ঢাকা, জানুয়ারী ২১, ২০১৯, ৮ মাঘ ১৪২৫
---
bbc24news.com
প্রথম পাতা » সম্পাদকীয় » বিশ্বের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের অপব্যবহার নয়
রবিবার ● ২৮ অক্টোবর ২০১৮, ৮ মাঘ ১৪২৫
Email this News Print Friendly Version

বিশ্বের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের অপব্যবহার নয়

---শাহাদাত হোসেন:সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোর মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় হল ফেসবুক। বিশ্বের একশ’ কোটি মানুষ ফেসবুক ব্যবহার করে থাকে। যুবসমাজের একটি বিরাট অংশ চরমভাবে ফেসবুকে আসক্ত হয়ে পড়েছে।পৃথিবীকে আমাদের হাতের মুঠোয় এনে দিয়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম- ফেসবুক, টুইটার, গুগল প্লাস, ইনস্টাগ্রাম, মাই স্পেস, ইউটিউব ইত্যাদি। এসব সামাজিক মাধ্যম আমাদের ভৌগোলিক দূরত্ব কমালেও বাড়িয়েছে পারস্পরিক সম্পর্কের দূরত্ব। হুমকির দিকে ঠেলে দিচ্ছে যুবসমাজকে, ঘটাচ্ছে অবক্ষয়।

মোবাইল ফোন, ল্যাপটপে মাথাগুঁজে কাটছে তাদের দিন। তারা গভীর রাত পর্যন্ত তাকিয়ে থাকে ফোনের স্ক্রিনে। সকালে ঘুম থেকে উঠেই ফেসবুক লগইন করা যেন বাধ্যতামূলক। পড়ার টেবিলে বসেও মেসেঞ্জারের একটি টুং শব্দ তাদের চুম্বকের মতো টেনে নিচ্ছে অনলাইনে। তারপর ঘণ্টার পর ঘণ্টা কাটছে নিউজফিড স্ক্রল করে, যা পড়াশোনায় ব্যাঘাত ঘটাচ্ছে প্রতিনিয়ত।

অনেকে সারাদিন ফেসবুকে বুদ হয়ে থাকায় কমে যাচ্ছে পারিবারিক বন্ধন। ফাটল ধরছে স্বামী-স্ত্রী সম্পর্কে। সৃষ্টি হচ্ছে সন্দেহ, বাড়ছে পারিবারিক কলহ। পরিবারের সব সদস্যের একসঙ্গে বসে গল্পগুজব-হাসিঠাট্টা করার কথা সমাজ ভুলতে বসেছে। যতটুকু সময় অবসর মিলছে, তার পুরোটাই কাটছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। এই মাধ্যমগুলো শুধু তাদের সময়ই নষ্ট করছে না, নষ্ট করছে ভালো সম্পর্ক, ভালো অভ্যাস, আবেগ-বিবেক-নীতি-নৈতিকতা-মূল্যবোধ।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের অতিরিক্ত ব্যবহার যুবসমাজকে করছে অসামাজিক। রাস্তায় হাঁটার সময়ও তাদের চোখ থাকে ফোনের স্ক্রিনে, যা নানারকম দুর্ঘটনা ঘটিয়ে থাকে। এই মাধ্যমগুলো যুবসমাজকে করছে হতাশ। বন্ধুদের শেয়ার করা দামি গাড়ি, বাড়ি, ভালো চাকরি, পোশাক, লাইফ স্টাইলের তথ্য দেখে হতাশ হচ্ছে অনেকেই।

লাইক কমেন্ট পাওয়ার আশায় আপলোড করা হচ্ছে আপত্তিকর ছবি, ভিডিও। নিমিষেই ভাইরাল হয়ে পড়ছে মিথ্যা সংবাদ, যা সমাজে বিরাট নেতিবাচক প্রভাব ফেলছে। রান্নাঘর থেকে শোবার ঘর- সবকিছুর খবর ফেসবুকের কল্যাণে ছড়িয়ে পড়ছে বিশ্বব্যাপী। নিজেদের গুরুত্বপূর্ণ তথ্য চুরি হচ্ছে সবার অজান্তেই, যা ডেকে আনছে বড় ধরনের বিপদ। ইতিপূর্বে ফেসবুকের বিরুদ্ধে তথ্য চুরির বিভিন্ন অভিযোগ উঠতে দেখা গেছে।

