ঢাকা, নভেম্বর ২০, ২০১৮, ৬ অগ্রহায়ন ১৪২৫
---
bbc24news.com
প্রথম পাতা » আমেরিকা » শতাব্দীর এক রেকর্ড গড়েছেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প
বৃহস্পতিবার ● ৮ নভেম্বর ২০১৮, ৬ অগ্রহায়ন ১৪২৫
Email this News Print Friendly Version

শতাব্দীর এক রেকর্ড গড়েছেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প

---বিবিসি২৪নিউজ,আন্তর্জাতিক ডেস্ক:শতাব্দীর এক রেকর্ড গড়েছেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। যুক্তরাষ্ট্রের ১০৮ বছরের ইতিহাসে এ পর্যন্ত মাত্র পাঁচবার ক্ষমতসীন প্রেসিডেন্ট কংগ্রেসের সিনেটে জয়লাভ করেছেন।

এর আগে ক্ষমতায় থাকা অবস্থায় প্রেসিডেন্ট জর্জ ডব্লিউ বুশ (রিপাবলিকান) ২০০২ সালে, জন এফ কেনেডি (ডেমোক্রেটিক) ১৯৬২ সালে, ফ্রাঙ্কলিন ডি রুজভেল্ট (ডেমোক্রেটিক) ১৯৩৪ সালে, উড্রু উইলসন (ডেমোক্রেটিক) ১৯১৪ সালে সিনেটে জয়ী হয়েছেন।

বাকি সব মধ্যবর্তী নির্বাচনে ক্ষমতাসীন দল সিনেটের নিয়ন্ত্রণ ধরে রাখতে পারলেও কোন আসনে জয় পায় নি।

যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যবর্তী নির্বাচনে কংগ্রেসের নিুকক্ষ প্রতিনিধি পরিষদ সহজেই ডেমোক্রেটিকের দখলে যাবে আগেই জরিপে জানা গিয়েছিল। হলও তাই। সবার নজর ছিল, উচ্চকক্ষ সিনেট থেকে তারা রিপাবলিকানদের হঠাতে পারবে কিনা।

কিন্তু রিপাবলিকানের সেই লাল দুর্গ ভাঙতে পারেনি ডেমোক্র্যাটদের নীল সেনারা। নির্বাচনের আগে ডেমোক্র্যাটদের সমর্থনে যে নীল ঢেউয়ের জোয়ার প্রত্যাশা করা হয়েছিল, আদতে ভোটে তেমনটা হয়নি।

তবে জয় হয়েছে ডেমোক্রেটিক দলের নারী প্রার্থীদের। ট্রাম্পের নারীবিদ্বেষের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়িয়ে রেকর্ডসংখ্যক ১৮০ নারী ডেমোক্রেটিক প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছিলেন। তাদের মধ্যে ৮৩ জন জয়ী হয়েছেন।

মঙ্গলবারের মধ্যবর্তী নির্বাচনে সিনেটের নিয়ন্ত্রণ ধরে রেখেছে ট্রাম্পের রিপাবলিকান দল। অপরদিকে, আট বছর পর প্রতিনিধি পরিষদ ছিনিয়ে নিয়েছে ডেমোক্রেটিক দল।

নিুকক্ষের ২২২ আসন নিশ্চিত করেছে ডেমোক্র্যাটরা। রিপাবলিকানরা জয় পেয়েছে ১৯৯ আসনে। ৪৩৫ আসনের হাউসে সংখ্যাগরিষ্ঠতার জন্য ২১৮টি আসন প্রয়োজন। সিনেটের ৩৫ আসনে নির্বাচন হয়েছে। এর মধ্যে ডেমোক্র্যাটরা জয় পেয়েছে ২২ আসনে।

রিপাবলিকান পেয়েছে ৯ আসনে। মধ্যবর্তী নির্বাচনের মাধ্যমে সিনেটে রিপাবলিকানের দখলে ৫১ আসন ও ডেমোক্র্যাটদের নিয়ন্ত্রণে রইল ৪৫ আসন (দুইজন স্বতন্ত্র প্রার্থী রয়েছে)। ১০০ আসনের সিনেটে সংখ্যাগরিষ্ঠতার জন্য দরকার ৫১ আসন।

৩৬টি রাজ্যে ও তিনটি অঞ্চলের গভর্নর পদেও মঙ্গলবার নির্বাচন হয়েছে। গভর্নর পদে ডেমোক্রেটিক দল জয় পেয়েছে ১৫ ও রিপাবলিকান পেয়েছে ১৭টিতে।

প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প রিপাবলিকান দলের বিজয়কে ‘অসাধারণ সাফল্য’ বলে উল্লেখ করেছেন। মঙ্গলবার রাতে এক টুইট বার্তায় তিনি রিপাবলিকান নেতাদের অভিনন্দন জানিয়েছেন। টুইটারে এ জয়কে ম্যাজিক বলে উল্লেখ করেছেন ট্রাম্প।

মধ্যবর্তী এ নির্বাচনের মাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্র মূলত দু’ভাগে বিভক্ত হয়ে গেছে। সিনেটে আধিপত্য ধরে রাখার মাধ্যমে রিপাবলিকানরা প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের বেশ কিছু কর্মসূচি বাস্তবায়ন করতে সফল হবে, যার মধ্যে বিচারক নিয়োগ অন্যতম। তবে সিনেটের নিয়ন্ত্রণ নিতে ব্যর্থ হলেও নিুকক্ষ হাউসের নিয়ন্ত্রণ ডেমোক্র্যাটরাই পেয়েছে।

এর মাধ্যমে ডেমোক্র্যাটরা হাউস কমিটির মাধ্যমে প্রেসিডেন্টের বিরুদ্ধে নতুন তদন্ত শুরু করতে পারবে।


আগামীকাল নির্বাচনকালীন সরকার গঠন হতে পারে : অর্থমন্ত্রী

জলপাইয়ের লোভনীয় ভর্তা


এ বিভাগের আরো খবর...

