ঢাকা, ফেব্রুয়ারী ২১, ২০১৯, ৯ ফাল্গুন ১৪২৫
---
bbc24news.com
প্রথম পাতা » নির্বাচন » নির্বাচনে সবার অংশগ্রহণ-গণতন্ত্রের জন্য ইতিবাচক
বুধবার ● ১৪ নভেম্বর ২০১৮, ৯ ফাল্গুন ১৪২৫
Email this News Print Friendly Version

নির্বাচনে সবার অংশগ্রহণ-গণতন্ত্রের জন্য ইতিবাচক

---শাহাদাত হোসেন:সবার অংশগ্রহণে নির্বাচন দেশের গণতন্ত্রের জন্যই নয়, অর্থনীতি থেকে শুরু করে সার্বিক উন্নয়নের জন্যও ইতিবাচক, তা বলার অপেক্ষা রাখে না।তাই সব জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নির্বাচনে অংশ নেয়ার ঘোষণা দিয়েছে।ফলে ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির মতো আরেকটি বিতর্কিত নির্বাচন দেখতে হচ্ছে না জাতিকে।এখন নির্বাচন কমিশনের (ইসি) দায়িত্ব সবার জন্য লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড তৈরি করার মাধ্যমে একটি অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন জাতিকে উপহার দেয়া। যেহেতু নির্বাচনের মাঠে এই সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠানটি প্রধান নিয়ামক, সেহেতু এর কোনো আচরণ বা সিদ্ধান্ত যেন একতরফা না হয় এবং তা কাউকে বেঁকে বসার সুযোগ করে না দেয়, তা নিশ্চিত করতে হবে। পাশাপাশি ইসি, সরকার ও সংশ্লিষ্ট সবার দায়িত্ব জাতীয় ঐক্যফ্রন্টসহ সব দল বা জোটের সংবিধানসম্মত যৌক্তিক দাবি-দাওয়ার প্রতি সম্মান দেখানো।

এরই মধ্যে ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বে বিএনপি নির্বাচনে অংশ নেয়ার পাশাপাশি কিছু দাবি তুলে ধরে সংবাদ সম্মেলন করেছে। এতে নির্বাচনের তারিখ এক মাস পেছানো ও নির্বাচনী পরিবেশ তৈরির জন্য নির্বাচন কমিশন ও সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন ফ্রন্ট নেতারা। আমরা মনে করি, পরিবেশ তৈরির দাবি তাদের অধিকার এবং তাড়াহুড়ো করে ঘোষিত তফসিলে নির্বাচনের তারিখ পেছানোও যেতে পারে। কারণ ঐক্যফ্রন্ট ছাড়া বদরুদ্দোজা চৌধুরীর যুক্তফ্রন্টও নির্বাচনের তারিখ পেছানোর দাবি আগেই জানিয়েছে। এছাড়া দেশে নির্বাচনের তারিখ পেছানোর নজির নিকট অতীতেও রয়েছে। এতে আহামরি কোনো সমস্যা হওয়ার কথা নয়। এর বাইরে ঐক্যফ্রন্টের সাত দফা দাবির যেগুলো মেনে নেয়া সম্ভব, সেগুলোর প্রতি সরকার ও ইসিকে ইতিবাচক মনোভাব পোষণ করতে হবে। নিজেদের স্বার্থের বাইরে গিয়ে দেশের ভবিষ্যতের জন্য একটি মানসম্মত ভোট আয়োজনে আলোচনা ও ছাড় দেয়ার মানসিকতা উন্নত গণতন্ত্রের অংশ বৈকি।

নির্বাচন কখনও মূল লক্ষ্য নয়, মূল লক্ষ্য হচ্ছে জনগণকে তাদের শাসক নির্বাচনের অধিকার দেয়া এবং রাষ্ট্র পরিচালনায় তাদের অংশীদারিত্ব নিশ্চিত করা। বিষয়টি ইসি, সরকার, সব রাজনৈতিক দল ও অংশীজনদের বিবেচনায় রেখে এগিয়ে যেতে হবে। দুর্ভাগ্যজনকভাবে, আমাদের দেশে সবাই নিজেদের গণতন্ত্রের অনুসারী দাবি করলেও আলাপ-আলোচনা ও ছাড় দেয়ার মানসিকতা কোনো পক্ষের মধ্যেই নেই। অথচ আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে যে কোনো সমস্যার সমাধান এবং অন্যের মতকে সম্মান দেয়াই হল গণতন্ত্রের মূল কথা। কেবল মুখে গণতন্ত্রের বুলি না আওড়ে আচার-আচরণে গণতান্ত্রিক হলে ‘বিচার মানি তালগাছ আমার’ মানসিকতাও কাজ করত না। আমরা আশা করব, ভোট সামনে রেখে সবাই গণতান্ত্রিক মানসিকতা লালন করবে এবং ইসি ও সরকার সংবিধান মোতাবেক সবার সমান অধিকার নিশ্চিত করার বিষয়ে আন্তরিক থাকবে। অন্যথায়, যে কোনো ধরনের হাঙ্গামা ও অস্থিতিশীল পরিস্থিতি তৈরি হলে তার দায়-দায়িত্ব সংশ্লিষ্টদেরই নিতে হবে। নির্বাচনকালীন সরকারের প্রশাসন ও ইসিকে সবার জন্য সমান সুযোগ তথা লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড নিশ্চিত করার পাশাপাশি আইনশৃঙ্খলা রক্ষা, সন্ত্রাস, ভয়ভীতি প্রদর্শন ও প্রভাব বিস্তারের মতো ঘৃণ্য পরিবেশ তৈরি করে যাতে কেউ পার পেতে না পারে, তা নিশ্চিত করতে হবে। সবাই ইতিবাচক মানসিকতা নিয়ে এগিয়ে এলে একটি অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের মাধ্যমে জনগণের নির্বাচিত প্রতিনিধির হাতে ক্ষমতা তুলে দেয়া সম্ভব।


ডেসটিনি চেয়ারম্যানের ৩ বছরের কারাদণ্ড

পাকিস্তান কি আসলেই ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক চায়?


