ঢাকা, মার্চ ১৮, ২০১৯, ৪ চৈত্র ১৪২৫
---
bbc24news.com
প্রথম পাতা » সম্পাদকীয় » প্রধানমন্ত্রীর জার্মানি সফর উন্নয়ন- কূটনৈতিক সম্পর্ক জোরদার হবে!
সোমবার ● ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০১৯, ৪ চৈত্র ১৪২৫
Email this News Print Friendly Version

প্রধানমন্ত্রীর জার্মানি সফর উন্নয়ন- কূটনৈতিক সম্পর্ক জোরদার হবে!

---এম ডি জালাল: ১৯৬৩ সালে মিউনিখ নিরাপত্তা সম্মেলনের যাত্রা শুরু হয়েছিল। স্নায়ুযুদ্ধের পটভূমিতে সূচনা হলেও পাঁচ দশকের বেশি সময় ধরে এই সম্মেলন বিশ্ব নিরাপত্তা ও বিভিন্ন পরিবর্তনের প্রেক্ষিত নিয়ে আলোচনা করে আসছে। প্রধানমন্ত্রীর জার্মানি ও সংযুক্ত আরব আমিরাত সফর দেশ দুটির সঙ্গে আমাদের কূটনৈতিক সম্পর্ক জোরদার হয়েছে।মিউনিখ সিকিউরিটি কনফারেন্সের আমন্ত্রণে ৫৫তম আন্তর্জাতিক নিরাপত্তা সম্মেলনে অংশ নিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গত ১৪ ফেব্রুয়ারি জার্মানি সফরে গিয়েছিলেন। টানা তৃতীয়বারের মতো প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণের পর এটিই তার প্রথম বিদেশ সফর।তিন দিনের এ নিরাপত্তা সম্মেলনে বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসা প্রতিনিধিরা মানবসভ্যতার বর্তমান ও আগামী দিনের নিরাপত্তা চ্যালেঞ্জ বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ আলোচনায় অংশ নিয়েছেন, যা বর্তমান বিশ্ব পরিস্থিতিতে অপরিহার্য বলা চলে।

এছাড়া সম্মেলনে অস্ত্র নিয়ন্ত্রণের ভবিষ্যৎ এবং ডিফেন্স পলিসি নিয়ে আলোচনার পাশাপাশি ছিল বাণিজ্য ও আন্তর্জাতিক নিরাপত্তার বিষয়। এবারের সম্মেলনে জলবায়ু পরিবর্তনের মতো বিষয় ও আন্তর্জাতিক নিরাপত্তায় প্রযুক্তিগত উদ্ভাবনের বিষয়ও স্থান পেয়েছে। বলার অপেক্ষা রাখে না, বিশ্বজুড়ে জলবায়ু পরিবর্তনের যে নেতিবাচক প্রভাব পড়ছে, তার অন্যতম শিকার বাংলাদেশ। প্রধানমন্ত্রী এ সম্মেলনে যোগদান করায় নিঃসন্দেহে বাংলাদেশ উপকৃত হবে।

মিউনিখ নিরাপত্তা সম্মেলনের ফাঁকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে বৈঠক করেছেন আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতের (আইসিসি) প্রধান কৌঁসুলি ফাতু বেনসুদার। আশার কথা, ১৯৭১ সালের গণহত্যা, ১৯৭৫ সালে বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ড এবং সাম্প্রতিক সময়ে রোহিঙ্গা সংকট নিয়ে আইসিসির সঙ্গে বাংলাদেশের সম্পৃক্ততা বাড়ছে। উল্লেখ্য, মিয়ানমারের রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর ওপর সংঘটিত মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগের বিষয়ে গত সেপ্টেম্বরে প্রাথমিক তদন্ত শুরু করেছে আইসিসি।

