ঢাকা, নভেম্বর ২০, ২০১৮, ৬ অগ্রহায়ন ১৪২৫
---
bbc24news.com
প্রথম পাতা » সম্পাদকীয় » নদীশাসনের দুর্বলতা বিঘ্নিত হচ্ছে নৌপথে চলাচল
বৃহস্পতিবার ● ১৮ অক্টোবর ২০১৮, ৬ অগ্রহায়ন ১৪২৫
Email this News Print Friendly Version

নদীশাসনের দুর্বলতা বিঘ্নিত হচ্ছে নৌপথে চলাচল

---শাহাদাত হোসেন: নাব্য সংকটের কারণে প্রায়ই বিঘ্নিত হচ্ছে নৌপথে চলাচল এবং বড় ধরনের সমস্যার মধ্যে পড়তে হচ্ছে যাত্রীবাহী ও মালবাহী পরিবহনগুলোকে।নদীমাতৃক দেশ হয়েও নদীশাসনে দুর্বলতা আমাদের জন্য বড় সমস্যাই বলতে হবে।সর্বশেষ নাব্য সংকটের কারণে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌরুটে ফেরি চলাচল বিঘ্নিত হওয়ায় যানবাহনের সারি দীর্ঘ ৫ কিলোমিটার ছাড়িয়ে গেছে। নাব্য সংকটের কারণে মঙ্গলবার সকালে তিনটি ফেরি ডুবোচরে আটকে পড়ায় এমন পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে।

বিআইডব্লিউটিএ’র ৪টি ড্রেজার ড্রেজিং কাজ করলেও পরিস্থিতি স্বাভাবিক হচ্ছে না এবং দৌলতদিয়া ১ ও ২ নং ঘাটে নাব্য সংকটের কারণে পূর্ণবোঝাই কোনো ফেরি ভিড়তে পারছে না।

দেশে বর্ষা-বৃষ্টি মৌসুম শেষ না হতেই যদি পরিস্থিতি এমন হয়, তবে সামনে শীত ও শুষ্ক মৌসুমে তা যে আরও ভয়াবহ আকার ধারণ করবে, তা বলার অপেক্ষা রাখে না।

পদ্মা নদীর পানি কমছে এবং এখন প্রতিদিন পানির প্রবাহ কমবে বিধায় নদীর নাব্য সংকটে যেন নৌ চলাচল বিঘ্নিত না হয়, তা নিশ্চিত করার বিকল্প নেই।

কারণ, নাব্য সংকটের ফলে শীতের মৌসুমে ফেরি ও নৌযান চলাচল বিঘ্ন হলে যাত্রীদের যেমন ভোগান্তি হবে, তেমনি মৌসুমি সবজি-ফলমূলসহ অন্যান্য পণ্যের সরবরাহ এবং দামেও তার প্রভাব পড়বে।

নদীমাতৃক দেশ হয়েও সবসময় নিজেদের নৌপথ নির্বিঘ্ন রাখতে না পারা আমাদের জন্য দুর্ভাগ্যজনক। নিয়মিত ড্রেজিং করার পরও কেন নাব্য ঠিক রাখা যায় না এবং ড্রেজিংয়ে ‘শুভঙ্করের ফাঁকি’ আছে কিনা, খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নেয়া দরকার।

৩ হাজার ৬০ কিলোমিটার মেইন কার্গোজাহাজ রুটসহ আমাদের মোট নৌপথ ৮ হাজার ৩৭০ কিলোমিটার। এর মধ্যে শুষ্ক মৌসুমে তা নেমে আছে ৪ হাজার ৮০০ থেকে ৫ হাজার ২০০ কিলোমিটারের মধ্যে।

যথাযথ রক্ষণাবেক্ষণের অভাবে কমছে নৌরুট। অথচ কম খরচে, নিরাপদ ও সঠিক সময়ে গন্তব্যে পৌঁছার জন্য নৌপথের বিকল্প নেই। বিশেষত, পণ্য আনা-নেয়ার জন্য নৌপথ পৃথিবীজুড়েই আদর্শ মাধ্যম।কিন্তু অনিয়ম-দুর্নীতি, এমনকি অদূরদর্শিতার কারণে আমাদের নদ-নদী ও নৌপথগুলোকে সেভাবে কাজে লাগানো যায়নি। সবচেয়ে ব্যস্ত নৌরুট পাটুরিয়া-দৌলতদিয়ায় নাব্য সংকট, কুয়াশা ও অন্যান্য কারণে প্রায়ই অচলাবস্থা তৈরিই তার প্রমাণ।এ অবস্থায় শুষ্ক মৌসুম সামনে রেখে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়াসহ দেশের সব নৌরুটকে নির্বিঘ্ন রাখার উদ্যোগ নেয়া দরকার।


ফল সবজির বিশেষায়িত হিমাগার-রংপুরে

সকল র্ধমের মানুষ পূজায় আনন্দ উদযাপন করে


এ বিভাগের আরো খবর...