যুবসমাজ আজ ঘরকুনো। তাদের শারীরিক বিকাশের জন্য প্রয়োজন খেলাধুলা, কায়িক শ্রম। অথচ সারাদিন শুয়ে বসে ফেসবুকিং করার কারণে সেই বিকাশটা তাদের হচ্ছে না। যুবসমাজের জন্য আরেকটা বড় হুমকি হল ফেসবুকীয় প্রেম। অধিকাংশ ক্ষেত্রেই এসব প্রেমে প্রতারণার ফাঁদ পাতা থাকে। প্রতারিত হয়ে আত্মহত্যার মতো ঘটনাও ঘটছে অহরহ।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলো যুবসমাজের রন্ধ্রে রন্ধ্রে ঢুকিয়ে দিচ্ছে একাকিত্বের ছোঁয়া। তারা বিচ্ছিন্ন হচ্ছে তাদের পারিবারিক ভালোবাসার জগৎ থেকে, জড়িয়ে পড়ছে ভার্চুয়াল জগতে, যে জগৎ একাকিত্ব ও হতাশা দিয়ে গড়া।

যুবসমাজকে এই ভয়ংকর অবক্ষয় থেকে বাঁচাতে প্রয়োজন পারিবারিক স্নেহের বন্ধন ও সামাজিক সহায়তা। মা-বাবার সঙ্গে ছেলেমেয়ের সম্পর্ক হতে হবে বন্ধুত্বের। পরম আস্থার জায়গা হবে মা-বাবা, যেখানে তারা তাদের সব ব্যক্তিগত বিষয় স্বতঃস্ফূর্তভাবে শেয়ার করতে পারবে। মা-বাবাকে তাদের সন্তানদের দিকে নজর রাখতে হবে। তাছাড়া তাদের মধ্যে ধর্মীয় মূল্যবোধ জাগিয়ে তুলতে হবে। কোনো ধর্মেই নৈতিকতাবহির্ভূত কাজের স্থান নেই।সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের অপব্যবহার থেকে তাদের বের করে নিয়ে আসা সমাজের নৈতিক দায়িত্ব।


দন্ডপ্রাপ্ত কেউ নির্বাচনে অংশ নিতে পারবে না- ইসি সচিব

কলেজছাত্রীদের গায়েও কালি মাখালো পরিবহন শ্রমিকরা


এ বিভাগের আরো খবর...

বেআইনি ব্যাংকিং কার্যক্রমের বিরুদ্ধে বহুমুখী পদক্ষেপ নিন বেআইনি ব্যাংকিং কার্যক্রমের বিরুদ্ধে বহুমুখী পদক্ষেপ নিন
খাদ্যে অতিরিক্ত ট্রান্সফ্যাটের কারণে, প্রতি বছর বিশ্বে পাঁচ লাখ মানুষের মৃত্যু হয় খাদ্যে অতিরিক্ত ট্রান্সফ্যাটের কারণে, প্রতি বছর বিশ্বে পাঁচ লাখ মানুষের মৃত্যু হয়
ব্যবসায়ীদের বিনিয়োগের বাধা দূর করতে হবে? ব্যবসায়ীদের বিনিয়োগের বাধা দূর করতে হবে?
বাংলাদেশে নির্বাচন-পরবর্তী সহিংসতা রোধ করুন! বাংলাদেশে নির্বাচন-পরবর্তী সহিংসতা রোধ করুন!
ইশতেহার নয়, কাজে বিশ্বাস করে দেশবাসী ইশতেহার নয়, কাজে বিশ্বাস করে দেশবাসী
বাড়ছে চাল উৎপাদন - নেপাল বাড়ছে চাল উৎপাদন - নেপাল
সবদলকে নির্বাচনী আচরণবিধি মেনে চলা উচিত সবদলকে নির্বাচনী আচরণবিধি মেনে চলা উচিত
নির্বাচন কমিশনকে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড নিশ্চিত করতে হবে নির্বাচন কমিশনকে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড নিশ্চিত করতে হবে
ভিকারুননিসার ছাত্রী-অরিত্রীর আত্মহত্যা-দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হওয়া উচিত! ভিকারুননিসার ছাত্রী-অরিত্রীর আত্মহত্যা-দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হওয়া উচিত!
শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে লাগেজ চুরি ঘটনা আবারও বেড়ে গেছে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে লাগেজ চুরি ঘটনা আবারও বেড়ে গেছে