নির্বাচন কমিশন ও পুলিশের ভূমিকা প্রশ্নবিদ্ধ: ফখরুল নির্বাচন কমিশন ও পুলিশের ভূমিকা প্রশ্নবিদ্ধ: ফখরুল
ডিএমপি কমিশনার ও ইসি সচিবের শাস্তি দাবি- বিএনপির ডিএমপি কমিশনার ও ইসি সচিবের শাস্তি দাবি- বিএনপির
বর্ণচোরা ভণ্ডদের ঘৃণাভরে প্রত্যাখ্যান করবে জনগন- নাসিম বর্ণচোরা ভণ্ডদের ঘৃণাভরে প্রত্যাখ্যান করবে জনগন- নাসিম
জাতীয় পার্টি আবার জেগে উঠেছে: এরশাদ জাতীয় পার্টি আবার জেগে উঠেছে: এরশাদ
পর্যবেক্ষকদের নিরপেক্ষ ভাবে দায়িত্ব পালন করতে হবে- ইসি সচিব পর্যবেক্ষকদের নিরপেক্ষ ভাবে দায়িত্ব পালন করতে হবে- ইসি সচিব
সম্পদের হিসাব না দেওয়ায় রফিকুলের সাজা সম্পদের হিসাব না দেওয়ায় রফিকুলের সাজা
বদি-রানাকে মনোনায়ন দেওয়া হচ্ছে না- কাদের বদি-রানাকে মনোনায়ন দেওয়া হচ্ছে না- কাদের
শরিকদের ৩৫-৪০ আসন দিতে চায় বিএনপি শরিকদের ৩৫-৪০ আসন দিতে চায় বিএনপি
প্রিন্স আহমেদ পরবর্তী সৌদি বাদশাহ হওয়ার আভাস? প্রিন্স আহমেদ পরবর্তী সৌদি বাদশাহ হওয়ার আভাস?
আজও বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশীদের সাক্ষাৎকার চলছে আজও বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশীদের সাক্ষাৎকার চলছে

সর্বাধিক পঠিত

মা হতে চলেছেন অনুষ্কা শর্মা মা হতে চলেছেন অনুষ্কা শর্মা
নির্বাচন কমিশন ও পুলিশের ভূমিকা প্রশ্নবিদ্ধ: ফখরুল নির্বাচন কমিশন ও পুলিশের ভূমিকা প্রশ্নবিদ্ধ: ফখরুল
মেয়ের নাম জানালেন নেহা-অঙ্গদ মেয়ের নাম জানালেন নেহা-অঙ্গদ
ডিএমপি কমিশনার ও ইসি সচিবের শাস্তি দাবি- বিএনপির ডিএমপি কমিশনার ও ইসি সচিবের শাস্তি দাবি- বিএনপির
তেল দৈনিক ১০ লাখ ব্যারেল বাড়াতে চায় ভেনিজুয়েলা তেল দৈনিক ১০ লাখ ব্যারেল বাড়াতে চায় ভেনিজুয়েলা
পেঁয়াজের দাম কমেছে কেজিতে ১১ টাকা পেঁয়াজের দাম কমেছে কেজিতে ১১ টাকা
দীপিকা-রণবীর মুম্বইতে ইন্ডাস্ট্রির বন্ধুদের, সহকর্মীদের জন্য পার্টি দেবেন দীপিকা-রণবীর মুম্বইতে ইন্ডাস্ট্রির বন্ধুদের, সহকর্মীদের জন্য পার্টি দেবেন
ভারতের ৫৮ লাখ টন চাল রফতানি ৬ মাসে ভারতের ৫৮ লাখ টন চাল রফতানি ৬ মাসে
খালি গায়ে ঘর পরিষ্কার করে মাসিক আয় ৪ লাখ টাকা! খালি গায়ে ঘর পরিষ্কার করে মাসিক আয় ৪ লাখ টাকা!
কাঁকড়ার রক্ত ১১ লাখ টাকা প্রতি লিটার! কাঁকড়ার রক্ত ১১ লাখ টাকা প্রতি লিটার!
নির্বাচনে সবার অংশগ্রহণ-গণতন্ত্রের জন্য ইতিবাচক
বহুল প্রত্যাশিত সংলাপে কি ছিল?
একটি অর্থবহ ও সফল সংলাপের প্রত্যাশা করছি
শেখ হাসিনা বার্ন ইন্সটিটিউটের: প্রত্যাশিত স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত হবে কি?
নদীশাসনের দুর্বলতা বিঘ্নিত হচ্ছে নৌপথে চলাচল
শিল্পে গ্যাস সংযোগ না দেওয়া, আর্থিক ক্ষতির মুখে-সরকার
গুদামের খাদ্যদ্রব্য পাচারে-সক্রিয় চোর সিন্ডিকেট
প্যারিস জলবায়ু চুক্তি ৩০০ পৃষ্ঠার খসড়া অনুমোদন করেছে-ব্যাংকক
সড়ক শৃঙ্খলা-মূল সমস্যাটা রাজনীতিতেই: কাদের
বিশ্বের ভয়াবহ আবহাওয়া নিয়ে প্রযুক্তিগত আলোচনা চলছে