নির্বাচনে সবার অংশগ্রহণ-গণতন্ত্রের জন্য ইতিবাচক নির্বাচনে সবার অংশগ্রহণ-গণতন্ত্রের জন্য ইতিবাচক
বাংলাদেশের রাজনৈতিতে সংলাপের কতটুকু গুরুত্ব পায়? বাংলাদেশের রাজনৈতিতে সংলাপের কতটুকু গুরুত্ব পায়?
বহুল প্রত্যাশিত সংলাপে কি ছিল? বহুল প্রত্যাশিত সংলাপে কি ছিল?
একটি অর্থবহ ও সফল সংলাপের প্রত্যাশা করছি একটি অর্থবহ ও সফল সংলাপের প্রত্যাশা করছি
বিশ্বের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের অপব্যবহার নয় বিশ্বের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের অপব্যবহার নয়
শেখ হাসিনা বার্ন ইন্সটিটিউটের: প্রত্যাশিত স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত হবে কি? শেখ হাসিনা বার্ন ইন্সটিটিউটের: প্রত্যাশিত স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত হবে কি?
নদীশাসনের দুর্বলতা বিঘ্নিত হচ্ছে নৌপথে চলাচল নদীশাসনের দুর্বলতা বিঘ্নিত হচ্ছে নৌপথে চলাচল
দৃষ্টিহীনদের জন্য পুজো কতটা আনন্দদায়ক? দৃষ্টিহীনদের জন্য পুজো কতটা আনন্দদায়ক?
অবৈধ হাসপাতালগুলো আদালতের নির্দেশ মানছে না কেন? অবৈধ হাসপাতালগুলো আদালতের নির্দেশ মানছে না কেন?
শিল্পে গ্যাস সংযোগ না দেওয়া, আর্থিক ক্ষতির মুখে-সরকার শিল্পে গ্যাস সংযোগ না দেওয়া, আর্থিক ক্ষতির মুখে-সরকার

সর্বাধিক পঠিত

তেল দৈনিক ১০ লাখ ব্যারেল বাড়াতে চায় ভেনিজুয়েলা তেল দৈনিক ১০ লাখ ব্যারেল বাড়াতে চায় ভেনিজুয়েলা
পেঁয়াজের দাম কমেছে কেজিতে ১১ টাকা পেঁয়াজের দাম কমেছে কেজিতে ১১ টাকা
দীপিকা-রণবীর মুম্বইতে ইন্ডাস্ট্রির বন্ধুদের, সহকর্মীদের জন্য পার্টি দেবেন দীপিকা-রণবীর মুম্বইতে ইন্ডাস্ট্রির বন্ধুদের, সহকর্মীদের জন্য পার্টি দেবেন
ভারতের ৫৮ লাখ টন চাল রফতানি ৬ মাসে ভারতের ৫৮ লাখ টন চাল রফতানি ৬ মাসে
খালি গায়ে ঘর পরিষ্কার করে মাসিক আয় ৪ লাখ টাকা! খালি গায়ে ঘর পরিষ্কার করে মাসিক আয় ৪ লাখ টাকা!
কাঁকড়ার রক্ত ১১ লাখ টাকা প্রতি লিটার! কাঁকড়ার রক্ত ১১ লাখ টাকা প্রতি লিটার!
বর্ণচোরা ভণ্ডদের ঘৃণাভরে প্রত্যাখ্যান করবে জনগন- নাসিম বর্ণচোরা ভণ্ডদের ঘৃণাভরে প্রত্যাখ্যান করবে জনগন- নাসিম
জাতীয় পার্টি আবার জেগে উঠেছে: এরশাদ জাতীয় পার্টি আবার জেগে উঠেছে: এরশাদ
পর্যবেক্ষকদের নিরপেক্ষ ভাবে দায়িত্ব পালন করতে হবে- ইসি সচিব পর্যবেক্ষকদের নিরপেক্ষ ভাবে দায়িত্ব পালন করতে হবে- ইসি সচিব
সম্পদের হিসাব না দেওয়ায় রফিকুলের সাজা সম্পদের হিসাব না দেওয়ায় রফিকুলের সাজা
নির্বাচনে সবার অংশগ্রহণ-গণতন্ত্রের জন্য ইতিবাচক
বহুল প্রত্যাশিত সংলাপে কি ছিল?
একটি অর্থবহ ও সফল সংলাপের প্রত্যাশা করছি
শেখ হাসিনা বার্ন ইন্সটিটিউটের: প্রত্যাশিত স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত হবে কি?
নদীশাসনের দুর্বলতা বিঘ্নিত হচ্ছে নৌপথে চলাচল
শিল্পে গ্যাস সংযোগ না দেওয়া, আর্থিক ক্ষতির মুখে-সরকার
গুদামের খাদ্যদ্রব্য পাচারে-সক্রিয় চোর সিন্ডিকেট
প্যারিস জলবায়ু চুক্তি ৩০০ পৃষ্ঠার খসড়া অনুমোদন করেছে-ব্যাংকক
সড়ক শৃঙ্খলা-মূল সমস্যাটা রাজনীতিতেই: কাদের
বিশ্বের ভয়াবহ আবহাওয়া নিয়ে প্রযুক্তিগত আলোচনা চলছে