প্রধানমন্ত্রীর জার্মানি সফরকালে পায়রায় ৩৬০০ মেগাওয়াট ক্ষমতাসম্পন্ন বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণের লক্ষ্যে সিমেন্স এজি এবং নর্থ-ওয়েস্ট পাওয়ার জেনারেশন কোম্পানির মধ্যে একটি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে। আমদানি করা এলএনজিনির্ভর এ প্রকল্পটি হবে দেশের সবচেয়ে বড় বিদ্যুৎ কেন্দ্র। বলার অপেক্ষা রাখে না, কাক্সিক্ষত উন্নয়ন সোপানে পৌঁছতে হলে চাহিদা অনুসারে বিদ্যুৎ সরবরাহ নিশ্চিত করা দরকার। প্রধানমন্ত্রীর এ সফরের মধ্য দিয়ে দেশের বিদ্যুৎ খাতের উল্লেখযোগ্য উন্নয়ন ঘটবে বলে আমাদের বিশ্বাস। ২০১৭ সালের ফেব্রুয়ারিতে শেখ হাসিনার জার্মানি সফরের সময় বাংলাদেশে ই-পাসপোর্ট চালুর জন্য সেখানকার সরকারি প্রতিষ্ঠান ‘ভেরিডোস জেএমবিএইচের’ সঙ্গে সমঝোতা স্মারক সই হয়েছিল। প্রতিষ্ঠানটির প্রধান নির্বাহী প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করে ২০১৯ সালের জুন মাসে ই-পাসপোর্ট সরবরাহের কথা জানিয়েছেন। এ সংবাদ আমাদের জন্য অবশ্যই আনন্দের। এর ফলে বিশ্বের শুধু দুটি দেশ- জার্মানি ও বাংলাদেশ এই পাসপোর্টের অধিকারী হবে।

জার্মানি সফর শেষে গতকাল সংযুক্ত আরব আমিরাত সফর শুরু করেছেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি আবুধাবিতে অনুষ্ঠেয় আন্তর্জাতিক প্রতিরক্ষা প্রদর্শনীর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ এবং এক্সিবিশন প্রদর্শন করবেন। দেশটির প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক বৈঠকের পাশাপাশি আবুধাবির ক্রাউন প্রিন্স ও আরব আমিরাতের ডেপুটি সুপ্রিম কমান্ডার শেখ মুহাম্মদ বিন যায়েদ আল নাহিয়ানের সঙ্গেও বৈঠক করবেন প্রধানমন্ত্রী। এছাড়া বাংলাদেশি কমিউনিটির সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর মতবিনিময় এবং এলএনজি ও মাতারবাড়ী এলাকায় অর্থনৈতিক জোন প্রতিষ্ঠা সংক্রান্ত দুটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরের পাশাপাশি বাণিজ্য ও বিনিয়োগ, প্রযুক্তিগত উদ্ভাবন এবং জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব মোকাবেলার ক্ষেত্রে ইতিবাচক ভূমিকা রাখবে ।


বগুড়ায় আ.লীগ-যুবলীগ সংঘর্ষে ১৩ নেতাকর্মী আহত

প্রিয়াঙ্কা শিকড় ভুলে যেও না - কারিনা কাপুর


এ বিভাগের আরো খবর...

