ঢাকা, মার্চ ১৮, ২০১৯, ৪ চৈত্র ১৪২৫
---
bbc24news.com
প্রথম পাতা » প্রধান সংবাদ » বিএনপির বৈঠকে ঐক্যফ্রন্টের কড়া সমালোচনা!
বৃহস্পতিবার ● ১৪ মার্চ ২০১৯, ৪ চৈত্র ১৪২৫
Email this News Print Friendly Version

বিএনপির বৈঠকে ঐক্যফ্রন্টের কড়া সমালোচনা!

---বিবিসি২৪নিউজ,নিজস্ব প্রতিবেদক:বিএনপির সর্বোচ্চ নীতিনির্ধারণী ফোরাম জাতীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠকে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের কড়া সমালোচনা হয়েছে। ফ্রন্টের একজন শীর্ষ নেতার বিষোদগার করেছেন স্থায়ী কমিটির একাধিক সদস্য।বিএনপির রাজনীতি যেন শুধু জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের মধ্যে সীমাবদ্ধ না থাকে সে বিষয়টি খেয়াল রাখার তাগিদ দিয়েছেন কেউ কেউ।

বিএনপি ঐক্যফ্রন্টের ‘পেটে ঢুকে পড়েছে’ এমন মন্তব্য করে দলটিকে জোটনির্ভর না হয়ে স্বাধীনভাবে রাজনীতি করার পক্ষে মত দিয়েছেন অনেকেই।

পাশাপাশি জামায়াত বিএনপির জন্য বোঝা হয়ে পড়েছে, এমন মতও উঠে এসেছে বৈঠকে। বৈঠকসূত্রে এমন তথ্য জানা গেছে।

বুধবার রাজধানীর গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে রাত ৭টা থেকে বৈঠকটি শুরু হয়। আড়াই ঘণ্টাব্যাপী রুদ্ধদ্বার এ বৈঠকে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্যরা দলের সাংগঠনিক অবস্থার চুলচেরা বিশ্লেষণ করেন।

দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান স্কাইপির মাধ্যমে বৈঠকে সংযুক্ত হন। তিনি সব নেতার বক্তব্য শোনেন। পরে দিকনির্দেশনামূলক বক্তব্য দেন।

বৈঠকে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন দলের স্থায়ী কমিটির জ্যেষ্ঠ সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, লে. জে. (অব.) মাহবুবুর রহমান, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ড. আবদুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান ও আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী।

বিএনপির নীতিনির্ধারকরা মত দেন যে, বিএনপির রাজনীতি এখন অনেকটাই জোটকেন্দ্রিক হয়ে পড়েছে। ২০-দলীয় জোট ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট থেকে বের হতে হবে। এ জন্য নিজেদের মেধা, শ্রম ও অভিজ্ঞতা দিয়ে সংগঠন শক্তিশালী করার বিষয়ে তারা একমত পোষণ করেছেন।

বৈঠকে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট ও জামায়াত ইস্যুকে প্রাধান্য দিয়ে নেতারা তাদের মতামত তুলে ধরেন। এর বাইরে ডাকসু নির্বাচন, খালেদা জিয়ার চিকিৎসা ও মামলা প্রসঙ্গেও নেতারা বক্তব্য রাখেন। নেতাদের এসব বক্তব্যের সারমর্ম তৈরি করে দুই-একদিনের মধ্যে তারেক রহমানকে পাঠানোর জন্যও সিদ্ধান্ত নেয়া হয় বৈঠকে। দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এ সারমর্ম তৈরি করবেন।

সূত্র জানায়, বৈঠকে দলের স্থায়ী কমিটির একজন সদস্য জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা ড. কামাল হোসেনের নাম উল্লেখ না করে তার সমালোচনা করে বলেন, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট গঠনের সিদ্ধান্ত সঠিক ছিল নাকি ভুল ছিল, তা ইতিহাস একদিন তুলে ধরবে। তবে ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা প্রধানমন্ত্রী হবেন এ আশায় নির্বাচনের কোনো পরিকল্পনা ও বাস্তবতাকে বাদ দিয়ে নির্বাচনে যাওয়ার সিদ্ধান্ত চাপিয়ে দেন। তখন ওই নেতাকেই তাদের শীর্ষ নেতা হিসেবে মেনে নেয়া উচিত ছিল কিনা এমন প্রশ্ন তুলেন তিনি।

বিএনপি ওই নেতার সিদ্ধান্তকে গুরুত্ব দিয়ে ৩০ ডিসেম্বরের ভোটে গিয়েছিল, এমন মত দিয়ে তিনি আরও বলেন, বিএনপির নেতাদের বাইরে তার (ঐক্যফ্রন্টের ওই নেতা) সিদ্ধান্তে নির্বাচনে যাওয়া হয়েছিল।

