস্থা নেবে- মস্কো
মার্কিন জোটের যুদ্ধাপরাধে ব্যবস্থা নিন- জাতিসংঘকে সিরিয়া মার্কিন জোটের যুদ্ধাপরাধে ব্যবস্থা নিন- জাতিসংঘকে সিরিয়া
নিরাপত্তা পরিষদের নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করুন: ইয়েমেন নিরাপত্তা পরিষদের নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করুন: ইয়েমেন
ইরান থেকে তেল আমদানি বাড়াচ্ছে- তুরস্ক ইরান থেকে তেল আমদানি বাড়াচ্ছে- তুরস্ক
সিলেটে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সমাবেশের অনুমতি সিলেটে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সমাবেশের অনুমতি
দশম সংসদের শেষ অধিবেশন শুরু, চলবে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত দশম সংসদের শেষ অধিবেশন শুরু, চলবে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত
প্রধানমন্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন আগামীকাল প্রধানমন্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন আগামীকাল
চীনের অ্যালুমিনিয়াম রফতানি ৩৭% বেড়েছে চীনের অ্যালুমিনিয়াম রফতানি ৩৭% বেড়েছে
চোখ হারানো প্রত্যেককে ১০ লাখ করে ক্ষতিপূরণ দেয়ার নির্দেশ চোখ হারানো প্রত্যেককে ১০ লাখ করে ক্ষতিপূরণ দেয়ার নির্দেশ
স্টিয়ারিং ও সমন্বয়ক কমিটির যৌথসভায় জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট স্টিয়ারিং ও সমন্বয়ক কমিটির যৌথসভায় জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট
নদীশাসনের দুর্বলতা বিঘ্নিত হচ্ছে নৌপথে চলাচল
শিল্পে গ্যাস সংযোগ না দেওয়া, আর্থিক ক্ষতির মুখে-সরকার
গুদামের খাদ্যদ্রব্য পাচারে-সক্রিয় চোর সিন্ডিকেট
প্যারিস জলবায়ু চুক্তি ৩০০ পৃষ্ঠার খসড়া অনুমোদন করেছে-ব্যাংকক
সড়ক শৃঙ্খলা-মূল সমস্যাটা রাজনীতিতেই: কাদের
বিশ্বের ভয়াবহ আবহাওয়া নিয়ে প্রযুক্তিগত আলোচনা চলছে
রোহিঙ্গা প্রশ্নে চীন-রাশিয়াকে-জাতিসংঘের কড়া হুুশিয়ারি!
খালেদা জিয়ার জামিন বহাল
বিমসটেক শীর্ষ সম্মেলনে নেপালে প্রধানমন্ত্রী
আওয়ামী লীগের জন্য যা পেয়েছি তা ভয়ংকর!