সর্বাধিক পঠিত

বুধবারের বৈঠকে ইজতেমা নিয়ে সিদ্ধান্ত:স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বুধবারের বৈঠকে ইজতেমা নিয়ে সিদ্ধান্ত:স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
১১ হাসপাতালে দুদকের অভিযান, ৪০ শতাংশ চিকিৎসক অনুপস্থিত ১১ হাসপাতালে দুদকের অভিযান, ৪০ শতাংশ চিকিৎসক অনুপস্থিত
এবারের নির্বাচনের পরিবেশ ছিল সম্পূর্ণ শান্তিপূর্ণ- তথ্যমন্ত্রী এবারের নির্বাচনের পরিবেশ ছিল সম্পূর্ণ শান্তিপূর্ণ- তথ্যমন্ত্রী
শোয়েব মালিক বিশ্বকাপ জয়ের স্বপ্ন দেখছেন শোয়েব মালিক বিশ্বকাপ জয়ের স্বপ্ন দেখছেন
পাঁচ প্রতিষ্ঠানের পানি ‘মানহীন’ আদলতকে- বিএসটিআই পাঁচ প্রতিষ্ঠানের পানি ‘মানহীন’ আদলতকে- বিএসটিআই
নবম ওয়েজবোর্ড গঠনে ওবায়দুল কাদেরের নেতৃত্বে কমিটি নবম ওয়েজবোর্ড গঠনে ওবায়দুল কাদেরের নেতৃত্বে কমিটি
নোয়াখালীতে বাস-সিএনজি সংঘর্ষ নিহত ৪ নোয়াখালীতে বাস-সিএনজি সংঘর্ষ নিহত ৪
প্রতিবন্ধী কোটা আগের মতই আছে- শফিউল আলম প্রতিবন্ধী কোটা আগের মতই আছে- শফিউল আলম
রাষ্ট্রপতির ভাষণের খসড়া অনুমোদন দিয়েছে- মন্ত্রীসভা রাষ্ট্রপতির ভাষণের খসড়া অনুমোদন দিয়েছে- মন্ত্রীসভা
তালেবানের গাড়িবোমা হামলায় নিহত ১২ তালেবানের গাড়িবোমা হামলায় নিহত ১২
বেআইনি ব্যাংকিং কার্যক্রমের বিরুদ্ধে বহুমুখী পদক্ষেপ নিন
খাদ্যে অতিরিক্ত ট্রান্সফ্যাটের কারণে, প্রতি বছর বিশ্বে পাঁচ লাখ মানুষের মৃত্যু হয়
স্বাধীনতার পর প্রথমবার ‘মন্ত্রীশূন্য’ কিশোরগঞ্জ
মন চুরির অভিযোগ পুলিশের কাছে!
সৈয়দ আশরাফ যে কবরে সমাহিত হবেন
ব্যবসায়ীদের বিনিয়োগের বাধা দূর করতে হবে?
মহাজোটের মহাজয়ে শেখ হাসিনা
বাংলাদেশে নির্বাচন-পরবর্তী সহিংসতা রোধ করুন!
নেইমারের সমালোচনায় পেলে
জলবায়ু পরিবর্তনে বিশ্বব্যাংক-আইএফসি ২২ বিলিয়ন ডলার দিবে