বিএনপিকে স্বাধীনভাবে রাজনীতি করার পরামর্শ দিয়ে তিনি বলেন, এখন নির্বাচন শেষ। এ নির্বাচনে যা অর্জন হওয়ার তা হয়েছে। তাই এবার এসব ঐক্যফ্রন্ট রাজনীতিকে বন্ধ করে নিজেদের সমতা বাড়াতে হবে। দলকে গোছাতে হবে। সারা দেশে সাংগঠনিক তৎপরতা বাড়াতে হবে বলেও তিনি মনে করেন।

দলের আরেকজন স্থায়ী কমিটির সদস্য বলেন, বিএনপির রাজনীতি এখন ঐক্যফ্রন্টমুখী হয়ে গেছে। এখান থেকে আমাদের বেরিয়ে আসতে হবে। নিজেদের রাজনৈতিক সক্ষমতা বাড়াতে হবে। যদিও তাদের এই বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে তারেক রহমান কিছু বলেননি।

সূত্রে জানা গেছে, ধানের শীষ প্রতীকে নির্বাচন করা সুলতান মোহাম্মদ মনসুরের সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ নেয়ার বিষয়টি আলোচনায় তোলেন একজন সদস্য। এই প্রসঙ্গ উঠলে অন্যরাও ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতার সমালোচনা করেন। তার পর সংসদ নির্বাচনের আগে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট গঠন কতটুকু সঠিক ছিল তা নিয়েও প্রশ্ন তোলেন।

আরেকজন স্থায়ী কমিটির এক সদস্য জামায়াতকে জোটে রাখার বিরোধিতা করেন। তিনি বলেন, জামায়াত নানা কারণে বিএনপির জন্য দায় হয়ে পড়েছে। এ ছাড়া কয়েক বছর আগে যে বাস্তবতায় জামায়াতের সঙ্গে জোট করা হয়েছিল সেটি আর এখন নেই। এখন জামায়াতের সাংগঠনিক ভিত্তি নেই। আন্দোলনেও তাদের পাশে পাওয়া যায় না। এমতাবস্থায় তাদের জোটে রেখে লাভ নেই বলে মত দেন তিনি।

স্থায়ী কমিটির আরেক সদস্য জামায়াত প্রসঙ্গে বলেন, দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া জামায়াতের সঙ্গে জোট করেছেন। জাতীয় নির্বাচনে জামায়াত বিতর্কের বিষয়টি তুলে ধরে তিনি বলেন, সরকারের পক্ষ থেকে এসব প্রচার করা হয়েছে। একটি দেশের নাম উল্লেখ করে ওই নেতা বলেন, ওই দেশটি নানা অজুহাতে বিএনপিকে নসিহত করলেও তারা আওয়ামী লীগকে বাদ দিয়ে কখনও কিছু করবে না। তাই জামায়াত বিষয়ে সরকার কোনো কিছু না করলে বিএনপির পক্ষ থেকেও কিছু করা ঠিক হবে না।

নেতাদের বক্তব্যের একপর্যায়ে তারেক রহমান বক্তব্য রাখেন। তিনি দলের কেন্দ্রীয় নেতা ছাড়াও জেলাপর্যায়ের নেতাদের সঙ্গে যোগাযোগ বাড়ানোর জন্য পরামর্শ দেন। এর পাশাপাশি বিভিন্ন পেশাজীবীর সঙ্গেও নিজেদের সম্পর্ক বাড়ানোর বিষয়ে বক্তব্য রাখেন।

সূত্র জানায়, বৈঠকে আরেকজন স্থায়ী কমিটির সদস্য বলেন, জাতীয় নির্বাচনের আগে নিয়মিত স্থায়ী কমিটির বৈঠক অনুষ্ঠিত হলেও এখন আর তা হচ্ছে না। ফলে সিদ্ধান্ত গ্রহণে দীর্ঘসূত্রতার সৃষ্টি হচ্ছে। তার ওই বক্তব্যের পর সপ্তাহে অন্তত একবার বৈঠক করার নীতিগত সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।


ভারতে ৬ পরমাণু বিদ্যুৎ চুল্লি নির্মাণ করবে- যুক্তরাষ্ট্র

১৪ বছর প্রেমের পর বিয়ের কোর্টে নামছেন নাদাল


এ বিভাগের আরো খবর...