এ বিভাগের আরো খবর...

১২২ উপজেলায় ভোট ৩১ মার্চ ১২২ উপজেলায় ভোট ৩১ মার্চ
শপথ নিলেন সংরক্ষিত আসনের নারী এমপিরা শপথ নিলেন সংরক্ষিত আসনের নারী এমপিরা
আমাদের সকল প্রচেষ্টা এবং প্রয়াস সার্থক হয়েছে: সিইসি আমাদের সকল প্রচেষ্টা এবং প্রয়াস সার্থক হয়েছে: সিইসি
উপজেলা নির্বাচন সার্বিকভাবে অংশগ্রহণমূলক হচ্ছে না: মাহবুব তালুকদার উপজেলা নির্বাচন সার্বিকভাবে অংশগ্রহণমূলক হচ্ছে না: মাহবুব তালুকদার
সংরক্ষিত নারী এমপিদের শপথ আগামীকাল সংরক্ষিত নারী এমপিদের শপথ আগামীকাল
প্রধানমন্ত্রীর জার্মানি সফর উন্নয়ন- কূটনৈতিক সম্পর্ক জোরদার হবে! প্রধানমন্ত্রীর জার্মানি সফর উন্নয়ন- কূটনৈতিক সম্পর্ক জোরদার হবে!
তৃতীয় ধাপ থেকে ইভিএম ব্যবহার করা হবে- ইসি সচিব তৃতীয় ধাপ থেকে ইভিএম ব্যবহার করা হবে- ইসি সচিব
খেলাপি ঋণে ‘জিরো টলারেন্স’ চাই খেলাপি ঋণে ‘জিরো টলারেন্স’ চাই
যে কোনো সমস্যা ৪৮ ঘণ্টায় সমাধান- আতিকুল যে কোনো সমস্যা ৪৮ ঘণ্টায় সমাধান- আতিকুল
বিএনপিসহ বড় দলের না আসাটা হতাশাজনক: সিইসি বিএনপিসহ বড় দলের না আসাটা হতাশাজনক: সিইসি

সর্বাধিক পঠিত

গেইলের ছক্কার বিশ্বরেকর্ড আফ্রিদিকে ছাড়িয়ে গেইলের ছক্কার বিশ্বরেকর্ড আফ্রিদিকে ছাড়িয়ে
আজহার, সৌরভ, কেউই ক্রিকেট চায় না পাকিস্তানের সঙ্গে আজহার, সৌরভ, কেউই ক্রিকেট চায় না পাকিস্তানের সঙ্গে
শাপলা-শালুক জামদানী শাপলা-শালুক জামদানী
সেন্টমার্টিনে বিপুল পরিমাণ ইয়াবা জব্দ, আটক ১১ সেন্টমার্টিনে বিপুল পরিমাণ ইয়াবা জব্দ, আটক ১১
মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ প্রতিযোগিতার এভ্রিলকে সঙ্গে নিয়ে আসিফ মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ প্রতিযোগিতার এভ্রিলকে সঙ্গে নিয়ে আসিফ
অভিনেতা প্রতীক বব্বর স্ত্রীর সঙ্গে অর্ধনগ্ন ছবি পোষ্ট করে বিপাকে অভিনেতা প্রতীক বব্বর স্ত্রীর সঙ্গে অর্ধনগ্ন ছবি পোষ্ট করে বিপাকে
আমাদের প্রিয় ‘আই আর’…চৌধুরী মনজুর লিয়াকত (রুমি) আমাদের প্রিয় ‘আই আর’…চৌধুরী মনজুর লিয়াকত (রুমি)
কিম কার্দাশিয়ান উন্মুক্ত দেহে ঝড় তুললেন! কিম কার্দাশিয়ান উন্মুক্ত দেহে ঝড় তুললেন!
বাংলাদেশের অগ্নিকান্ডে - মমতার সমবেদনা বাংলাদেশের অগ্নিকান্ডে - মমতার সমবেদনা
এবার ইয়ামিকে দেখা যাবে বিকিনিতে এবার ইয়ামিকে দেখা যাবে বিকিনিতে
প্রধানমন্ত্রীর জার্মানি সফর উন্নয়ন- কূটনৈতিক সম্পর্ক জোরদার হবে!
খেলাপি ঋণে ‘জিরো টলারেন্স’ চাই
৫ জনই ছাত্রলীগ-যুবলীগ নেতা
দুর্নীতির বিরুদ্ধে প্রকৃত অর্থেই নিতে হবে জিরো টলারেন্স
বেআইনি ব্যাংকিং কার্যক্রমের বিরুদ্ধে বহুমুখী পদক্ষেপ নিন
খাদ্যে অতিরিক্ত ট্রান্সফ্যাটের কারণে, প্রতি বছর বিশ্বে পাঁচ লাখ মানুষের মৃত্যু হয়
স্বাধীনতার পর প্রথমবার ‘মন্ত্রীশূন্য’ কিশোরগঞ্জ
মন চুরির অভিযোগ পুলিশের কাছে!
সৈয়দ আশরাফ যে কবরে সমাহিত হবেন
ব্যবসায়ীদের বিনিয়োগের বাধা দূর করতে হবে?