প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকা তৈরি করতে পারছে না কেন? প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকা তৈরি করতে পারছে না কেন?
শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক বিশ্বে একটি রোল মডেল? শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক বিশ্বে একটি রোল মডেল?
সীমাহীন দুর্নীতিগ্রস্ত বিমান সীমাহীন দুর্নীতিগ্রস্ত বিমান
নানা সমস্যায় জর্জরিত ব্যাংকিং খাত! নানা সমস্যায় জর্জরিত ব্যাংকিং খাত!
উত্তপ্ত কাশ্মীর সমস্যার স্থায়ী সমাধান প্রয়োজন! উত্তপ্ত কাশ্মীর সমস্যার স্থায়ী সমাধান প্রয়োজন!
দেশকে দ্রুত উন্নতির জন্য কারিগরি শিক্ষার বিকল্প নেই! দেশকে দ্রুত উন্নতির জন্য কারিগরি শিক্ষার বিকল্প নেই!
প্রধানমন্ত্রীর জার্মানি সফর উন্নয়ন- কূটনৈতিক সম্পর্ক জোরদার হবে! প্রধানমন্ত্রীর জার্মানি সফর উন্নয়ন- কূটনৈতিক সম্পর্ক জোরদার হবে!
খেলাপি ঋণে ‘জিরো টলারেন্স’ চাই খেলাপি ঋণে ‘জিরো টলারেন্স’ চাই
জনতা ব্যাংকে নেতৃত্ব সংকট দেখা দিয়েছে জনতা ব্যাংকে নেতৃত্ব সংকট দেখা দিয়েছে
খাদ্যদ্রব্যে ভেজাল ও ক্ষতিকর উপাদান রোধে নিতে হবে কঠোর পদক্ষেপ! খাদ্যদ্রব্যে ভেজাল ও ক্ষতিকর উপাদান রোধে নিতে হবে কঠোর পদক্ষেপ!

সর্বাধিক পঠিত

১৫তম শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষার সময় নির্ধারণ ১৫তম শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষার সময় নির্ধারণ
রাঙ্গামাটিতে দুর্বৃত্তদের গুলিতে প্রিসাইডিং অফিসারসহ নিহত ৫ রাঙ্গামাটিতে দুর্বৃত্তদের গুলিতে প্রিসাইডিং অফিসারসহ নিহত ৫
প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকা তৈরি করতে পারছে না কেন? প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকা তৈরি করতে পারছে না কেন?
দ্বিতীয় ধাপে ভোট সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ হয়েছে- ইসি সচিব দ্বিতীয় ধাপে ভোট সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ হয়েছে- ইসি সচিব
দেশের প্রচলিত শিক্ষা ব্যবস্থায় চাকরির সুযোগ নেই- মোস্তাফা জব্বার দেশের প্রচলিত শিক্ষা ব্যবস্থায় চাকরির সুযোগ নেই- মোস্তাফা জব্বার
কালীগঞ্জে কিশোরীকে গনধর্ষণে গ্রেফতার ৩ কালীগঞ্জে কিশোরীকে গনধর্ষণে গ্রেফতার ৩
মর্যাদাহীন নির্বাচন করে কেউ খুশি হতে পারে না- মাহবুব তালুকদার মর্যাদাহীন নির্বাচন করে কেউ খুশি হতে পারে না- মাহবুব তালুকদার
পাকিস্তানি সেনার গুলিতে ভারতীয় সেনা নিহত, উত্তেজনার আশংকা! পাকিস্তানি সেনার গুলিতে ভারতীয় সেনা নিহত, উত্তেজনার আশংকা!
হাসতে নেই মানা: হাসুন প্রাণ খুলে হাসতে নেই মানা: হাসুন প্রাণ খুলে
তিমির পেটে ৪০ কেজি প্লাস্টিকের ‘শপিং ব্যাগ’! তিমির পেটে ৪০ কেজি প্লাস্টিকের ‘শপিং ব্যাগ’!
প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকা তৈরি করতে পারছে না কেন?
শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক বিশ্বে একটি রোল মডেল?
সীমাহীন দুর্নীতিগ্রস্ত বিমান
নানা সমস্যায় জর্জরিত ব্যাংকিং খাত!
উত্তপ্ত কাশ্মীর সমস্যার স্থায়ী সমাধান প্রয়োজন!
দেশকে দ্রুত উন্নতির জন্য কারিগরি শিক্ষার বিকল্প নেই!
প্রধানমন্ত্রীর জার্মানি সফর উন্নয়ন- কূটনৈতিক সম্পর্ক জোরদার হবে!
খেলাপি ঋণে ‘জিরো টলারেন্স’ চাই
৫ জনই ছাত্রলীগ-যুবলীগ নেতা
দুর্নীতির বিরুদ্ধে প্রকৃত অর্থেই নিতে হবে জিরো টলারেন্স