রাঙ্গামাটিতে দুর্বৃত্তদের গুলিতে প্রিসাইডিং অফিসারসহ নিহত ৫ রাঙ্গামাটিতে দুর্বৃত্তদের গুলিতে প্রিসাইডিং অফিসারসহ নিহত ৫
দ্বিতীয় ধাপে ভোট সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ হয়েছে- ইসি সচিব দ্বিতীয় ধাপে ভোট সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ হয়েছে- ইসি সচিব
দেশের প্রচলিত শিক্ষা ব্যবস্থায় চাকরির সুযোগ নেই- মোস্তাফা জব্বার দেশের প্রচলিত শিক্ষা ব্যবস্থায় চাকরির সুযোগ নেই- মোস্তাফা জব্বার
মর্যাদাহীন নির্বাচন করে কেউ খুশি হতে পারে না- মাহবুব তালুকদার মর্যাদাহীন নির্বাচন করে কেউ খুশি হতে পারে না- মাহবুব তালুকদার
পাকিস্তানি সেনার গুলিতে ভারতীয় সেনা নিহত, উত্তেজনার আশংকা! পাকিস্তানি সেনার গুলিতে ভারতীয় সেনা নিহত, উত্তেজনার আশংকা!
মমতা প্রিয়ঙ্কাকে  বেফাঁস মন্তব্য করায় বিতর্কে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী মমতা প্রিয়ঙ্কাকে বেফাঁস মন্তব্য করায় বিতর্কে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী
নেদারল্যান্ডে যাত্রীবাহী ট্রামে বন্দুকধারীর হামলা! নেদারল্যান্ডে যাত্রীবাহী ট্রামে বন্দুকধারীর হামলা!
২০২০ সালের পর বেসরকারি খাতে ট্রেন দেওয়া হবে না- রেলমন্ত্রী ২০২০ সালের পর বেসরকারি খাতে ট্রেন দেওয়া হবে না- রেলমন্ত্রী
বাতিঘরের মাশুল  দিতেই হবে বাতিঘরের মাশুল দিতেই হবে
জন্মভূমি নইমকে জাতীয় সম্মান জানাবে জন্মভূমি নইমকে জাতীয় সম্মান জানাবে

সর্বাধিক পঠিত

রাঙ্গামাটিতে দুর্বৃত্তদের গুলিতে প্রিসাইডিং অফিসারসহ নিহত ৫ রাঙ্গামাটিতে দুর্বৃত্তদের গুলিতে প্রিসাইডিং অফিসারসহ নিহত ৫
প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকা তৈরি করতে পারছে না কেন? প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকা তৈরি করতে পারছে না কেন?
দ্বিতীয় ধাপে ভোট সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ হয়েছে- ইসি সচিব দ্বিতীয় ধাপে ভোট সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ হয়েছে- ইসি সচিব
দেশের প্রচলিত শিক্ষা ব্যবস্থায় চাকরির সুযোগ নেই- মোস্তাফা জব্বার দেশের প্রচলিত শিক্ষা ব্যবস্থায় চাকরির সুযোগ নেই- মোস্তাফা জব্বার
কালীগঞ্জে কিশোরীকে গনধর্ষণে গ্রেফতার ৩ কালীগঞ্জে কিশোরীকে গনধর্ষণে গ্রেফতার ৩
মর্যাদাহীন নির্বাচন করে কেউ খুশি হতে পারে না- মাহবুব তালুকদার মর্যাদাহীন নির্বাচন করে কেউ খুশি হতে পারে না- মাহবুব তালুকদার
পাকিস্তানি সেনার গুলিতে ভারতীয় সেনা নিহত, উত্তেজনার আশংকা! পাকিস্তানি সেনার গুলিতে ভারতীয় সেনা নিহত, উত্তেজনার আশংকা!
হাসতে নেই মানা: হাসুন প্রাণ খুলে হাসতে নেই মানা: হাসুন প্রাণ খুলে
তিমির পেটে ৪০ কেজি প্লাস্টিকের ‘শপিং ব্যাগ’! তিমির পেটে ৪০ কেজি প্লাস্টিকের ‘শপিং ব্যাগ’!
মিয়া খলিফার ‘একদম পারফেক্ট রাত’ মিয়া খলিফার ‘একদম পারফেক্ট রাত’
প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকা তৈরি করতে পারছে না কেন?
শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক বিশ্বে একটি রোল মডেল?
সীমাহীন দুর্নীতিগ্রস্ত বিমান
নানা সমস্যায় জর্জরিত ব্যাংকিং খাত!
উত্তপ্ত কাশ্মীর সমস্যার স্থায়ী সমাধান প্রয়োজন!
দেশকে দ্রুত উন্নতির জন্য কারিগরি শিক্ষার বিকল্প নেই!
প্রধানমন্ত্রীর জার্মানি সফর উন্নয়ন- কূটনৈতিক সম্পর্ক জোরদার হবে!
খেলাপি ঋণে ‘জিরো টলারেন্স’ চাই
৫ জনই ছাত্রলীগ-যুবলীগ নেতা
দুর্নীতির বিরুদ্ধে প্রকৃত অর্থেই নিতে হবে জিরো টলারেন্স